ঢাকা, সোমবার, ২ মাঘ ১৪২৮, ১৭ জানুয়ারি ২০২২, ১৩ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

চট্টগ্রাম প্রতিদিন

স্ট্রবেরী চাষে স্বাবলম্বী হওয়ার স্বপ্ন মিরসরাইয়ের জাহেদের

মু. রিগান উদ্দিন, উপজেলা করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১১৫২ ঘণ্টা, মার্চ ৫, ২০১৪
স্ট্রবেরী চাষে স্বাবলম্বী হওয়ার স্বপ্ন মিরসরাইয়ের জাহেদের ছবি: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

মিরসরাই: মিরসরাই ডিগ্রি কলেজের স্নাতক প্রথম বর্ষের ছাত্র মোহাম্মদ জাহেদ। পড়তে গিয়ে তার হাঠৎ মাথায় এল, শুধু পড়ালেখা করলে চলবেনা, পাশাপাশি কিছু একটা করা চাই।

প্রশিক্ষণ নিলেন স্ট্রবেরী চাষের, শুরু করলেন চাষ। এখন অনেকটা মিরসরাই উপজেলায় স্ট্রবেরী চাষের মডেল বলা যায় তাকে। সম্ভাবনাময় স্টবেরী চাষ করে স্বাবলম্বী হওয়ার স্বপ্ন দেখছেন শিক্ষার্থী জাহেদ।

চট্টগ্রাম শহরে একটি বেসরকারী প্রতিষ্ঠানে প্রশিক্ষণ নেন জাহেদ হোসেন ও তার বন্ধু চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যায়নরত শিক্ষার্থী আমজাদ হোসেন। এরপর বাড়ির পাশে ২৩ শতক জমি বর্গা নিয়ে স্ট্রবেরী চাষ শুরু করেন। প্রথমে তাকে এলাকার অনেকে এ ব্যাপারে নিরুৎসাহিত করলেও এখন তাকেই অনুসরণ করছেন। জাহেদ হোসেনর বাড়ি উপজেলার ১২ নম্বর খৈয়াছরা ইউনিয়নের পূর্ব খৈয়াছরা গ্রামে।

গত ৪ মার্চ বিকেলে তার চাষ করা স্ট্রবেরী জমিতে গিয়ে দেখা হয় তার সাথে। তখন তিনি স্ট্রবেরী গাছের পরিচর্যা করছিলেন।

জাহেদ জানায়, ২০১১ সালের মার্চে চট্টগ্রামের আগ্রাবাদে একটি বেসরকারী প্রতিষ্ঠানে স্ট্রবেরী চাষের উপর প্রথমে সাতদিন ও পরে তিনদিনের সংক্ষিপ্ত কোর্স করেন।  

পরবর্তীতে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. মনজুর ইসলামের কাছ থেকে আট দিনের বিশেষ প্রশিক্ষণ নেয়। এরপর চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া থেকে আড়াই’শ চারা নিয়ে প্রথমে ৬ শতক জমিতে স্ট্রবেরী চাষ শুরু করেন। পরের বছর রাজশাহী থেকে ৩ হাজার চারা নিয়ে বাড়ির পাশে ২৩ শতক জমিতে বানিজ্যিকভাবে স্ট্রবেরী চাষ করেন। ২৩ শতক জমিতে স্ট্রবেরী চাষ করতে তার এ পর্যন্ত খরচ হয়েছে দেড় লাখ টাকা।
Mirsarai_Stroberi
ইতোমধ্যে ১০ হাজার টাকার স্ট্রবেরী বিক্রি করেছেন। তিনি আশা করছেন আগামী ২ থেকে ৩ মাসে তিনি আরো সাড়ে তিন লাখ টাকার স্ট্রবেরী বিক্রি করতে পারবেন। তিনি আরো জানান, তার জমিতে ফেষ্টিবল, রাবি-৩ ও এওজি তিন জাতের স্ট্রবেরী চারা লাগানো হয়েছে। এগুলোর মধ্যে এওজি চট্টগ্রামে প্রথম চাষ করা হয়। এওজি উদ্ভাবন করা হয় ২০১৩ সালে প্রথম দিকে। দুইদিন পর পর স্ট্রবেরী তুলে চট্টগ্রাম খুলশী ও আগ্রাবাদে পাইকারিভাবে বিক্রি করেন।

মিরসরাইতে এর চাহিদা না থাকায় শহরে গিয়ে বিক্রি করতে হয়। এছাড়া মিরসরাইয়ে মায়া এগ্রো প্রোডাক্ট নামে একটি প্রতিষ্ঠানে স্ট্রবেরী বিক্রি করা হয়।

জাহেদ বলেন, মিরসরাইয়ের আবহাওয়া স্টেবেরী চাষের উপযোগী হওয়ায় তিনি আগামী বছর আরো প্রায় ১ শত ২০ শতক জমিতে চাষ করবেন। এছাড়া কিছুদিন পর সে চারা বিক্রি শুরু করবেন এবং স্থানীয় বেকার যুবকদের স্ট্রবেরী চাষে আগ্রহী যুবকদের প্রশিক্ষণ দেবেন। এখন স্ট্রবেরী চাষ করে সাবলম্ভী হওয়ার স্বপ্ন দেখছেন জাহেদ।

মিরসরাই উপজেলা উপ-সহাকারী কৃষি কর্মকর্তা মো. শামীম হোসেন বলেন, মিরসরাইয়ে স্ট্রবেরী চাষ হওয়ার কথা তিনি শুনেছেন। কৃষি অফিস থেকে জাহেদকে প্রয়োজনীয় সহযোগিতা দেওয়া হবে বলে তিনি জানান।

মিরসরাই উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা তবারক উল্লাহ চৌধুরী বায়েজীদ বলেন, স্ট্রবেরীতে এন্টি অক্সিজেন, ভিটামিন-এ, এবং ভিটামিন-সি প্রচুর পরিমানে থাকে। স্ট্রবেরী আর্সেনিক রোধ করে। বৃদ্ধদের সবল রাখতে সহায়তা করে।

বাংলাদেশ সময়: ১১৪০ঘণ্টা, মার্চ ০৫,২০১৪

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa