ঢাকা, সোমবার, ১১ চৈত্র ১৪২৫, ২৫ মার্চ ২০১৯
bangla news

ময়লার ভাগাড় এখন ফুলের বাগান

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৮-১২-১০ ৮:৩৪:২৫ পিএম
ময়লার ভাগাড় এখন ফুলের বাগান। ছবি: বাংলানিউজ

ময়লার ভাগাড় এখন ফুলের বাগান। ছবি: বাংলানিউজ

চট্টগ্রাম: ব্যস্ত সড়ক হলেও সচেতনতার অভাবে তার একাংশে ময়লা ফেলতেন সবাই। বাসা-বাড়ি থেকে শুরু করে হাসপাতালের বর্জ্য- কোন ময়লা নেই সেখানে! ফলে দুর্ভোগে পড়তেন এলাকাবাসী। রেহাই পেতেন না পথচারীরাও।

ধীরে ধীরে ময়লার ভাগাড়ে পরিণত হওয়া নগরের প্রবর্তক স্কুল সড়কের মক্কী মসজিদ সংলগ্ন এলাকাটির অবস্থা কদিন আগেও ছিলো এমনই।

তবে দীর্ঘদিনের এ চিত্র পাল্টে গেছে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন এবং গ্রিড এ ওয়ান ইঞ্জিনিয়ারিং প্রতিষ্ঠানের যৌথ উদ্যোগের মাধ্যমে। ময়লার ভাগাড় সরিয়ে সেখানে তৈরি করা হয়েছে দৃষ্টিনন্দন ফুলের বাগান। পথচারীদের হাঁটা-চলার জন্য নির্মাণ করা হয়েছে ১২০ ফুট দৈর্ঘ্যের সুপরিসর ওয়াকওয়ে।

ময়লার ভাগাড় এখন ফুলের বাগান। ছবি: বাংলানিউজপ্রকল্প সূত্রে জানা গেছে, চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের উদ্যোগে এবং গ্রিড এ ওয়ান ইঞ্জিনিয়ারিং এর আর্থিক সহায়তায় প্রায় ৬০ লাখ টাকা ব্যয়ে নির্মিত এ ফুলের বাগান ও ওয়াকওয়ে নির্মাণ কাজ শুরু হয় অক্টোবরে। সোমবার (১০ ডিসেম্বর) বিকেলে এর উদ্বোধন করেন সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন।

গ্রিড এ ওয়ান ইঞ্জিনিয়ারিং এর স্বত্বাধিকারী সুমন বসাক বাংলানিউজকে বলেন, সচেতনতার অভাবে মক্কী মসজিদ সংলগ্ন এলাকার ফুটপাথ ময়লার ভাগাড়ে পরিণত হয়। দুর্গন্ধের কারণে এলাকাবাসীর যেমন সমস্যা হতো, তেমনি পথচারীসহ হাসপাতাল-ক্লিনিকে আসা রোগীরাও ভোগান্তিতে পড়তেন। এছাড়াও এলাকাটি অন্ধকারচ্ছন্ন থাকায় নানা সময়ে ছিনতাইয়ের শিকারও হতে হয়েছে অনেককে।

তিনি বলেন, এ অবস্থা থেকে উত্তরণে সিটি করপোরেশনের সহায়তায় সবুজায়ন কর্মসূচীর আওতায় আমরা এলাকাটি সংস্কারের উদ্যোগ নিই। তাতে দৃষ্টিনন্দন ফুলের বাগান এবং পথচারীদের হাঁটার জন্য ওয়েকওয়ে নির্মাণ করি। এছাড়াও পুরো এলাকাটি আলোকায়নের ব্যবস্থা করি।

‘চট্টগ্রাম শহরকে ক্লিন সিটি ও গ্রিন সিটিতে পরিণত করতে চসিক মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন  যে উদ্যোগ নিয়েছেন, তা পূরণে আমরা চসিকের পাশে থাকতে চাই। তাদের সহায়তা পেলে নগরের অন্যান্য এলাকাও আমরা এভাবে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করে ফুলের বাগানে পরিণত করবো।’ - যোগ করেন সুমন বসাক।

সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন বাংলানিউজকে বলেন, একটি পরিচ্ছন্ন এবং সবুজ নগর হিসেবে চট্টগ্রামকে গড়ে তোলা চসিকের একার পক্ষে সম্ভব নয়। প্রতিষ্ঠান এবং ব্যক্তি পর্যায়েও সবাইকে ভূমিকা রাখতে হবে।

তিনি বলেন, এ ক্ষেত্রে নগরকে সবুজায়ন করতে গ্রিড এ ওয়ান ইঞ্জিনিয়ারিং যে উদ্যোগ নিয়েছে তা সত্যিই প্রশংসনীয়। সিটি করপোরেশনের পক্ষ থেকে তাদের আন্তরিক ধন্যবাদ জানাই।

বাংলাদেশ সময়: ২০৩০ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১০, ২০১৮
এমআর/টিসি

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   চট্টগ্রাম
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14