ঢাকা, রবিবার, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৬ মে ২০২৪, ১৭ জিলকদ ১৪৪৫

চট্টগ্রাম প্রতিদিন

বিজয়া দশমী আজ, দুর্গা ফিরবেন কৈলাসে

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৯২০ ঘণ্টা, অক্টোবর ২৪, ২০২৩
বিজয়া দশমী আজ, দুর্গা ফিরবেন কৈলাসে ছবি: বাংলানিউজ

চট্টগ্রাম: সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব দুর্গাপূজার বিজয়া দশমী আজ মঙ্গলবার (২৪ অক্টোবর)। দেবী দুর্গাকে প্রাণভরে দেখে নেওয়ার ক্ষণ।

ষষ্ঠী থেকে দশমী পর্যন্ত পাঁচদিনের মাতৃ আরাধনা শেষে অশ্রুভরা চোখে মাকে সপরিবারে বিদায় জানাবেন ভক্তরা, প্রতিমা বিসর্জনের মাধ্যমে কামনা করবেন আগামী বছর মায়ের প্রত্যাবর্তন।  

বিজয়া দশমীতে পূজামণ্ডপে ভিড় করছেন পূজার্থীরা।

দশ উপাচারে দেবীর বিহিত পূজা ও দর্পণ বিসর্জন শেষে মাতৃচরণে দেওয়া হবে পুষ্পাঞ্জলি। পরিবার ও আত্মীয়-স্বজনদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় ও মিষ্টিমুখ করানো, বিবাহিত নারীরা মায়ের চরণে সিঁদুর দেওয়ার পর একে অপরের কপালে সিঁদুর পরিয়ে দেবেন পূজা শেষে। সন্ধ্যায় হবে প্রতিমা বিসর্জন। দেবী দুর্গা ফিরবেন কৈলাসে।

চট্টগ্রাম রামকৃষ্ণ মিশন সেবাশ্রম প্রাঙ্গণে আজ সকাল সাড়ে ৮টায় পূজাতত্ত্ব আলোচনার পর দশমী পূজার পুষ্পাঞ্জলি প্রদান অনুষ্ঠিত হবে সকাল সাড়ে ৯টায়। বেলা সাড়ে ১০টায় দর্পণ বিসর্জন এবং পরিশেষে সন্ধ্যারতির পর প্রতিমা নিরঞ্জন ও শান্তিজল প্রদান করা হবে।    

এ বছর নগরের জেএমসেন হলসহ ১৬ থানায় ব্যক্তিগত/ঘট পূজাসহ ২৯৩টি পূজামণ্ডপ এবং চট্টগ্রাম জেলার ১৫ উপজেলায় ২ হাজার ১৭৫ মণ্ডপে শারদীয় দুর্গাপূজা চলছে। দুর্গতিনাশিনী দেবী দুর্গা ধরাধামে এসেছিলেন ঘোড়ায় চড়ে, ফিরছেন একই বাহনে।  

প্রতি বছরের মতো এবারও নগরীর পতেঙ্গা সমুদ্র সৈকতে প্রতিমা বিসর্জনের ব্যবস্থা করেছে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন। বিজয়া দশমীর পূজার পরপরই দুপুরের পর থেকে নগরীর প্রতিটি মণ্ডপ থেকে ট্রাকে করে প্রতিমাগুলো বিসর্জনের জন্য নেওয়া হবে পতেঙ্গা সমুদ্র সৈকত, অভয়মিত্র ঘাটে কর্ণফুলী নদীর তীর, কাট্টলী সৈকত, কালুরঘাটসহ বিভিন্ন এলাকার পুকুরে।  

সিএমপির দায়িত্বশীল কর্মকর্তারা জানান, পতেঙ্গার মূল সৈকতের বেড়িবাঁধ ও পারকির চর সৈকতে প্রতিমা বিসর্জনের দুটি ভেন্যু ঘিরে প্রতিমা বহনকারী যানবাহনগুলোর আগমন ও বহির্গমন রুট নির্ধারণ করা হয়েছে। প্রতিমা বহনকারী গাড়িগুলো সিমেন্ট ক্রসিং বামে মোড় নিয়ে বিমানবন্দর হয়ে সি-বিচে প্রবেশ করবে। এছাড়া আশপাশ থেকে আগত প্রতিমাবাহী গাড়ি বারেক বিল্ডিং, নিমতলা মোড়, কাস্টমস মোড়, সল্টগোলা, ইপিজেড ক্রসিং, সিমেন্ট ক্রসিং, গুপ্তখাল, বিমানবন্দর ও বাটারফ্লাই ক্রসিং হয়ে পতেঙ্গা বিচে প্রবেশ করবে। সেখানে প্রতিমা বিসর্জনের পর যানবাহনগুলো কাঠগড়, স্টিল মিল বাজার ও সিমেন্ট ক্রসিং হয়ে বেরিয়ে যাবে। পুলিশ ছাড়াও র‌্যাব, ট্যুরিস্ট পুলিশ, ট্রাফিক পুলিশ সদস্যরা নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকবেন।

চট্টগ্রাম মহানগর পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি লায়ন আশীষ কুমার ভট্টাচার্য্য বলেন, প্রতিমা বিসর্জন দুপুর ১টা থেকে সন্ধ্যা ৬টার মধ্যে সম্পন্ন করতে পূজা কমিটিগুলোকে অবহিত করা হয়েছে।  

বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ চট্টগ্রাম জেলার সাধারণ সম্পাদক সুগ্রীব মজুমদার দোলন বলেন, রানি রাসমণি বারুণী স্নানঘাট তথা সমুদ্রতীর্থ সংরক্ষণে সরকারের যথাযথ উদ্যোগ চাই।  

বাংলাদেশ সময়: ০৮০০ ঘণ্টা, অক্টোবর ২৪, ২০২৩ 
এসি/টিসি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।