ঢাকা, মঙ্গলবার, ১ শ্রাবণ ১৪৩১, ১৬ জুলাই ২০২৪, ০৯ মহররম ১৪৪৬

ক্রিকেট

শান্তর ব্যাট কবে অশান্ত হবে?

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১৫৩ ঘণ্টা, জুন ১৮, ২০২৪
শান্তর ব্যাট কবে অশান্ত হবে?

২০২৩ ওয়ানডে বিশ্বকাপের পর সাকিব আল হাসান জানিয়ে দেন, কোনো ফরম্যাটেই আর অধিনায়কত্ব করতে চান না। তার ইনজুরির কারণে ওয়ানডে বিশ্বকাপের যে ম্যাচগুলোতে এবং ম্যাচের কয়েকটি মুহূর্তে সাকিব মাঠের বাইরে ছিলেন, নাজমুল হোসেন শান্ত অধিনায়কত্বের দায়িত্ব সামলেছেন।

 

নানা ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে শান্ত এখন তিন ফরম্যাটেই জাতীয় দলের অধিনায়ক। ২০২৪ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্বে তার নেতৃত্বে বাংলাদেশ চার ম্যাচ খেলে তিনটিতে জয় লাভ করেছে, যা টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে টাইগারদের জন্য একটি বড় সাফল্য। কিন্তু অধিনায়কত্ব পাওয়ার পর থেকে ব্যাটিংটাই যেন ভুলে গেছেন তিনি। অথচ নেতৃত্ব পাওয়ার আগেও ভালো রান পাচ্ছিলেন এই ব্যাটার।  

শান্তর ব্যাটে রান নেই

অধিনায়ক শান্ত একজন টপ অর্ডার ব্যাটারও। ২০২৩ সালটা তার জন্য অত্যন্ত সফল ছিল, যা শুরু হয়েছিল ২০২২ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ থেকে। পরবর্তীতে ২০২৩ বিপিএলে ম্যান অফ দ্য টুর্নামেন্ট ও সেরা রান সংগ্রাহক হন তিনি। বাংলাদেশের বিরুদ্ধে ইংল্যান্ডের সর্বশেষ টি-টোয়েন্টি সিরিজে শান্তর ব্যাটিং অসাধারণ ছিল। কিন্তু এরপর তার ব্যাট তেমন কথা বলেনি। সম্প্রতি জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে পাঁচ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজে এবং বিশ্বকাপ পূর্ববর্তী যুক্তরাষ্ট্র সিরিজেও তার ব্যাট হাসেনি।

চলমান টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্বে শান্তর ব্যাটিং পারফরম্যান্স ছিল নিম্নমুখী। বাংলাদেশের প্রথম ম্যাচে তথা শ্রীলংকার বিপক্ষেতিনি মাত্র ৭ রান করেন। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ১৪ রানের বেশি করতে পারেননি, এরপর তার ব্যাট থেকে নেদারল্যান্ডস ও নেপালের বিপক্ষে যথাক্রমে ১ ও ৪ রান আসে। গ্রুপ পর্বে ওপেনিং এবং ওয়ান ডাউনে ব্যাটিং করেও শান্ত সফল হতে পারেননি। তবে তার অধিনায়কত্ব ছিল প্রশংসনীয়। তার বোলিং চেঞ্জ এবং দ্রুত সিদ্ধান্ত নেওয়ার দক্ষতা নজর কেড়েছে।

সুপার এইটে শান্তর চ্যালেঞ্জ

সুপার এইটে বাংলাদেশকে কঠিন প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে লড়াই করতে হবে, যেখানে অস্ট্রেলিয়া, ভারত, আফগানিস্তানের মতো শক্তিশালী প্রতিপক্ষ রয়েছে। সুপার এইট পর্বে শান্তর ব্যাট কি হাসবে? নাকি শুধু তার অধিনায়কত্ব দিয়ে মুগ্ধ করবেন? কারণ গ্রুপ পর্বে ব্যাটার শান্ত মোটামুটি ব্যর্থ।  

সামনে সুপার এইটের কঠিন লড়াই। অধিনায়ক যদি ব্যাট হাতে সামনে থেকে নেতৃত্ব না দেন, তাহলে দলের সাফল্য পাওয়ার আশা ক্ষীণ। তেমনটা যেন না হয়; শান্ত রানে ফিরুন, এটাই প্রত্যাশা। কারণ আগের তিন জয় এসেছে বোলারদের হাত ধরে। সুপার এইট হবে ওয়েস্ট ইন্ডিজের মাটিতে। যেখানে ব্যাটার শান্তকেও খুব দরকার।

লেখক: আশরাফুল মাখলুকাত 
মানবসম্পদ ও উন্নয়নকর্মী

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।