bangla news

জেলা পরিবহন মালিক গ্রুপের বিরুদ্ধে নৈরাজ্যের অভিযোগ

528 |
আপডেট: ২০১৪-০৯-২৯ ৪:০৯:০০ এএম
ছবি: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ছবি: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

গণপরিবহনে নৈরাজ্য, বিশৃঙ্খলা, চাঁদাবাজি, অবৈধ সংগঠনের মাধ্যমে চট্টগ্রাম নগরীর যাত্রীদের জিম্মি করে রেখেছে চট্টগ্রাম জেলা সড়ক পরিবহন মালিক গ্রুপ। বন্দর নগরী চট্টগ্রামের পরিবহন মালিকদের সংগঠনের বিরুদ্ধে এই অভিযোগ নগরীর অপর পরিবহন সংগঠন চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পরিবহন মালিক গ্রুপের।

চট্টগ্রাম: গণপরিবহনে নৈরাজ্য, বিশৃঙ্খলা, চাঁদাবাজি, অবৈধ সংগঠনের মাধ্যমে চট্টগ্রাম নগরীর যাত্রীদের জিম্মি করে রেখেছে চট্টগ্রাম জেলা সড়ক পরিবহন মালিক গ্রুপ।

বন্দর নগরী চট্টগ্রামের পরিবহন মালিকদের সংগঠনের বিরুদ্ধে এই অভিযোগ নগরীর অপর পরিবহন সংগঠন চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পরিবহন মালিক গ্রুপের।

সোমবার দুপুরে চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব অভিযোগ তুলে ধরেন সংগঠনের মহাসচিব বেলায়েত হোসেন।

নগরীর গণপরিবহনে নৈরাজ্য, বিশৃঙ্খলা, চাঁদাবাজি, অবৈধ সংগঠন পরিচালনা, রুট পারমিট ছাড়া গাড়ি চলাচল, এক রুটের গাড়ি অন্য রুটে, ইজি বাইক, পাওয়ার বাইকসহ বিভিন্ন বিষয়ে অবগত করতে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

লিখিত বক্তব্যে বেলায়েত হোসেন বলেন, প্রশাসনের উদাসীনতা আর সরকারের উদারতায় বিশৃঙ্খলা, নৈরাজ্য, চাঁদাবাজি, রুট পার্মিটের শর্ত ভঙ্গ করে নগরবাসীকে জিম্মি করে রেখেছে চট্টগ্রাম জেলা সড়ক পরিবহন মালিক গ্রুপ।

তিনি বলেন, সংগঠনটি নাম সর্বস্ব বিভিন্ন পরিবহন ও শ্রমিক সংগঠনের জন্ম দিয়েছে। এসব সংগঠনের মাধ্যমে নিয়মিত চাঁদাবাজি করছে। জিম্মি হয়ে পড়েছে যাত্রীরাও।

রুট পার্মিটের শর্ত লঙ্ঘন করার কারণেই নগরীতে যানজট তীব্র হচ্ছে জানিয়ে তিনি বলেন, শর্ত অনুযায়ী শুরু এবং শেষ প্রান্তে না যাওয়ার কারণে যানজট হচ্ছে। এছাড়া রুট পার্মিটধারী গাড়িগুলো গার্মেন্টস ও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে রিজার্ভ হিসেবে চলাচলের কারণে সাধারণ যাত্রীরা হয়রানি হচ্ছে।

এসব বিশৃঙ্খলা ও নৈরাজ্যের কারণেই পাঁচ শতাধিক গাড়ি মালিক নতুন এই সংগঠন গড়ে তুলেছেন উল্লেখ করে মহাসচিব নগরবাসীর স্বাভাবিক জীবন যাত্রা অব্যাহত রাখতে পরিবহন ব্যবস্থায় বিশৃঙ্খলা ও নৈরাজ্য সৃষ্টিকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থাসহ আট দফা দাবি তুলে ধরেন।

বাকি সাতদফা দাবি হলো-রেজিস্ট্রেশন বিহীন ও অবৈধ সংগঠনের কার্যক্রম বন্ধ, রুট পারমিট বিহীন ও এক রুটের গাড়ি অন্য রুট চলাচল বন্ধে নিয়মিত অভিযান এবং নির্দিষ্ট রুটের শুরু ও শেষ প্রান্ত পর্যন্ত গাড়ি চলাচল নিশ্চিতকরণ, ইজি বাইক-পাওয়ার বাইক বন্ধ, রিজার্ভ পারমিটধারী গাড়ির যাত্রী পরিবহন বন্ধ, শ্রমিক নির্যাতন বন্ধ এবং সড়ক থেকে ভ্যান ও হকার উচ্ছেদ করে গাড়ি চলাচলের ব্যবস্থা করা।

এসব দাবি বাস্তবায়নে নগর পুলিশের সহায়তা কামনা করেছেন সংগঠনের নেতারা। যানজট নিরসনে প্রশাসনের যে কোন উদ্যোগে সহায়তারও আশ্বাস দেওয়া হয় সংবাদ সম্মেলনে।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে সংগঠনের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ইকবাল মো.মুনসুরুল করিম, সহ-সভাপতি এম এ ওয়াহেদ দুলাল, যুগ্ম মহাসচিব আকরাম শেখ, আমরুল আনোয়ার, মো. সেলিম হোসেন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৪০৯ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২৯, ২০১৪

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2014-09-29 04:09:00