ঢাকা, মঙ্গলবার, ৮ আষাঢ় ১৪২৮, ২২ জুন ২০২১, ১১ জিলকদ ১৪৪২

চট্টগ্রাম প্রতিদিন

র‌্যাব পরিচয়ে অপহরণ চেষ্টা

সাবেক সেনা কর্মকর্তা কারাগারে

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮১৭ ঘণ্টা, মে ২৫, ২০১৪
সাবেক সেনা কর্মকর্তা কারাগারে ছবি: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

চট্টগ্রাম: র‌্যাব পরিচয়ে ব্যবসায়ীকে তুলে নেয়ার চেষ্টার ঘটনায় আটক সাবেক সেনা কর্মকর্তা অবসরপ্রাপ্ত মেজর আরিফ আহমেদকে (৪৬) কারাগারে পাঠিয়েছেন চট্টগ্রামের একটি আদালত।

গ্রেপ্তারের ৭ দিন পর রোববার আরিফ আহমেদকে চট্টগ্রাম মহানগর হাকিম ফরিদ আলমের আদালতে হাজির করে পুলিশ।

এসময় তার পক্ষে আইনজীবীরা জামিনের আবেদন জানান।

অন্যদিকে অপহরণ মামলার বাদির পক্ষে আইনজীবী অ্যাডভোকেট ইফতেখার সাইমুল চৌধুরী জামিনের বিরোধিতা করেন। এছাড়া পুলিশের পক্ষ থেকে তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য রিমান্ডের আবেদন জানানো হবে বলে আদালতকে অবহিত করা হয়।

অ্যাডভোকেট ইফতেখার সাইমুল চৌধুরী বাংলানিউজকে বলেন, আসামীপক্ষের আইনজীবীরা আদালতে বলেছেন মেজর আরিফ মানসিক ভারসাম্যহীন। কিন্তু তারা চিকিৎসকের কোন প্রমাণপত্র দেখাতে পারেননি। আমরা বলেছি, মানসিক ভারসাম্যহীন মানুষের বাইরে থাকাটাও বিপদজনক। সেজন্য তাকে কারাগারে পাঠানো হোক। শুনানি শেষে আদালত আরিফকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন।
 
এর আগে গত ১৮ মে রাত পৌনে ১০টার দিকে নগরীর ডবলমুরিং থানার চৌমুহনী এলাকায় র‌্যাব পরিচয়ে গোলাম রাব্বানী মুন নামে ব্যবসায়ীকে অপহরণের চেষ্টা করে দুর্বৃত্তরা। তাকে সিলভার রংয়ের একটি প্রাইভেট কারে করে তুলে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে দুর্বৃত্তরা।

এসময় ওই ব্যবসায়ী চিৎকার করলে স্থানীয় লোকজন এগিয়ে আসে। প্রাইভেটকারে করে অন্যরা পালিয়ে গেলেও আরিফ আহমেদকে ধরে গণধোলাই দিয়ে পুলিশের কাছে সোপর্দ করা হয়।

আরিফ আহমদের বাসা নগরীর হালিশহর আবাসিক এলাকায়। আটকের পর আরিফ নিজেকে সেনা কর্মকর্তা বলে পরিচয় দেন।

অপহরণের চেষ্টার ঘটনায় ব্যবসায়ী গোলাম রাব্বানি মুন বাদি হয়ে ডবলমুরিং থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। মামলায় আরিফ আহমেদসহ ৫-৬ জনকে আসামী করা হয়েছে।

বাংলাদেশ সময়: ১৮১২ ঘণ্টা, মে ২৫, ২০১৪

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa