ঢাকা, শুক্রবার, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৪ মে ২০২৪, ১৫ জিলকদ ১৪৪৫

ক্রিকেট

সিলেটে প্রাণহীন বিপিএল!

নাসির উদ্দিন, সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১১৯ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ৯, ২০২২
সিলেটে প্রাণহীন বিপিএল! দর্শকবিহীন গ্যালারিতে অনুষ্ঠিত হয়েছে বিপিএলের সিলেট পর্ব | ছবি: মাহমুদ হোসেন

সিলেট: সিলেট এবং ক্রিকেট। দুই শব্দের সংযোগ বেশ পুরোনো।

চায়ের রাজধানী সিলেটে ক্রিকেটের কদর নতুন নয়।

চায়ের কাপে চুমুক দিয়ে টেলিভিশনের পর্দায় ছেলে-বুড়ো মিলে ক্রিকেট দেখা। কিংবা নগরে টেলিভিশনগুলোর শো-রুমে দাঁড়িয়ে পথচারিদের ক্রিকেট দেখার দৃশ্য জানান দেয় এ অঞ্চলের মানুষের ক্রিকেট প্রীতি। আর সিলেটের এ প্রজন্মে ছেলে-মেয়েদের মধ্যে ক্রিকেট খেলা দেখেন না, এমন মানুষের সংখ্যা নিতান্তই হাতেগুনা! সিলেটের মাঠে ক্রিকেট মানে শহরে সাজ সাজ রব। গ্যালারি ভর্তি দর্শক, উন্মাদনা। ভুভুজেলা ও বাদ্যযন্ত্রের গগণ কাঁপানো শব্দ।  

২০১৯ সালে বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগের সপ্তম আসরে মাঠে দর্শক আনতে যখন মাইকিং করতে হয়েছে। তখন সিলেটের সবুজে ঘেরা আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামটি ছিল দর্শকে কানায় কানায় পূর্ণ। উপরন্তু টিকিট না পাওয়া দর্শকদের মধ্যে ছিল হতাশা।

দর্শকবিহীন ফাঁকা গ্যালারির সিলেট আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে অনুশীলনে ক্রিকেটাররা |  ছবি: মাহমুদ হোসেন

এবারের বঙ্গবন্ধু প্রিমিয়ার ক্রিকেট লীগে (বিপিএল) সিলেটের মাঠে খেলা শুরু হয় ৭ ফেব্রুয়ারি। প্রতিদিন দুইটি করে খেলা অনুষ্ঠিত হয়। বুধবার (০৯ ফেব্রুয়ারি) সিলেট সানরাইজার্স ও কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের মধ্যকার দিনের দ্বিতীয় ম্যাচ দিয়ে শেষ হয়েছে বিপিএলের অস্টম আসরের সিলেট পর্ব।  

তবে এবার সিলেটে বিপিএল সাঙ্গ হলো দর্শক আক্ষেপ দিয়ে। সিলেটের চা বাগান ঘেরা নান্দনিক মাঠে এই তিনদিনে ছয়টি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হলেও ছিল না কোনো দর্শক উন্মাদনা। গ্যালারি পড়েছিল খালি। অযত্নে-অবহেলায় ছিল চেয়ারগুলো। ইস্টার্ণ গ্যালারির অনেক সারির চেয়ারও তুলে নেওয়া হয়। আর গ্রীণ গ্যালারি সমৃদ্ধ সিলেট স্টেডিয়াম। অথচ গ্রীন গ্যালারির টিলাটিতে কয়েকটি বৃক্ষরাজি ছাড়া ঘাসহীন, দূসর ছিল। কেবল ভিআইপি গ্যালারিতে ফ্রাঞ্চাইজিদের নির্ধারিত টিকিটে খেলা দেখেছেন হাতেগুনা কিছু দর্শক।         

ফলে এবার খেলা দেখতে না পারায় হতাশা ব্যক্ত করেছেন অনেকেই। আবেগি ক্রিকেটপ্রেমিদের অনেকেই স্টেডিয়ামের সীমানা প্রাচীর ঘেরা চা বাগান সংলগ্ন একটি টিলার পাদদেশ থেকে খেলা উপভোগ করেন। কষ্ট হলেও ক্রিকেটপ্রেমিরা খেলা ঠিকই দেখেছে এইভাবে। ক্রিকেটের প্রতি দর্শকদের এমন আবেগ ধরা পড়ে নিয়ন্ত্রণ কক্ষের ক্যামেরাতেও।  

গ্যালারিতে বসে খেলা দেখতে না পেরে স্টেডিয়ামের পাশে টিলা থেকে ম্যাচ দেখছেন ক্রিকেটপ্রেমীরা  |  ছবি: মাহমুদ হোসেন

সিলেটের মাঠে ক্রিকেট খেলা হচ্ছে, অথচ দেখতে না পারার আক্ষেপ স্থানীয় বাসিন্দা যুবক আব্দুল কাদির ও মামুন হোসেন এবং সাইফুলের। তারা বলেন, প্রিয় খেলোয়াড়দের নিজ চোখে দেখতে টিলার উপর দাঁড়িয়েছেন। দূর থেকে হলেও সবার প্রিয় সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিমসহ বিদেশী খেলোয়াড়দের চোখ ভরে দেখতে চেষ্টা করেছেন তারা।

নিজেই ক্রিকেট খেলেন লাক্কাতুড়ার বাসিন্দা কলেজ ছাত্র আব্দুর রহিম বলেন, বাড়ির পাশে ক্রিকেট হচ্ছে, অথচ দেখতে পারছি না। সন্ধ্যা যখন ফ্লাড লাইটের আলো জ্বলে, তখন খেলা দেখতে না পারার আক্ষেপতো থেকেই যায়।   

এ বিষয়ে বিসিবির পরিচালক শফিউল আলম নাদেল বলেন, করোনা ভাইরাস সংক্রমণ পরিস্থিতিতে সরকার নানা বিধিনিষেধ জারি করেছে। সংক্রমণ পরিস্থিতি বেসামাল থাকার কারণেই টি-টোয়েন্টির দেশীয় ফ্র্যাঞ্চাইজি আসর বিপিএলও ফাঁকা গ্যালারিতে আয়োজনের সিদ্ধান্ত নেয় বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। যার কারনে বঙ্গবন্ধু বিপিএলের ঢাকা ও চট্টগ্রাম পর্বেও গ্যালারীতে কোন দর্শক দেখা যায়নি। তবে আগামিতে করোনা পরিস্থিতি ভাল হলে দর্শকরা মাঠে খেলা দেখবেন বলে আশাবাদি তিনি।

বিপিএলের সিলেট পর্বে পয়েন্ট টেবিলে এসেছে নানা পরিবর্তন। কুমিল্লাকে হটিয়ে শীর্ষে উঠা সাকিবের ফরচুন বরিশাল প্লে-অফ নিশ্চিত করেছে। এছাড়া পরাজয়ের বৃত্তে থেকে প্রতিযোগিতা থেকে ছিটকে গেছে সিলেট। হতাশার বিষয় এখানে, নিজ মাঠে খেলেও সমর্থকদের মাঠে বসে সাপোর্ট পায়নি দলটি।

সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে সোমবার (০৭ ফেব্রুয়ারি) প্রথম ম্যাচে মুখোমুখি হয় পয়েন্টের শীর্ষ দুইটি দল কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স ও ফরচুন বরিশাল। এদিন ইমরুল কায়েসের কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সকে ৩২ রানে হারিয়ে টেবিলের শীর্ষ স্থানে উঠে আসে সাকিবের ফরচুন বরিশাল। সন্ধ্যে সাড়ে ৫টায় শুরু হওয়া দিনের অপর ম্যাচে খুলনা টাইগার্স ১৫ রানে সিলেট সানরাইজার্সকে পরাজিত করে।

একই ভেন্যুতে পরদিন মঙ্গলবার (০৮ ফেব্রুয়ারি) এই পর্বের দ্বিতীয় দিনের প্রথম ম্যাচে মিনিস্টার ঢাকাকে হারিয়ে ৩ রানের রোমাঞ্চকর জয় তুলে নেয় চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স। মৃত্যুঞ্জয়ের করা শেষ ওভারে বলা যায় ঢাকার মুঠো থেকে ম্যাচটি নিজেদের করে নেয় চট্টগ্রাম। প্লে-অফ নিশ্চিত করতে জয়টা গুরুত্বপূর্ণ ছিল চট্টগ্রামের জন্য। এদিনও চট্টগ্রাম টুর্নামেন্টে দ্বিতীয়বারের মতো তাদের অধিনায়ক পাল্টায়। নতুন করে নেতৃত্বে আসেন আফিফ।

দিনের দ্বিতীয় ম্যাচে সাকিবের ফরচুন বরিশালের কাছে সিলেট হারে ১২ রানে। এদিন কাগজের হিসেবে সিলেটের শেষ সুযোগটুকুও হারিয়ে যায় এই পরাজয়ে। ছিটকে যায় প্রতিযোগিতার দৌঁড় থেকে। অপরদিকে, এই জয়ে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষ স্থান আরো মজবুত হয় বরিশালের।

সবশেষ বুধবার (০৯ ফেব্রুয়ারি) দিনের প্রথম ম্যাচে খুলনা টাইগার্সের বিপক্ষে জয় তুলে নেয় মিনিস্টার গ্রুপ ঢাকা। এই জয়ে খুলনাকে হটিয়ে পয়েন্ট টেবিলের তৃতীয় স্থানে উঠে আসে ঢাকা। আর এক ধাপ পিছিয়ে খুলনা টাইগার্স চলে যায় ৪র্থ স্থানে। দিনের দ্বিতীয় ম্যাচ ও সিলেট পর্বের শেষ ম্যাচে রোমাঞ্চ তৈরি করে সিলেট সানারাইজার্সকে ৪ উইকেটে হারায় কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স।

একদিন বিরতি দিয়ে শুক্রবার (১১ ফেব্রুয়ারি) থেকে আবারো মিরপুর ফিরছে বিপিএল। সেখানে প্রথম ম্যাচে খুলনা টাইগার্স মুখোমুখি হবে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের। দ্বিতীয় ম্যাচে ফরচুন বরিশাল মোকাবেলা করবে মিনিস্টার গ্রুপ ঢাকার।

বাংলাদেশ সময়: ২১১৯ ঘন্টা, ফেব্রুয়ারি ০৯, ২০২২
এনইউ/আরইউ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।