ঢাকা, সোমবার, ১৫ মাঘ ১৪২৯, ৩০ জানুয়ারি ২০২৩, ০৭ রজব ১৪৪৪

ক্রিকেট

সিলেটকে হারিয়ে খুলনার জয়

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৭৫৬ ঘণ্টা, মার্চ ২৫, ২০২১
সিলেটকে হারিয়ে খুলনার জয়

খুলনা: চৈত্রের তপ্ত রোদে ঘাম ঝরানো ম্যাচে বঙ্গবন্ধু জাতীয় ক্রিকেট লিগের প্রথম রাউন্ডে দারুণ জয় পেয়েছে সাতবারের শিরোপা জয়ী খুলনা বিভাগ।  

বৃহস্পতিবার (২৫ মার্চ) খুলনার শেখ আবু নাসের স্টেডিয়ামে ৮ উইকেটে সিলেট বিভাগকে পরাজিত করে খুলনা।

শেষ দিনে মাত্র ৬৮ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে ২ উইকেট হারিয়ে জয় তুলে নেয় কাজী নুরুল হাসান সোহানের দল। জাকির হোসেনের প্রতিরোধের পরও সিলেট বিভাগ দ্বিতীয় ইনিংসে ৩০৮ রান করতে সমর্থ হয়। এর আগে খুলনার করা ৩৭৫ রানের জবাবে সিলেট করেছিল ১৩৪ রান। ফলোঅনে পড়ে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিংয়ে ভালো করলেও পরাজয় এড়াতে পারেনি তারা।

গত বুধবার ম্যাচের তৃতীয় দিন ৫ উইকেটে ২৫০ রানে দিন শেষ করেছিল সিলেট বিভাগ। বৃহস্পতিবার মাত্র ৫৮ রান যোগ করতেই শেষ ৫ উইকেট হারায় তারা। জাকির হাসান আগের দিন অপরাজিত ছিলেন ১১৮ রানে। আজ আরও ২২ রান আসে তার ব্যাট থেকে। সব মিলিয়ে দলের হয়ে সর্বোচ্চ ১৪০ রান সংগ্রহ করলেও তা ম্যাচ বাঁচানোর জন্য যথেষ্ঠ ছিল না। ২৩৩ বলে ১৫ চারে সাজানো ছিল তার ইনিংস। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৬৬ রান করেন অমিত হাসান। খুলনার হয়ে দ্বিতীয় ইনিংসের সেরা বোলার আব্দুল হালিম। ৬২ রান খরচায় নেন ৪ উইকেট। ৩টি উইকেট নেন মঈনুল ইসলাম সোহেল।

জয়ের জন্য মাত্র ৬৮ রানের লক্ষ্য পায় খুলনা। ৯.৩ ওভারে ২ উইকেট হারিয়ে জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় তারা। সর্বোচ্চ ৩৩ রান করেন দলের উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান ইমরানুজ্জামান। ২৬ বলে ৪টি ছক্কা ও ১ চারে ইনিংসটি সাজান তিনি। এছাড়া ইমরুল কায়েস ১৮, রবিউল ইসলাম ১৪ রান করেন।

ম্যাচ হারলেও অনবদ্য সেঞ্চুরির সুবাদে সিলেট বিভাগের জাকির হাসান ম্যান অব দ্য ম্যাচ নির্বাচিত হন।

আব্দুর রাজ্জাক ক্রিকেট থেকে অবসর নিয়ে জাতীয় নির্বাচকের ভূমিকা পালন করছেন। জাতীয় লিগের প্রথম রাউন্ডের শেষ দিনে ম্যাচের ফাঁকে রাজ্জাককে আনুষ্ঠানিকভাবে বিদায় জানালো খুলনা বিভাগের খেলোয়াড়রা। এ সময় প্রিয় ক্রিকেটারদের পাশে পেয়ে এক আবেগঘন পরিবেশের সৃষ্টি হয়।

শেখ আবু নাসের স্টেডিয়ামে ম্যাচের শেষ দিনে লাঞ্চ বিরতির পর দু’দলের সব ক্রিকেটাররা মাঠে থেকে যান। রাজ্জাককে সঙ্গে করে মাঠে ঢুকেন খুলনার কোচ ইমদাদুল বাশার রিপন। উইকেটের দুই পাশে দাঁড়িয়ে কিংবদন্তি ক্রিকেটারকে স্বাগত জানান দু’দলের ক্রিকেটাররা।

এ সময় সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন সাবেক ক্রিকেটার, খুলনা-সিলেট ম্যাচের ম্যাচ রেফারি রকিবুল হাসান, খুলনার অধিনায়ক নুরুল হাসান সোহান।

তারা জাতীয় ক্রিকেট লিগে খুলনার সাত শিরোপা জয়ের পেছনে আব্দুর রাজ্জাক রাজের ভূমিকার কথা স্মরণ করেন।

সবশেষ বিদায়ী অনুভূতি ব্যক্ত করেন আব্দুর রাজ্জাক।

বাংলাদেশ সময়: ১৭৫৪ ঘণ্টা, মার্চ ২৫, ২০২১
এমআরএম/আরবি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa