bangla news

কোরবানির বর্জ্য অপসারণে নিয়োজিত থাকবে তিন হাজার শ্রমিক

501 |
আপডেট: ২০১৪-০৯-২৮ ১০:০৮:০০ এএম
ছবি: ফাইল ফটো

ছবি: ফাইল ফটো

ঈদুল আযহায় কোরবানির বর্জ্য অপসারণে কাজ করবে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের তিন হাজার শ্রমিক। খোলা হবে নিয়ন্ত্রণ কক্ষ। গাড়ি ও অস্থায়ী কন্টেইনারের সংখ্যাও বৃদ্ধি করা হয়েছে। এছাড়া নগরীকে চারভাগে বিভক্ত করে সার্বক্ষণিক বর্জ্য অপসারণ কার্যক্রম নজরদারি করবে ভিজিল্যান্স টিম।

চট্টগ্রাম: ঈদুল আযহায় কোরবানির বর্জ্য অপসারণে কাজ করবে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের তিন হাজার শ্রমিক। খোলা হবে নিয়ন্ত্রণ কক্ষ। গাড়ি ও অস্থায়ী কন্টেইনারের সংখ্যাও বৃদ্ধি করা হয়েছে। এছাড়া নগরীকে চারভাগে বিভক্ত করে সার্বক্ষণিক বর্জ্য অপসারণ কার্যক্রম নজরদারি করবে ভিজিল্যান্স টিম।

ঈদের দিন সকাল ৯টা থেকেই বর্জ্য অপসারণ শুরু হবে। বিকাল ৫টার মধ্যে শেষ করা হবে বলে জানিয়েছেন চসিক কর্মকর্তারা।

রোববার চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের  বর্জ্য ব্যবস্থাপনা স্ট্যান্ডিং কমিটির সভায় এসব সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

সিটি  মেয়র এম মনজুর আলম বাংলানিউজকে বলেন,‘‘বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় চসিকের সুনাম রয়েছে। এ সুনাম অক্ষুন্ন রাখতে বিশেষ প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। অতিরিক্ত ৩০টি কন্টেইনার বসানো হবে। গাড়ির সংখ্যা ও শ্রমিক বাড়ানো হয়েছে। বর্জ্য যথাস্থানে ফেলতে কর্পোরেশনের পক্ষ থেকে ৪১টি ওয়ার্ডে প্রচারাভিযান চালানো হবে।’’

ঈদুল আযহায় নগরীকে পরিচ্ছন্ন রাখতে নগরবাসীর সহায়তা কামনা করেন তিনি।

সিটি করপোরেশন সুত্র জানায়, কোরবানির পশুর বর্জ্য অপসারণে নগরীর ৪১টি ওয়ার্ডকে ৪ ভাগ করে প্রস্তুতি নিয়েছে সিটি করপোরেশন। ১১ ওয়ার্ড নিয়ে উত্তর, ১০টি নিয়ে দক্ষিণ, পূর্ব ও পশ্চিম জোনে ১০টি করে মোট ৪১ ওয়ার্ডকে ভাগ করে দামপাড়ায় খোলা হবে কেন্দ্রীয় নিয়ন্ত্রণ কক্ষ। ৪টি জোনে বিবিরহাট, গোসাইলডাঙ্গা, দেওয়ান বাজার ও সরাইপাড়া ওয়ার্ড কার্যালয়ে ৪টি সাব কন্ট্রোল রুম খোলা হবে।

সিটি করপোরেশনের প্রধান পরিছন্ন কর্মকর্তা শফিকুল মান্নান ছিদ্দিকী বাংলানিউজকে বলেন,‘‘বর্জ্য অপসারণে করপোরেশনের দুই’শ গাড়ি ও ৩ হাজার শ্রমিক নিয়োজিত থাকবে। কোন শ্রমিক আহত হলে তাৎক্ষণিক তার চিকিৎসার জন্য কেন্দ্রীয় নিয়ন্ত্রণ কক্ষে একটি মেডিকেল টিম থাকবে। ঈদের দিন সকাল ৯ টা থেকে পরিচ্ছন্ন কাজ শুরু হবে। বিকাল ৫টার মধ্যে শেষ করা হবে।’’

এছাড়া পরিচ্ছন্নের জন্য করপোরেশনের পানির গাড়ি থাকবে। প্রাণী জবাইয়ের স্থানে ব্লিচিং পাউডার ছিটানোর জন্য প্রতিটি ওয়ার্ডে ১‘শ কেজি করে ব্লিচিং পাওডার বিতরণ করা হবে বলে জানান শফিকুল মান্নান ছিদ্দিকী।

প্রতিটি জোনে বর্জ্য অপসারণ কার্যক্রম তদারকির জন্য একজনকে আহবায়ক করে কমিটি করা হয়েছে। উত্তর জোনের আহবায়ক কাউন্সিলর মোহাম্মদ আজম, দক্ষিণ জোনের আহবায়ক কাউন্সিলর জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরী, পূর্ব জোনের আহবায়ক কাউন্সিলর মোহাম্মদ ইসমাইল এবং পশ্চিম জোনের আহবায়ক কাউন্সিলর মোরশেদ আক্তার চৌধুরী।

বর্জ্য অপসারন সংক্রান্ত যে কোন বিষয়ে তাৎক্ষণিক যোগাযোগের জন্য কেন্দ্রীয় নিয়ন্ত্রণ কক্ষের নাম্বার ৬৩৩৬৪৯, ৬৩০৭৩৯, ০১৭১২-২৫২৬১৫, ০১৮৪২-১৯৯১৯৯।

উত্তর জোনের অধীনে ১১টি ওয়ার্ড- ১নং দক্ষিণ পাহাড়তলী, ২নং জালালাবাদ, ৩নং পাঁচলাইশ, ৪নং চান্দগাঁও, ৫নং মোহরা, ৬নং পূর্ব ষোলশহর, ৭নং পশ্চিম শোলকবহর, ৮নং শোলকবহর, ১৫নং বাগমনিরাম, ১৬নং চকবাজার ও ২১নং জামালখান ওয়ার্ড।

দক্ষিণ জোনে ১০টি ওয়ার্ড- ২৩নং উত্তর পাঠানটুলী, ২৭নং দক্ষিণ আগ্রাবাদ, ২৮নং পাঠানটুলী, ২৯নং পশ্চিম মাদারবাড়ি, ৩৬নং গোসাইলডাঙ্গা, ৩৭নং হালিশহর মুনির নগর, ৩৮নং দক্ষিণ মধ্যম হালিশহর, ৩৯নং দক্ষিণ হালিশহর, ৪০নং উত্তর পতেঙ্গা ও ৪১নং দক্ষিণ পতেঙ্গা ওয়ার্ড।

পূর্ব জোনে ১০টি ওয়ার্ড- ১৭নং পশ্চিম বাকলিয়া, ১৮নং পূর্ব বাকলিয়া, ১৯নং দক্ষিণ বাকলিয়া, ২০নং দেওয়ান বাজার, ৩০নং পূর্ব মাদারবাড়ি, ৩১নং আলকরণ, ৩২নং আন্দরকিল্লা, ৩৩নং ফিরিঙ্গী বাজার, ৩৪নং পাথরঘাটা ও ৩৫নং বক্সিরহাট ওয়ার্ড।

পশ্চিম জোনে ১০টি ওয়ার্ড- ৯নং উত্তর পাহাড়তলী, ১০নং উত্তর কাট্টলী, ১১নং দক্ষিণ কাট্টলী, ১২নং সরাইপাড়া, ১৩নং পাহাড়তলী, ১৪নং লালখান বাজার, ২২নং এনায়েত বাজার, ২৪নং উত্তর আগ্রাবাদ, ২৫নং রামপুর ও ২৬নং উত্তর হালিশহর ওয়ার্ড।

বাংলাদেশ সময়: ১৯৫৬ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২৮, ২০১৪

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2014-09-28 10:08:00