ঢাকা, শুক্রবার, ৭ আষাঢ় ১৪২৬, ২১ জুন ২০১৯
bangla news

মানবাধিকার আন্দোলনে অর্থ মুখ্য নয়, চাই সদিচ্ছা

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৮-০৬-২৭ ১২:১১:২১ পিএম
সভায় বক্তব্য রাখেন মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন। ছবি: বাংলানিউজ

সভায় বক্তব্য রাখেন মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন। ছবি: বাংলানিউজ

চট্টগ্রাম: মানবাধিকার আন্দোলনে অর্থ মুখ্য নয় দরকার সদিচ্ছা, আন্তরিকতা বলে মন্তব্য করেছেন সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন।

বুধবার (২৭ জুন) রাতে চিটাগাং ক্লাবে বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন বৃহত্তর চট্টগ্রাম অঞ্চল শাখা আয়োজিত ঈদ পুনর্মিলনী ও সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ মন্তব্য করেন।

মেয়র বলেন, দেশে সব ক্ষেত্রে ভালো মন্দ দুটি আছে। কোনো ক্ষেত্রে ভালোর পাল্লা ভারী, কোথাও মন্দের। কোনো কোনো মানবাধিকার সংগঠনের কারণে মানবাধিকার লঙ্ঘিত হয়। আমিনুল হক বাবু মানবাধিকার সংগঠনের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করেছেন। তাদের কার্যক্রমে অনেক শিশু-নারী উপকৃত হয়েছে, সুস্থ স্বাভাবিক জীবনে ফিরে এসেছে। এগুলো বড় দৃষ্টান্ত।

বিশেষ অতিথি ছিলেন দৈনিক বীর চট্টগ্রাম মঞ্চের সম্পাদক সৈয়দ উমর ফারুক।

প্রধান অালোচক ছিলেন চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক বি. জেনারেল মো. জালাল উদ্দিন।

তিনি বলেন, মানবাধিকার লিখিত কাগজ বা বুলি নয়। এটি নিরন্তর চর্চার বিষয়। মানবাধিকার আন্দোলন শুধু বক্তৃতা, পোস্টার, ফেসবুকের পোস্ট নয়। এটি মনেপ্রাণে উপলব্ধির বিষয়। এর জন্য প্রধান কাজ আত্ম সমালোচনা, আত্ম পরিশুদ্ধি ও নাগরিক দায়িত্ব পালন করা। মানবাধিকার কর্মীরা সাধারণ নন, তারা সাহসী, উদ্যমী। 

চমেক পরিচালক বলেন, সমাজের অংশ এ হাসপাতাল। তাই সামাজিক অবক্ষয়ের প্রভাব হাসপাতালের ওপর পড়ছে। ৫০০ শয্যার হাসপাতালে তিন হাজার রোগীকে চিকিৎসাসেবা দিতে হচ্ছে। আমি কেন সুন্দর বিছানা, পরিষ্কার মেঝে দিতে পারি না এটি আমার ব্যর্থতা। তবে আমি আশাকরি ৫০০ শয্যার ভবন, ১০০ শয্যার বার্ন ইউনিট হবে। চমেকে বিশ্বমানের পেডিয়াট্রিক কার্ডিয়াক সার্জারি করার জন্য প্রধানমন্ত্রী আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। একটি শিশু হাসপাতাল হবে চট্টগ্রামে। ক্যান্সার রোগীদের জন্য রেডিওথেরাপি মেশিন কোরবানির আগে চালু হবে।

সংবর্ধিত অতিথি ছিলেন বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কমের ব্যুরো প্রধান তপন চক্রবর্তী এবং সি প্লাস'র প্রধান সম্পাদক আলমগীর অপু।

তপন চক্রবর্তী বলেন, শেকলবন্দি শিশু মাধবীকে নিয়ে বাংলানিউজ প্রতিবেদন প্রকাশের পর মানবাধিকার সংগঠক আমিনুল হক বাবু তাকে মুক্ত করে চিকিৎসার ব্যবস্থা করেন। সেই পরিবারটিকে নতুন রিকশা দিয়ে পুনর্বাসিত করেন। এরপর বিলকিসকে শেকলমুক্ত করে স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে আনেন। এসব ঘটনা মানবাধিকার সংগঠন সম্পর্কে আমার ধারণা পাল্টে দিয়েছে।

আলমগীর অপু বলেন, মানবাধিকার বলতে যা বোঝায় আমিনুল হক বাবু সেই কাজগুলো করছেন। 

কমিশনের বৃহত্তর চট্টগ্রাম আঞ্চলের সভাপতি আমিনুল হক বাবুর সভাপতিত্বে শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন সংগঠনের নির্বাহী সভাপতি আল সাবেত দোভাষ সাগর, সহ-সভাপতি মনজুরুল হক, সাধারণ সম্পাদক আসহাবুর রহমান, আসাদুজ্জামান খান, মশিউর রহমান, মো. বখতেয়ার উদ্দিন, চৌধুরী কেএম রিয়াদ, মঈনুদ্দিন কাদের লাভলু,সাংবাদিক গোলাম সরওয়ার, হিমাদ্রী রাহা, এহসানুল হক, রিগান আচার্য, আকাশ প্রমুখ।

ইপিজেড থানা শাখার সাধারণ সম্পাদক মো. নাসির উদ্দিন জানান, আমরা কমিশনের উদ্যোগে ৪৩ জনের চোখে লেন্স লাগিয়ে দিয়েছি। বিলকিস নামের এক তরুণীকে শেকলমুক্ত করেছি। তিনি ২ বছর শেকলবন্দি ছিলেন। 

অনুষ্ঠানে মানবাধিকার সুরক্ষায় অবদান রাখায়
সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীনের হাতে সম্মাননা স্মারক তুলে দেন আমিনুল হক বাবু। 

চমেক পরিচালক বি. জেনারেল মো. জালাল উদ্দিন, বাংলানিউজের ব্যুরো প্রধান তপন চক্রবর্তী এবং সি প্লাসের প্রধান সম্পাদক আলমগীর অপু, অ্যাডভোকেট সাবরিনা, আসাদুর রহমান, মনজুরুল হক, তানভীর শাহরিয়ার রিমন, ইঞ্জিনিয়ার ইমরান, মহসিন ভূঁইয়া, মাসুদ পারভেজ, এমদাদ চৌধুরী, শেখ ওয়ালিদ হাসান, সুদর্শন দাশ, রিগ্যান আচার্য, মশিউল আলম, হাজি চান্দু মিয়া, তানজিদ কামরান, মো. নাসির উদ্দিনের হাতে সম্মাননা স্মারক তুলে দেন মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন।

বাংলাদেশ সময়: ২২০৭ ঘণ্টা, জুন ২৭, ২০১৮
এআর/টিসি

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2018-06-27 12:11:21