ঢাকা, মঙ্গলবার, ১১ আষাঢ় ১৪২৬, ২৫ জুন ২০১৯
bangla news

মেয়রকে নিজস্ব গোয়েন্দা টিম গঠনের পরামর্শ

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৭-০৭-৩১ ৪:২২:৪৯ এএম
সুধী সমাবেশে বক্তব্য রাখছেন বক্তারা

সুধী সমাবেশে বক্তব্য রাখছেন বক্তারা

চট্টগ্রাম: সঠিক তথ্য সংগ্রহের জন্য মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীনকে নিজস্ব গোয়েন্দা টিম গঠনের পরামর্শ দিয়েছেন চট্টগ্রাম মঞ্চ সম্পাদক সৈয়দ উমর ফারুক।

সোমবার (৩১ জুলাই) দুপুরে শহীদ প্রকৌশলী শামসুজ্জামান ও নুর হোসেন মিলনায়তনে (আইইবি, চট্টগ্রাম) সুধী সমাবেশে মেয়রকে এ পরামর্শ দেন তিনি। চসিকের ২০১৬-১৭ অর্থবছরের উন্নয়ন কার্যক্রম অবহিতকরণের লক্ষ্যে এ সমাবেশের আয়োজন করা হয়।

মেয়রের একান্ত সচিব মঞ্জুরুল ইসলামের সঞ্চালনায় স্বাগত বক্তব্য দেন চসিকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সামসুদ্দোহা।

দৈনিক চট্টগ্রাম মঞ্চ সম্পাদক সৈয়দ উমর ফারুক বলেন, মেয়র রাতদিন পরিশ্রম করছেন। উদার দৃষ্টিভঙ্গি আপনার। কিন্তু যে অগ্রগতির চিত্র দেখার কথা তা দেখছি না। স্ক্যাভেটার দু’ঘণ্টা কাজ করে আট ঘণ্টার বিল তোলে। ডোর টু ডোর বর্জ্য সংগ্রহে অতীতে কোনো মেয়র সাহস করেননি। সেবক নিয়োগে বড় ধরনের লেনদেন হয়েছে। শিক্ষা বিভাগ হোঁচট খাচ্ছে, অসন্তোষ আছে। স্বাস্থ্য বিভাগে সুদৃষ্টি দিতে হবে। নাশকতার আসামিরা ঠিকাদারি পাচ্ছে। প্রকৌশল বিভাগে কাজের গতি স্থবির হয়ে পড়ছে।

তিনি বলেন, ২০ বছর মেয়র দেখতে চাই। নির্বাচনের আগে যারা বিরোধী ছিল তারা আজ শুভাকাঙ্ক্ষী। আপনি মিথ্যা তথ্য পাচ্ছেন, ভুল তথ্য পাচ্ছেন। আপনি নিজস্ব গোয়েন্দা টিম তৈরি করুন।

চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের (সিইউজে) সভাপতি রিয়াজ হায়দার চৌধুরী বলেন, প্রদর্শিত তথ্যচিত্রে বাহুল্য আছে। চসিকের কাজগুলো ইতিবাচকভাবে নগরবাসীর কাছে পৌঁছাচ্ছে না। আমার মনে হয়, খোদ সিটি করপোরেশনের বিভিন্ন বিভাগে প্রতিবন্ধকতার দেয়াল আছে। দুই বছরে নগরবাসীর প্রত্যাশা খুব বেশি পূরণ হয়নি। ব্যক্তিকানা বা দলকানা হয়ে মেয়রের অনেকে সমালোচনা করছেন। এমন শহরে বাস করি, সাধ অনেক সাধ্য সীমিত।

চিটাগাং টিভি জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি আলী আব্বাস বলেন, দেশের সবচেয়ে বড় সিটি করপোরেশনের মেয়র দক্ষ ক্রীড়া সংগঠক। কঠোরহস্তে তিনি চসিকের কর্মকর্তা, কর্মচারীদের পরিচালনা করতে পারেন।

চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের যুগ্ম সম্পাদক চৌধুরী ফরিদ বলেন, এক বছরে মেয়র অনেক কাজ করেছেন। কিন্তু তা ম্লান হয়ে গেছে জলাবদ্ধতার কারণে। বিলবোর্ড উচ্ছেদে চোখ রাঙানির ধার ধারেননি। এখন যেকোনো মূল্যে খাল পুনরুদ্ধার করতে হবে। যানজটমুক্ত নগরী গড়তে বিমানবন্দর সড়কসহ সব সড়কগুলো রিকশামুক্ত করতে হবে।

বিএমএ সভাপতি ডা. মুজিবুল হক খান বলেন, মেয়র সততার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করছেন। সততার ওপর কোনো পাওয়ার থাকে না। জলাবদ্ধতার কথা উঠছে। মেয়র কারণ চিহ্নিত করেছেন। আশাকরি সঠিক সমাধান দিতে পারবেন।

জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মো. সাহাবউদ্দিন বলেন, মেয়রের যে গতি কাউন্সিলর ও কর্মকর্তাদের গতি সে তুলনায় কম। জলাবদ্ধতা নিরসনে দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা নিতে হবে। আপনি মুক্তিযোদ্ধাদের বাড়ি নির্মাণ করে দেশে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন।

মহানগর মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মোজাফ্ফর আহমদ বলেন, মেয়র নাছির ফ্রিজ থেকে আসেননি। তিনি মাঠের মানুষ। প্রকৌশল বিভাগ সম্পর্কে সচেতন থাকতে হবে।

চসিকের নতুন অ্যাপস উদ্বোধন করলেন মেয়র নাছির

বাংলাদেশ সময়: ১৪২২ ঘণ্টা, জুলাই ৩১, ২০১৭

এআর/আইএসএ/টিসি

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   মেয়র
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2017-07-31 04:22:49