ঢাকা, রবিবার, ২২ মাঘ ১৪২৯, ০৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৩ রজব ১৪৪৪

ক্রিকেট

কিউইদের লজ্জায় ডুবিয়ে র‍্যাংকিংয়ের শীর্ষে ভারত

স্পোর্টস ডেস্ক  | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১৪৪ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২৪, ২০২৩
কিউইদের লজ্জায় ডুবিয়ে র‍্যাংকিংয়ের শীর্ষে ভারত

২০২০ সালের ১১ ফেব্রুয়ারি, ঘরের মাটিতে ভারতকে ডেকে নিয়ে ওয়ানডে সিরিজ ৩-০ ব্যবধানে জিতেছিল নিউজিল্যান্ড। এবার সেই হারের মধুর প্রতিশোধ নিল টিম ইন্ডিয়া।

নিজেদের ঘরের মাটিতে কিউইদের একই ফরম্যাটে হোয়াইটওয়াশের লজ্জায় ডোবালো রোহিতবাহিনী। সেই সঙ্গে টি-টোয়েন্টির পর উঠে এলো ওয়ানডে র‍্যাংকিংয়ের শীর্ষেও।

সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ম্যাচে আজ ইন্দোরে ৯০ রানের জয় তুলে নিয়েছে স্বাগতিকরা। শুরুতে ব্যাট করতে নেমে রোহিত শর্মা ও শুভমান গিলের সেঞ্চুরিতে ভর করে ৯ উইকেটে ৩৮৫ রানের বিশাল সংগ্রহ গড়ে ভারত। জবাবে ২৯৫ রান তুলতেই সব উইকেট হারিয়ে ফেলে সফরকারীরা। ফলে ৩-০ ব্যবধানে ওয়ানডে সিরিজ ঘরে তুলেছে ভারত।

দুর্দান্ত এই জয়ের পর ওয়ানডে র‍্যাংকিংয়ের শীর্ষে এখন ভারত। তাদের রেটিং পয়েন্ট এখন ১১৪। আর দুইয়ে নেমে যাওয়া ইংল্যান্ডের রেটিং পয়েন্ট ১১৩। ১১১ পয়েন্ট নিয়ে চারে নেমে গেছে নিউজিল্যান্ড। আর তিনে থাকা অস্ট্রেলিয়ার রেটিং পয়েন্ট ১১২। এছাড়া টি-টোয়েন্টিতে আরও আগেই থেকেই শীর্ষে ভারত।

আকাশছোঁয়া লক্ষ্য তাড়ায় নেমে শুরুতেই ওপেনার ফিন অ্যালেনের উইকেট হারায় নিউজিল্যান্ড। ভারতীয় পেস বোলিং অলরাউন্ডার হার্দিক পান্ডিয়ার করা প্রথম ওভারের দ্বিতীয় বলেই বোল্ড হয়ে ফেরেন অ্যালেন। তবে এরপর হেনরি নিকোলসকে নিয়ে দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়ান ডেভন কনওয়ে। তাদের দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে আসে ১০৬ রান।  

নিকোলস ৪২ রান করে ভারতীয় স্পিনার কুলদিপ যাদবের বলে লেগ বিফোর হয়ে বিদায় নেওয়ার পরও ডেরিল মিচেলকে নিয়ে লড়াই চালিয়ে যান কনওয়ে। তুলে নেন ক্যারিয়ারের তৃতীয় সেঞ্চুরিও। ৭৮ রান যোগ করার পর ভাঙে এই জুটি। ২৪ রান করে ভারতীয় পেসার শার্দূল ঠাকুরের শিকার হয়ে মিচেল বিদায় নিলে হুড়মুড় করে ভেঙে পড়ে নিউজিল্যান্ডের মিডল অর্ডার। অধিনায়ক টম ল্যাথাম গোল্ডেন ডাক মেরে ফেরেন। পারেননি গ্লেন ফিলিপসও (৫)। তবে একপ্রান্ত আগলে রেখেছিলেন কনওয়ে। সেঞ্চুরি পেতেই স্ট্রাইক রেট বাড়ছিল তার। কিন্তু ব্যক্তিগত দলীয় ২৩০ রানে থামে তার লড়াই।  

ভারতীয় ফাস্ট বোলার উমরান মালিকের বলে ক্যাচ দিয়ে ফেরার আগে ১০০ বলে ১২টি চার ও ৮টি ছক্কায় ১৩৮ রানের ঝলমলে এক ইনিংস খেলেন কনওয়ে। তার বিদায়ের পর লোয়ার অর্ডারে কিছুটা প্রতিরোধ গড়েছিলেন ব্রেসওয়েল (২৬) এবং স্যান্টনার (৩৪)। কিন্তু তাদের সেই লড়াই শুধু ব্যবধানই কমিয়েছে। ৪১.২ ওভার পর্যন্ত স্থায়ী হয় নিউজিল্যান্ডের ইনিংস।  

এর আগে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে রোহিত শর্মা ও গিলের ২১২ রানের জুটিতে দারুণ শুরু পায় ভারত। দুজনেই পান সেঞ্চুরির দেখা। এর মধ্যে ১১০০ দিন পর ওয়ানডে ফরমাটে তিন অঙ্কের দেখা পেলেন রোহিত। সর্বশেষ ২০২০ সালের জানুয়ারিতে বেঙ্গালুরুতে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ১১৯ রানের ইনিংস খেলেছিলেন। এতদিন পর আজ পেলেন ক্যারিয়ারের ৩০ নম্বর সেঞ্চুরি।

রোহিত ও গিলের ওপেনিং জুটি স্থায়ী হয়েছিল ২৬.১ ওভার পর্যন্ত। ৪১ বলে ফিফটি করা রোহিত তিন অংকে পৌঁছান ৮৩ বলে। শুভমান ছিলেন আরও বিধ্বংসী। তিনি সেঞ্চুরি তুলে নেন ৭২ বলে। ২৭ নম্বর ওভারের প্রথম বলে রোহিতকে বোল্ড করেন ব্রেসওয়েল। রোহিতের ৮৫ বলে ১০১ রানের ইনিংসে ছিল ৯টি চার এবং ৬টি ছক্কা।  

পরের ওভারেই থামে শুভমানের ব্যাট। টিকনারের বলে আউট হওয়ার আগে শুভমান খেলেন ৭৮ বলে ১৩ চার ৫ ছক্কায় ১১২ রানের ইনিংস। বিরাট কোহলির ব্যাট থেকে আসে ৩৬ রান। মিডল অর্ডারে ৩৮ বলে ৫৪ রান করেন হার্দিক পান্ডিয়া। এছাড়া শার্দুল ঠাকুর ১৭ বলে ২৫ রানের ইনিংস খেলে দলের পাহাড়সম সংগ্রহে ছোট কিন্তু গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন।  

বাংলাদেশ সময়: ২১৪০ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২৪, ২০২৩
এমএইচএম

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa