ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৫ আষাঢ় ১৪২৭, ০৯ জুলাই ২০২০, ১৭ জিলকদ ১৪৪১

চট্টগ্রাম প্রতিদিন

উচ্চশিক্ষায় সিভিক কালচার প্রতিষ্ঠা করতে চায় সিআইইউ

নিউজ ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৮-০৯-১১ ১০:০৭:৩২ পিএম
উচ্চশিক্ষায় সিভিক কালচার প্রতিষ্ঠা করতে চায় সিআইইউ বক্তব্য দেন উপাচার্য প্রফেসর ড. মাহফুজুল হক চৌধুরী।

চট্টগ্রাম: শিক্ষার গুণগত মানোন্নয়নে চিটাগং ইন্ডিপেন্ডেন্ট ইউনিভার্সিটি (সিআইইউকে) নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন উপাচার্য প্রফেসর ড. মাহফুজুল হক চৌধুরী।

তিনি বলেছেন, উচ্চশিক্ষায় গতানুগতিক ধারা পরিবর্তনের সময় এসে গেছে। আমরা শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের কাছে এমন বিশ্বমানের শিক্ষা ছড়িয়ে দিতে চাই, যেখানে আস্থার পাশাপাশি সিআইইউ সবার পরিবারের সদস্য হয়ে এগিয়ে যাবে।

সম্প্রতি নগরের জামালখানে সিআইইউ ক্যাম্পাসের অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠিত বার্ষিক পারস্পরিক মতবিনিময় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন উপাচার্য প্রফেসর ড. মাহফুজুল হক চৌধুরী।

সিআইইউর সেন্টার ফর এক্সিলেন্স ইন টিচিং অ্যান্ড লার্নিং (সিইটিএল) এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

বৈঠকে প্রফেসর ড. মাহফুজুল হক চৌধুরী সিআইইউকে একটি পরিবার উল্লেখ করে বলেন, দক্ষ লোকবল নিয়োগ ও সহায়ক পরিবেশ সৃষ্টির মাধ্যমে উচ্চশিক্ষার চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় কাজ করে যাচ্ছে এ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান।

তিনি আরও বলেন, হাতে নেওয়া পরিকল্পনাগুলো বাস্তবায়িত হলে আগামি দুই বছর পর এখানে বদলে যাবে শিক্ষার পুরোনো চেহারা। তাই বেশি বেশি গবেষণামূলক কার্যক্রমের দিকে এগিয়ে যেতে হবে শিক্ষকদের। দক্ষ জনশক্তি হয়ে গড়ে উঠতে হবে শিক্ষার্থীদেরও।

সিআইইউতে সিভিক কালচার প্রতিষ্ঠা করার কথা তুলে ধরে দেশ বরেণ্য শিক্ষাবিদ প্রফেসর ড. মাহফুজুল হক চৌধুরী বলেন, আমাদের বেশি করে ইতিবাচক ভাবনায় ডুবে থাকতে হবে। একটি ভালো মানের বিশ্ববিদ্যালয় গড়ে উঠলে তার সুফল সবাই পাবে।

অ্যাসোসিয়েট প্রফেসর ড. আসিফ ইকবালের উপস্থাপনায় সিআইইউতে প্রথম বারের মতো আয়োজিত বার্ষিক পারস্পরিক মতবিনিময় অনুষ্ঠানে সিনিয়র শিক্ষকদের মধ্যে বক্তব্য দেন স্কুল অব সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ডিন অধ্যাপক মোহাম্মদ রেজাউল হক খান, বিশ্ববিদ্যালয়ের স্কুল অব লিবারেল আর্টস অ্যান্ড সোশ্যাল সায়েন্সের ডিন প্রফেসর কাজী মোস্তাইন বিল্লাহ, বিজনেস স্কুলের ডিন ড. মোহাম্মদ নাঈম আবদুল্লাহ, প্রক্টর প্রফেসর ড. নুরুল আবসার, বিজনেস স্কুলের উপদেষ্টা প্রফেসর ড. আইয়ুব ইসলাম প্রমুখ।

উপস্থিত ছিলেন পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক সরকার কামরুল মামুন, ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার আনজুমান বানু লিমা, ফিন্যান্স অ্যান্ড অ্যাকাউন্টস শাখার ভারপ্রাপ্ত পরিচালক সালমা বেগম (এফসিএ), সিআইটিএস শাখার উপ-পরিচালক মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরী, অ্যাডমিন শাখার উপ-পরিচালক কুমার দোয়েল দে, লাইব্রেরিয়ান ড. মো. জিল্লুর রহমান প্রমুখ।

বাংলাদেশ সময়: ১৭০৫ ঘণ্টা, নভেম্বর ০৯, ২০১৮
এমআর/টিসি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa