[x]
[x]
ঢাকা, বুধবার, ৮ কার্তিক ১৪২৫, ২৪ অক্টোবর ২০১৮
bangla news

'পাহাড়ি বাহিনী' পরিচয়ে ইউপি সদস্য অপহরণ

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৮-০৮-১২ ২:০২:৫৯ পিএম
মোজাফফর আহমেদ/ফাইল ছবি

মোজাফফর আহমেদ/ফাইল ছবি

চট্টগ্রাম: চট্টগ্রামের লোহাগাড়া উপজেলার পুটিবিলা ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) এক সদস্যকে নিজ বাড়ি থেকে অপহরণ করে নিয়ে গেছে 'পাহাড়ি' সশস্ত্র বাহিনী। অপহরণের পর মুক্তিপণ দাবি করেছে বলে অভিযোগ তার পরিবারের।

অপহরণের শিকার মোজাফফর আহমেদ (৫৫) পুটিবিলা ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডের সদস্য।

শনিবার (১১ আগস্ট) দিবাগত রাতে তাকে অপহরণ করা হয়েছে বলে বাংলানিউজকে জানান মোজাফফর আহমদের ছোট ভাই শফিক আহমেদ।

তিনি বলেন, 'প্রায় ৪০ জনের একটি সশস্ত্র 'পাহাড়ি বাহিনী' আমাদের বাড়িতে এসে আমার ভাই মোজাফফর আহমেদকে অপহরণ করে নিয়ে গেছে। এ সময় তারা বাড়িতে থাকা ৩ ভরি স্বর্ণালংকার ও নগদ ৫৭ হাজার টাকা নিয়ে যায়।'

শফিক আহমেদ বলেন, 'আমার ভাইকে নিয়ে যাওয়ার পর রোববার ভোরে তার মোবাইল নাম্বার থেকে অপহরণকারীরা ৫০ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে। সকালে আবার কল দিয়ে ৩০ লাখ টাকা দাবি করে। সর্বশেষ রোববার বিকেলে ১৫ লাখ টাকা দাবি করে তারা। এ মুক্তিপণের টাকা না দিলে ভাইকে মেরে ফেলার হুমকি দিয়েছে।'

তিনি বলেন, 'অপহরণকারীদের ৫ থেকে ৬ জনের মুখে কাপড় বাধা ছিল। যাদের মুখ খোলা ছিল তারা সবাই উপজাতি।'

পুটিবিলা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. ইউনুস বাংলানিউজকে বলেন, '৬ নং ওয়ার্ডের মেম্বর মোজাফফর আহমেদকে অপহরণ করেছে পাহাড়ি সন্ত্রাসীরা। পরে তার পরিবারের কাছে মুক্তিপণ দাবি করেছে। পুলিশকে বিষয়টি জানানো হয়েছে।'

এদিকে অপহরণের একদিন পার হয়ে গেলে এখনও তাকে উদ্ধার করতে পারেনি পুলিশ। 

সাতকানিয়া সার্কেলের অতিরিক্ত পু্লিশ সুপার হাসানুজ্জামান মোল্লা বাংলানিউজকে বলেন, 'পুটিবিলা এলাকায় মোজাফফর নামে এক ইউনিয়ন পরিষদ সদস্যকে অপহরণ করেছে বলে শুনেছি। তাকে উদ্ধারের চেষ্টা চলছে।'

অপহৃত ইউপি সদস্য মোজাফফরের বাড়ি পুটিবিলা ইউনিয়নের শেষপ্রান্তে। তার বাড়ি থেকে অল্প দূরত্বে বান্দরবানের পাহাড় রয়েছে।

রোববার বিকেলের পর থেকে অপহরণকারীরা মুক্তিপণ চেয়ে আর কোনো কল দেয়নি বা তাদের সঙ্গে যোগাযোগ হয়নি বলে জানান শফিক আহমেদ।

বাংলাদেশ সময়: ২৩২৬ ঘণ্টা, আগস্ট ১২, ২০১৮
এসকে/টিসি

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache