ঢাকা, শনিবার, ৭ বৈশাখ ১৪২৬, ২০ এপ্রিল ২০১৯
bangla news

বিতর্কিত সাতকানিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটি বিলুপ্ত

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৩-২০ ৬:০৮:৩২ এএম
বিতর্কিত সাতকানিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটি বিলুপ্ত করে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের বিজ্ঞপ্তি/ ছবি: বাংলানিউজ

বিতর্কিত সাতকানিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটি বিলুপ্ত করে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের বিজ্ঞপ্তি/ ছবি: বাংলানিউজ

চট্টগ্রাম: ছাত্রদল, ছাত্রশিবির ও চুরির মামলার আসামিদের নিয়ে কমিটি করায় বিতর্কিত সাতকানিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটি বিলুপ্ত করেছে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ।

মঙ্গলবার (১৯ মার্চ) রাতে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের এক সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

সাতকানিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটি বিলুপ্ত করে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ। 

কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী সাতকানিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটি বিলুপ্ত করে প্রকাশিত বিজ্ঞপ্তিটি তার ব্যক্তিগত ফেসবুক প্রোফাইল থেকে শেয়ার করেন। 

গত ২ মার্চ রাতে সাতকানিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি, পৌরসভা ছাত্রলীগের আহ্বায়ক কমিটি ও সাতকানিয়া সরকারি কলেজের দুই সদস্যের কমিটি অনুমোদন দেন দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি এসএম বোরহার উদ্দিন ও সাধারণ সম্পাদক মো. আবু তাহের।

কমিটি ঘোষণার পরপরই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সমালোচনার ঝড় উঠে কমিটিতে অছাত্র, মাটি ব্যবসায়ী ও বিদেশ ফেরত শ্রমিক, ছাত্রদল নেতা, ছাত্রশিবির কর্মী ও মোটর সাইকেল চুরির মামলার আসামি স্থান পাওয়ায়।

এ ঘটনায় ৪ মার্চ বাংলানিউজে ‘‘শিবির-ছাত্রদল নিয়ে ছাত্রলীগের কমিটি!” শিরোনামে সংবাদ প্রকাশিত হয়। এর পরপরই যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মো. রিদুয়ানুল ইসলাম, ত্রাণ ও দুর্যোগ বিষয়ক সম্পাদক মো. আজাদ উদ্দিন, সহ-সম্পাদক মো. রিয়াজ উদ্দিন ও শহিদুল ইসলাম শহিদকে সংগঠনকে অব্যাহতি দেয় দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগ।

অব্যাহতি পাওয়া চারজনের মধ্যে যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মো. রিদুয়ানুল ইসলামের বিরুদ্ধে মোটর সাইকেল চুরির অভিযোগ ছিল, ত্রাণ ও দুর্যোগ বিষয়ক সম্পাদক মো. আজাদ উদ্দিনের বিরুদ্ধে ছাত্রদলের রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ততার অভিযোগ ছিল, সহ-সম্পাদক মো. রিয়াজ উদ্দিন ও শহিদুল ইসলাম শহিদের বিরুদ্ধে শিবিরের রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ততার অভিযোগ ছিল।

এ চারজন ছাড়া আরও কয়েকজনের বিরুদ্ধে ছাত্রত্ব না থাকা, শিবিবের রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ততার অভিযোগ ছিল। তাদের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। 

উপজেলা ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে ছাত্রশিবির কর্মী, ছাত্রদল নেতা, মোটর সাইকেল চুরির মামলার আসামি, অছাত্র, মাটি ব্যবসায়ী ও বিদেশ ফেরত শ্রমিক স্থান পাওয়ার প্রতিবাদে ওই কমিটি থেকে পদত্যাগ করেন আপ্যায়ন বিষয়ক সম্পাদক সাব্বির হোসাইন আলমগীর, গ্রন্থনা ও প্রকাশনা সম্পাদক সাইফুল ইসলাম, পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক মাঈনু উদ্দীন হাছান, উপ-আপ্যায়ন বিষয়ক সম্পাদক সাইফুল ইসলাম শান্ত, উপ-ছাত্রবৃত্তি সম্পাদক মো. জাহাঙ্গীর আলম, উপ-পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক মিরাজ ইসলাম, সহ-সম্পাদক মির্জা সোহেল, সহ-সম্পাদক প্রমিস চৌধুরী, সহ-সম্পাদক সনজিৎ কর ও সহ-সম্পাদক মো. ফারুক।

বাংলাদেশ সময়: ০৬০৬ ঘণ্টা, মার্চ ২০, ২০১৯
এসকে/টিসি/এমএইচএম

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   ছাত্রলীগ
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14