ঢাকা, শনিবার, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৫ মে ২০২৪, ১৬ জিলকদ ১৪৪৫

ফুটবল

ফেডারেশন কাপ/ 

রহমতগঞ্জকে হারিয়ে সেমিফাইনালে বসুন্ধরা কিংস

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট, স্পোর্টস  | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮০০ ঘণ্টা, এপ্রিল ১৬, ২০২৪
রহমতগঞ্জকে হারিয়ে সেমিফাইনালে বসুন্ধরা কিংস

ঈদ উল ফিতরের বিরতির পর ফেডারেশন কাপ দিয়ে মাঠে ফিরল ঘরোয়া ফুটবল। ঈদের আগে প্রথম দল হিসেবে আসরের সেমিফাইনাল নিশ্চিত করেছিল মোহামেডান।

এবার তাদের সঙ্গী হলো বসুন্ধরা কিংস।  

গোপালগঞ্জের শেখ ফজলুল হক মনি স্টেডিয়ামে আজ রহমতগঞ্জ মুসলিম ফ্রেন্ডস সোসাইটিকে ২-০ গোলে হারিয়ে সেমিফাইনাল নিশ্চিত করেছে কিংস। একটি করে গোল  করেছেন সোহেল রানা এবং এমফন উদোহ।  

শুরু থেকে প্রতিপক্ষের ওপর আধিপত্য বিস্তার করে খেলতে থাকে বসুন্ধরা কিংস।  রহমতগঞ্জের রক্ষণের কঠিন পরীক্ষা নিতে থাকে কিংসের আক্রমণভাগ। ফলও পায় দ্রুতই। ম্যাচের ২৪তম মিনিটেই এগিয়ে যায় অস্কার ব্রুজোনের শিষ্যরা। রবসন রবিনহোর পাসে বাঁ পায়ের জোরালো শটে দলকে এগিয়ে দেন সোহেল রানা।

৪২তম মিনিটে মিনিটে ঘানার ফরোয়ার্ড স্যামুয়েল মেনসা কনির বক্সে ঢুকে জোরালো শট সরাসরি আসায় আটকে দেন কিংসের গোলকিপার মেহেদী হাসান শ্রাবণ। ফলে সমতায় ফেরা হয়নি রহমতগঞ্জের। এগিয়ে থেকেই বিরতিতে যায় কিংস।

বিরতির পর আক্রমণের ধার বাড়ায় কিংস। সমতায় ফিরতে মরিয়া হয়ে ওঠে রহমতগঞ্জও। ৬২তম মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করে নেয় কিংস। রবিনহোর থ্রু পাস নিয়ন্ত্রণে নিয়ে বক্সে ঢুকে উদোহ আগুয়ান আলিফের মাথার উপর দিয়ে চিপ শটে বল জড়িয়ে দেন জালে।  

যোগ করা সময়ের শেষ মিনিটে রহমতগঞ্জ গোল পেতে পারতো। স্যামুয়েল কনে বক্সের ভেতরে বল পেয়ে সরাসরি গোলকিপার শ্রাবণের শরীরে মেরে সুযোগ নষ্ট করে সতীর্থদের চূড়ান্ত হতাশ করেন।

রেফারির শেষ বাঁশি বাজার পর কনের সঙ্গে বিশ্বনাথের হালকা বাদানুবাদ হয়। তবে ইয়াসিন আরাফাতের হস্তক্ষেপে তা বেশিদূর এগোয়নি। কিংস সেমিতে ওঠার আনন্দ নিয়ে মাঠ ছেড়েছে। ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে তাদের প্রতিপক্ষ হবে ফর্টিস এফসি ও আবাহনীর মধ্যকার চতুর্থ কোয়ার্টার ফাইনালের জয়ী দল।

বাংলাদেশ সময়: ১৬০০ ঘণ্টা, এপ্রিল ১৬, ২০২৪
এআর/এমএইচএম

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।