ঢাকা, শনিবার, ১৪ ফাল্গুন ১৪২৭, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১৫ রজব ১৪৪২

ক্রিকেট

তিনে নেমে আবারও ব্যর্থ শান্ত

স্পোর্টস ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬৩৩ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২২, ২০২১
তিনে নেমে আবারও ব্যর্থ শান্ত ছবি: শোয়েব মিথুন

প্রথম ম্যাচের মতো দ্বিতীয় ম্যাচেও ব্যাট হাতে ব্যর্থ নাজমুল হোসেন শান্ত। এই সিরিজে এখন পর্যন্ত টানা দুই ম্যাচে সাকিব আল হাসানের আগের পজিশন তথা তিনে নামার সুযোগ পেয়ে দুইবারই ব্যর্থ তিনি।

আগের ম্যাচে আউট হয়েছিলেন ১ রানে, এবার তার বিদায় হলো ১৭ রানে।

উইন্ডিজের ছুড়ে দেওয়া ১৪৯ রানের ছোট লক্ষ্য তাড়ায় নেমে শুরুটা ভালোই করেছিলেন দুই ওপেনার তামিম ইকবাল ও লিটন দাস। কিন্তু সেট হয়েও ২২ রানের ইনিংস খেলে ক্যারিবীয় স্পিনার আকিল হোসেনের বলে লেগ বিফোরের ফাঁদে পড়েন লিটন। এরপর জেসন মোহাম্মদের বলে ক্যাচ তুলে দিয়ে বিদায় নেন শান্ত।

এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ১৯ ওভার শেষে ২ উইকেট হারিয়ে ৮৪ রান সংগ্রহ করেছে বাংলাদেশ।

এর আগে সাকিব-মিরাজের ঘূর্ণিতে দিশেহারা উইন্ডিজ অলআউট হয় মাত্র ১৪৮ রানে। মোস্তাফিজুর রহমান ও হাসান মাহমুদও রাখেন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা।  

ওয়েস্ট ইন্ডিজ শেষ পর্যন্ত দলীয় তিন অঙ্ক পেরোনো রান পেয়েছে লোয়ার-অর্ডার ব্যাটসম্যানদের কল্যাণে। নয়ত শুরু থেকে বাংলাদেশের দুই স্পিনার মেহেদী হাসান মিরাজ ও সাকিব আল হাসান যেভাবে ছোবল দেওয়া শুরু করেছিলেন তাতে শ’য়ের ঘরে পৌঁছানোর আগে গুটিয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা ছিল ক্যারিবিয়ানদের।

মাত্র ৮৮ রান তুলতেই ৮ উইকেট হারিয়ে বসেছিল উইন্ডিজ। সেখান থেকে দলকে তিন অঙ্কের ঘরে পৌঁছে দেন দুই লোয়ার অর্ডার ব্যাটসম্যান রভমেন পাওয়েল (৪১) ও আলঝেরি জোসেফের (১৭) দলীয় সর্বোচ্চ ৩২ রানের জুটি। তবে শেষ পর্যন্ত উইন্ডিজ থামে ৪৩.৪ ওভারে ১৪৮ রানে। এ নিয়ে আন্তর্জাতিক ওয়ানডেতে টানা দুই ম্যাচে প্রতিপক্ষকে দেড়শ’র নিচে অলআউট করল টাইগাররা।  

শুক্রবার (২২ জানুয়ারি) মিরপুরের শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ানডেতে টসে জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুতেই ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে উইন্ডিজ। ওপেনার সুনীল আমব্রিসকে (৬) দিয়ে শুরুটা করেন মোস্তাফিজুর রহমান। এরপর জোড়া আঘাত হানেন মিরাজ। ওয়ানডেতে অভিষেক হওয়া ওপেনার কিয়র্ন ওটলেকে (২৪) তামিম ইকবালের হাতে ক্যাচ বানানোর পর উইকেটরক্ষক জশুয়া ডি সিলভাকে (৫) বোল্ড করেন তিনি।  

নিজের প্রথম ওভার করতে এসেই আন্দ্রে ম্যাকার্থিকে (৩) বোল্ড করেন সাকিব। আগের ম্যাচে ৪ উইকেট নিয়ে ম্যাচ সেরা হয়েছিলেন তিনি। সাকিব নিজের দ্বিতীয় শিকার বানান অধিনায়ক জেসন মোহাম্মদকে (১১) এলবিডব্লিউর ফাঁদে ফেলে।  

মোহাম্মদের বিদায়ের আগে উইন্ডিজকে আরও বিপদের মুখে ঠেলে রানের খাতা খোলার আগে রান আউট হয়ে সাজঘরে ফেরেন আগের ম্যাচে দলের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক কাইল মায়ার্স। তবে চাপের মুখে পাল্টা আক্রমণ চালানোর চেষ্টা করেন এনক্রুমাহ বোনার (২০)। অবশ্য তাকে বোল্ড করে বেশি সুযোগ দেননি হাসান মাহমুদ। আটে ব্যাটিংয়ে নেমে জোসেফকে নিয়ে ধীর-স্থির ব্যাটিংয়ে দলকে তিন অঙ্কের ঘরে নিয়ে যান পাওয়েল।

জোসেফ ফেরার পর শেষ ব্যাটসম্যান আকিল হোসেনকে সঙ্গে নিয়ে ফিফটির দিকে এগিয়ে যাচ্ছিলেন পাওয়েল। তবে নিজের শেষ ওভার করতে এসে চতুর্থ বলেই পাওয়েলকে থামান মিরাজ। আকিল অপরাজিত থাকেন ব্যক্তিগত ৭ রানে।  

৯.৪ ওভারে ২৫ রান দিয়ে দলীয় সর্বোচ্চ ৪ উইকেট নিয়েছেন মিরাজ। যা তার ওয়ানডে ক্যারিয়ারে সেরা বোলিং ফিগার। ২টি করে উইকেট ভাগাভাগি করেছেন সাকিব ও মোস্তাফিজ। বাকি উইকেট হাসান মাহমুদের।

বাংলাদেশ সময়: ১৬২৮ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২২, ২০২১
এমএইচএম

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa