ঢাকা, সোমবার, ৯ বৈশাখ ১৪২৬, ২২ এপ্রিল ২০১৯
bangla news

স্বামী-ননদ, ভাগ্নে-ভাগ্নি নিয়ে মাদক বেচে রহিমা

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৭-০২-১৬ ১০:৪২:২৭ এএম
মাদক বিক্রেতা রহিমা

মাদক বিক্রেতা রহিমা

চট্টগ্রাম: রহিমা বেগমের (৩৫) পুরো পরিবার মাদক ব্যবসার সঙ্গে জড়িত।  গত এক বছরে চারবার গ্রেফতার করে জেলে যায় রহিমা।  কিন্তু জামিনে বেরিয়ে এসে ফিরে যায় মাদক ব্যবসায়। 

বৃহস্পতিবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) রাত পৌনে ৮টার দিকে পঞ্চমবারের মতো গ্রেফতার হয়েছে রহিমা।  তার কাছ থেকে ২ কেজি গাঁজা ও ১ হাজার ইয়াবা উদ্ধার করেছে বায়েজিদ বোস্তামি থানা পুলিশ। 

রহিমা বেগম বায়েজিদের রউফাবাদ এলাকার স্টার শিপ গলির সেলিম প্রকাশ খোকনের স্ত্রী।  ওই গলিতে সেলিমের একটি ফার্নিচারের দোকান আছে।  তবে দোকানটি সবসময় বন্ধ থাকে।  ওই দোকানের পেছনে সেলিম ও রহিমা মিলে গাঁজা-ইয়াবা বিক্রির আসর বসায় বলে জানান বায়েজিদ বোস্তামি থানার ওসি মোহাম্মদ মহসিন।

গোপন সংবাদের ভিত্তিতে দোকানে অভিযান চালানোর জন্য ‍পুলিশ গেলে সেলিম পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়।  তবে রহিমা গাঁজা ও ইয়াবাসহ ধরা পড়ে যায় বলে ওসি জানান।

বায়েজিদের ওসি মহসিন আরও জানান, রহিমার দুই ননদ হাসিনা এবং খালেদা।  হাসিনা মাদকের মামলায় দুই বছরের দন্ডপ্রাপ্ত আসামি হিসেবে কারাগারে আছে।  হাসিনার দুই মেয়ে শিল্পী ও নাজমা এখন মাদক বিক্রির সঙ্গে জড়িত।

খালেদা ও তার স্বামী ফরিদ এবং দুই ছেলে রাসেল ও মানিকও একই এলাকায় মাদক বিক্রি করে। 

‘এই পরিবারে কর্মচারির মতো ১০-১২ বছরের বেশ কয়েকজন শিশু আছে।  তাদের মাধ্যমে ইয়াবা ও গাঁজা বিক্রি করা হয়।  পুলিশ যদিও তাদের গ্রেফতার করে শিশু হিসেবে তারা বিশেষ আইনগত সুবিধা পায়।  কিন্তু যারা মাদক বিক্রির মূল হোতা তারা অনেক সময় আড়ালে থেকে যায়। ’ বলেন ওসি

এদিকে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে ১ হাজার পিস ইয়াবাসহ আরও একজনকে আটক করা হয়েছে।  নগরীর অক্সিজেন মোড়ের নূতনপাড়া এলাকার মূল সড়কের সামনে থেকে আব্দুস শুক্কুর নামে ওই মাদক বিক্রেতাকে আটক করা হয়।  শুক্কুরের বাড়ি কক্সবাজার সদর এলাকায় বলে জানান বায়েজিদ বোস্তামি থানার ওসি মোহাম্মদ মহসিন।

বাংলাদেশ সময়: ২১৩৪ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১৬, ২০১৭

আরডিজি/টিসি

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14