[x]
[x]
ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৫ আশ্বিন ১৪২৫, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮
bangla news

উন্নয়নের দায়িত্ব প্রধানমন্ত্রী নিয়েছেন: নাছির

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৮-০৩-১৩ ১০:২৭:১৩ এএম
চসিকের ডোর টু ডোর কার্যক্রমের জন্য মেয়রের হাতে ২০টি রিকশা ভ্যান তুলে দেন লায়ন্স ক্লাব ইন্টারন্যাশনাল জেলা-৩১৫ বি-৪ এর নেতারা

চসিকের ডোর টু ডোর কার্যক্রমের জন্য মেয়রের হাতে ২০টি রিকশা ভ্যান তুলে দেন লায়ন্স ক্লাব ইন্টারন্যাশনাল জেলা-৩১৫ বি-৪ এর নেতারা

চট্টগ্রাম: চট্টগ্রামের উন্নয়নের দায়িত্ব প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নিয়েছেন উল্লেখ করে মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেছেন, প্রধানমন্ত্রীর হাতকে শক্তিশালী করতে জনগণ আমাকে মেয়র পদে নির্বাচিত করেছেন। মেয়রের সেবাধর্মী দায়িত্ব পালনের ক্ষেত্রে কোনো মহল ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে উন্নয়নের চাকাকে বাধাগ্রস্ত করতে চাইলে চট্টগ্রামবাসী ঐক্যবদ্ধভাবে তা প্রতিহত করবে।

মেয়র বলেন, চট্টগ্রামের উন্নয়ন মানে দেশের উন্নয়ন। চট্টগ্রাম বন্দরনগরী ও বাণিজ্যিক নগরী। চট্টগ্রাম বন্দর ব্যবসা-বাণিজ্য এবং আমদানি রপ্তানির ক্ষেত্রে প্রধান ভূমিকা পালন করে যাচ্ছে।  

মঙ্গলবার (১৩ মার্চ) লায়ন্স ক্লাব ইন্টারন্যাশনাল জেলা-৩১৫ বি-৪ চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের (চসিক) ডোর টু ডোর বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় ২০টি ভ্যানগাড়ি হস্তান্তর উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে মেয়র এসব কথা বলেন।

জাকির হোসেন সড়কের লায়ন্স চক্ষু হাসপাতাল প্রাঙ্গণে আয়োজিত অনুষ্ঠানে লায়ন্স ক্লাব ইন্টারন্যাশনাল জেলা-৩১৫ বি-৪ এর গভর্নর, ভাইস জেলা গভর্নর ও সাবেক গভর্নররা মেয়রের কাছে ভ্যানগাড়িগুলো হস্তান্তর করেন।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ক্লাবের গভর্নর মনজুর আলম মনজু। এ সময় সাবেক জেলা গভর্নর লায়ন শাহ আলম বাবুল, ভাইস জেলা গভর্নর লায়ন নাসির উদ্দিন চৌধুরী, লায়ন কামরুন নাহার মালেক, সাবেক জেলা গভর্নর এমএ মালেক, লায়ন রফিক আহমদ, লায়ন নাজমুল হক চৌধুরী, কারেন্ট সেক্রেটারি জাফর উল্লাহ চৌধুরী, কেবিনেট সেক্রেটারি জাহিদুল ইসলাম চৌধুরী, ভ্যানগাড়ি হস্তান্তর কমিটির চেয়ারম্যান গোলাম মহিউদ্দিন বাবু, সদস্যসচিব হুমায়ুন কবির, জামালখান ওয়ার্ডের কাউন্সিলর শৈবাল দাশ সুমন, যুবলীগের সাবেক কেন্দ্রীয় নেতা আবদুল মান্নান ফেরদৌস প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

নাগরিকসেবায় যারাই সহযোগিতায় এগিয়ে আসবে তাদের চসিক আন্তরিকভাবে স্বাগত জানাবে জানিয়ে মেয়র বলেন, দুর্নীতি, স্বজনপ্রীতি, আত্মীয়করণ বা দলীয়করণ নীতিতে আমি বিশ্বাসী নই। নিজে দুর্নীতি করি না এবং কাউকে দুর্নীতি করার জন্য আশ্রয়-প্রশ্রয় দিতে পারি না। সে কারণে চসিককে দুর্নীতিমুক্ত, স্বচ্ছ ও জবাবদিহির একটি আদর্শ প্রতিষ্ঠানে পরিণত করার প্রয়াস চালিয়ে যাচ্ছি। আশা করি, নগরবাসী ঐক্যবদ্ধভাবে দুর্নীতির বিরুদ্ধে সোচ্চার হবে। নগরীকে পরিবেশবান্ধব বিশ্বমানের আধুনিক নগরী হিসেবে গড়ে তোলার কর্মপরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। সব প্রতিকূলতা ও ষড়যন্ত্র অতিক্রম করে নাগরিকসেবা শতভাগ নিশ্চিত করা হবে। 

মেয়র আশা করেন, সবার সম্মিলিত প্রচেষ্টায় চট্টগ্রাম নগরীকে পরিবেশসম্মত, বাসপোযোগী, আধুনিক ও বিশ্বমানের নগরী হিসেবে গড়ে তোলা সম্ভব হবে।

বাংলাদেশ সময়: ২০১৫ ঘণ্টা, মার্চ ১২, ২০১৮

এআর/টিসি

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa