ঢাকা, সোমবার, ১৩ ফাল্গুন ১৪৩০, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৫ শাবান ১৪৪৫

ক্রিকেট

নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞ তামিম

স্পোর্টস ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৫৫৬ ঘণ্টা, মার্চ ১০, ২০২১
নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞ তামিম তামিম ইকবাল

তিন ওয়ানডে ও দুই টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলতে নিউজিল্যান্ড সফরে আছে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দল। কিউইদের বিপক্ষে মূল লড়াই শুরুর আগে ১৬ মার্চ একটি আন্ত-স্কোয়াড অনুশীলন ম্যাচ খেলবে টাইগাররা।

কুইন্সটাউনে ট্রেনিং ক্যাম্পের সময়, বুধবার (১০ মার্চ) বাংলাদেশের ওয়ানডে অধিনায়ক তামিম ইকবাল কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জাসিন্ডা আরডার্নের প্রতি। স্পিন-বোলিং কোচ ড্যানিয়েল ভেট্টোরির দলের সঙ্গে যোগ দেওয়ার কথাও জানান তিনি।

এক সংবাদ সম্মেলনে তামিম বলেন, ‘কার্যত ভেট্টোরি কুইন্সটাউনে আমাদের জন্য অপেক্ষা করছেন। আমাদের অনুশীলন সেশন ও অনুশীলন ম্যাচ আছে। আইসোলেশনের সময় আমরা ছোট দলে ভাগ হয়ে অনুশীলন করেছি। আগামীকাল থেকে আমরা দল হিসেবে অনুশীলন শুরু করবো। ’ 

ক্রাইস্টচার্চে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিন শেষে অনুশীলনের অনুমতি পেয়েছে সফরকারী দল। তার মধ্যে প্রথমবারের মতো ৭ দিন হোটেল রুমে আইসোলেশনে কাটাতে হয়েছে টাইগারদের। যদিও গত সপ্তাহে ছোট দলে ভাগ হয়ে অনুশীলন করে বাংলাদেশ।

তিনি আরও বলেন, ‘কোয়ারেন্টিন আমাদের জন্য প্রথম অভিজ্ঞতা ছিল। এর আগে আমরা জৈব-সুরক্ষা বলয়ের মধ্যে ছিলাম। তবে পুরোপুরি আইসোলেশনে ছিলাম না। সত্যি বলতে, নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট যেভাবে সবকিছু আয়োজন করেছে এবং স্টাফরা যেভাবে আমাদের দেখাশোনা করেছে তা সত্যি খুব ভালো। আমরা তাদের ধন্যবাদ জানাতে চাই। যদিও এটা খুব কঠিন জায়গা হতে যাচ্ছে, তবে যথা সম্ভব তারা তা আমাদের জন্য আরামদায়ক করে তুলেছে। ’ 

দুই বছর আগে নিউজিল্যান্ড সফরে গিয়ে বড় দুর্ঘটনার শিকার হতে বসেছিল বাংলাদেশি ক্রিকেটাররা। ২০১৯ সালে ক্রাইস্টচার্চে আল নুর মসজিদে সন্ত্রাসী হামলা হয়। তবে ভাগ্যবশত বেঁচে যায় টাইগাররা। সেই ঘটনার পর এবারই প্রথম নিউজিল্যান্ড সফরে গেছে বাংলাদেশ। সেবার দুর্ঘটনার শিকার হতে বসা স্কোয়াডেও ছিলেন তামিম।  

সেই দুঃসহ স্মৃতির কথা ভুলেননি তিনি। তবে মসজিদে হামলার পরপরই বড় পদক্ষেপ নেন নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জাসিন্ডা আরডার্ন। যার জন্য সংবাদ সম্মেলনে এসে উনার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন তামিম।  

বাংলাদেশের এই ড্যাশিং ওপেনার বলেন, ‘সেটা আমাদের জন্য কঠিন সময় ছিল। বিশেষ করে সেসব পরিবারের জন্য, যারা তাদের আপনজনকে হারিয়েছিল। তাদের প্রতি আমাদের প্রার্থনা রয়েছে এবং আশা করি, আল্লাহ তাদের পরিবারকে শোক সইবার শক্তি দেবেন। সময়টা সহজ ছিল না। তবে আমাদের সামনে দিকে তাকাতে হবে। ’

কিউইদের প্রতি মুগ্ধতা প্রকাশ এবং দেশটির প্রধানমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে তামিম আরও বলেন, ‘নিউজিল্যান্ড খুবই সুন্দর দেশ এবং দেশটির মানুষজনও বেশ চমৎকার। এই নিয়ে আমি এখানে চার বা পাঁচবারে জন্য এলাম। আমার উচিত প্রধানমন্ত্রীকে জানানো, ঐ কঠিন সময়ে উনি যেভাবে এগিয়ে এসেছিলেন তার জন্য সতিই প্রত্যেক বাংলাদেশি উনার প্রশংসা করেছেন। উনি অসাধারণ কাজ করেছিলেন। আমার যদি উনার সঙ্গে সাক্ষাতের সুযোগ হয়, ব্যক্তিগতভাবে আমি উনাকে ধন্যবাদ জানাবো। ’ 

এছাড়া কোভিড-১৯ ভ্যাক্সিনেশন প্রোগ্রামের জন্য তামিম ধন্যবাদ জানান বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকেও। নিউজিল্যান্ড সফরে যাওয়া বাংলাদেশের অধিকাংশ সদস্য ঢাকা ছাড়ার আগে করোনার টিকা নিয়েছিলেন। নিজে টিকা নেওয়ার পাশাপাশি অন্যদেরও টিকা নেওয়ার জন্য উৎসাহিত করেছেন জানান তামিম।

বাংলাদেশ সময়: ১৫৫৬ ঘণ্টা, মার্চ ১০, ২০২১
ইউবি/এমএমএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।