ঢাকা, শনিবার, ১৮ ফাল্গুন ১৪৩০, ০২ মার্চ ২০২৪, ২০ শাবান ১৪৪৫

কর্পোরেট কর্নার

বাংলাদেশে এলো ভারতের বিখ্যাত ব্র্যান্ড ‘বোট’

নিউজ ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১০৪৪ ঘণ্টা, মে ২৫, ২০২৩
বাংলাদেশে এলো ভারতের বিখ্যাত ব্র্যান্ড ‘বোট’

ঢাকা: ভারতের সব চেয়ে বৃহত্তম ডিজিটাল লাইফস্টাইল ব্র্যান্ড ‘বোট’ দেশের বাজারে যাত্রা শুরু করেছে। বাংলাদেশে ডিস্ট্রিবিউশন পার্টনার হিসেবে ডিএক্স গ্রুপের সঙ্গে চুক্তি স্বাক্ষর করে বোট।

চুক্তি অনুযায়ী ডিএক্স গ্রুপ দেশের একমাত্র অথরাইজড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি হিসেবে রাজধানীসহ দেশের সব বিভাগীয় শহরে বোট’র পণ্য পরিবেশন করবে।  

বোটের পণ্যগুলোর মধ্যে রয়েছে- টিডাব্লিউএস, স্মার্টওয়াচ, নেবকব্যান্ড, হেডফোন, স্পিকার, চার্জারসহ আরও অনেক কিছু। ভারতের বাজারে ‘বোট’ তুমুল জনপ্রিয় একটি ব্র্যান্ড। বাংলাদেশের প্রযুক্তিপ্রেমীদের কাছেও ব্র্যান্ডটি জনপ্রিয় হবে বলে ডিএক্স গ্রুপ ও বোট কর্তৃপক্ষের আশা।  

এ বিষয়ে বোটের সহ-প্রতিষ্ঠাতা ও চিফ মার্কেটিং অফিসার আমান গুপ্তা বলেন, ডিএক্স গ্রুপের সঙ্গে বোটের ডিস্ট্রিবিউশন পার্টনারশিপ বাংলাদেশের প্রযুক্তিপ্রেমী ভোক্তাদের ডিজিটাল লাইফস্টাইল পণ্য নির্ভর চাহিদা মেটাতে গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালন করবে। এছাড়া বোটের বিশ্বমানের লাইফস্টাইল পণ্য সাশ্রয়ী মূল্যে ভোক্তা পর্যায়ে সুনিশ্চিত করে দেশের প্রযুক্তি নির্ভর বাজার ত্বরান্বিত করবে। এরই ধারাবাহিকতায় বোটের পণ্য ভোক্তা পর্যায়ে পৌঁছাতে প্রয়োজনীয় সব ধরনের সহায়তা আমরা ডিএক্স গ্রুপকে করবো।

ডিএক্স গ্রুপের প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী দেওয়ান কানন বলেন, প্রধানমন্ত্রী ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে নিরলস কাজ করে যাচ্ছেন। প্রধানমন্ত্রীর ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্য ডিএক্স গ্রুপের অনুপ্রেরণা হিসেবে কাজ করে। তারই ধারাবাহিকতায় ডিএক্স গ্রুপ সব সময় ভোক্তাদের বিশ্বমানের ডিজিটাল লাইফস্টাইল পণ্যের চাহিদা মেটাতে বদ্ধ পরিকর। সম্প্রতি ‘বোট’ এর সঙ্গে আমাদের পার্টনারশিপ এরই একটি প্রতিচ্ছবি।

উল্লেখ্য, ‘বোট’ এর মূল প্রতিষ্ঠান ইমেজিন মার্কেটিং লিমিটেড প্রতিষ্ঠিত হয় ২০১৩ সালে। প্রতিষ্ঠানটির যৌথ প্রতিষ্ঠাতা আমান গুপ্তা ও সামির মেহতা উভয়েরই রয়েছে লাইফস্টাইল বিভিন্ন পণ্যের ওপর বিস্তর অভিজ্ঞতা। পণ্য সরবরাহের দিক দিয়ে বর্তমানে বোট ভারতে একটি নেতৃস্থানীয় অডিও ও ওয়্যারেবল পণ্যের প্রতিষ্ঠান। তারই ধারাবাহিকতায় ইমাজিন মার্কেটিং কোয়ালকম ও ডলবির মতো গ্লোবাল ব্র্যান্ডের সঙ্গে অফিশিয়াল পার্টনার হিসেবে কাজ করছে। প্রতিষ্ঠানটির বর্তমানে দিল্লি, মুম্বাই ও বেঙ্গালুরুতে অফিস রয়েছে।

অপরদিকে ডিএক্স গ্রুপ প্রতিষ্ঠিত হয় ২০১১ সালে। প্রতিষ্ঠানটির ইকোসিস্টেমে রয়েছে মোট ১২টি ব্যবসা। এগুলো মূলত ডিস্ট্রিবিউশন, রিটেইল ও সার্ভিস ডোমেইন কেন্দ্রিক। প্রতিষ্ঠানটি তার সফলতায় অবিচল প্রতিশ্রুতিবদ্ধ থাকার ফলে বর্তমানে বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় স্মার্টফোন ও ডিজিটাল লাইফস্টাইল পণ্য ডিস্ট্রিবিউটর। এছাড়া প্রতিষ্ঠানটি বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় স্মার্টফোন রিটেইল চেইন ও দেশের এক নম্বর আফটার সেলস সার্ভিস প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান হিসেবে সফলতার সঙ্গে ব্যবসা পরিচালনা করে যাচ্ছে।

বাংলাদেশ সময়: ১০৪০ ঘণ্টা, মে ২৫, ২০২৩
আরবি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।