ঢাকা, শনিবার, ২৪ শ্রাবণ ১৪২৭, ০৮ আগস্ট ২০২০, ১৭ জিলহজ ১৪৪১

জলবায়ু ও পরিবেশ

মেঘলা আবহাওয়া-বৃষ্টিতেও অসহনীয় গরম

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১৩৩ ঘণ্টা, জুন ৮, ২০২০
মেঘলা আবহাওয়া-বৃষ্টিতেও অসহনীয় গরম

ঢাকা: আকাশে মেঘ, বাতাসে জলীয় বাষ্প। তাই রোদের প্রখরতা তেমন না থাকলেও বেড়েছে গরম অনুভূতি। দেশের কিছু কিছু অঞ্চলে যা আরো বাড়তে পারে।

আবহাওয়া অধিদফতর বলছে, বর্ষা প্রবেশ করেছে দেশের আকাশে। বর্তমানে এটি টেকনাফ হয়ে বিরাজ করছে কক্সবাজারে।

দু'দিনে চলে আসবে চট্টগ্রামে। আর তার পরবর্তী পাঁচদিনে দখল করে নেবে দেশের মধ্যভাগ পর্যন্ত।

গরমের প্রভাবে দুর্ভোগে পড়েছে শিশুরা। ঘরবন্দি জীবনে ফ্যানের বাতাসেও যেন পরিত্রাণ মিলছে না। শিশুরা কান্নাকাটিও করছে বলে জানিয়েছেন অনেকে।

নিলিমা ইয়াসমিনের বাচ্চার বয়স দুই বছর। তিনি জানান, দুপুরে খাওয়ার পর তার বাচ্চা নিয়মিত ঘুমোয়। কিন্তু গরমের আজ ঘুমোয়নি। সারাদিন প্রচুর ঘেমেছে আর কান্নাকাটি করেছে। দু'দিনের গরমেই ঘামাচি বের হয়েছে শরীরে।

আবহাওয়াবিদ মো. রুহুদ কুদ্দুস বাংলানিউজকে বলেন, দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমি বায়ু বা বর্ষার প্রভাবেই বাতাসে জলীয় বাষ্প বেশি বিরাজ করছে। তাই ভ্যাপসা গরম পড়েছে। এছাড়া মৃদু তাপপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে দেশের কিছু কিছু অঞ্চলের ওপর দিয়ে। এটা অব্যাহত থাকবে। বাড়ার সম্ভাবনাও রয়েছে।

আবহাওয়া অধিদফতর এক পূর্বাভাসে সোমবার (৮ জুন) রাতে জানিয়েছে, লঘুচাপের বর্ধিতাংশ পশ্চিমবঙ্গ ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থান করছে। আর দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমি বায়ু কক্সবাজার উপকূল পর্যন্ত অগ্রসর হয়েছে। দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমি বায়ু আরও অগ্রসর হওয়ার জন্য আবহাওয়াগত অবস্থা অনুকূলে রয়েছে।

এই অবস্থায় মঙ্গলবার (৯ জুন) সন্ধ্যা নাগাদ চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের অনেক জায়গায়; ঢাকা, ময়মনসিংহ, খুলনা ও বরিশাল বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় এবং রংপুর ও রাজশাহী বিভাগের দু'এক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা/ঝড়ো হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি/বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। একই সঙ্গে চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের কোথাও কোথাও বিক্ষিপ্তভাবে মাঝারি ধরনের ভারী থেকে ভারী বর্ষণ হতে পারে। তবে ভারী বর্ষণের কারণে পাহাড় ধসের কোনো শঙ্কা নেই।

বর্ষার প্রভাবে চট্টগ্রাম, বরিশাল ও সিলেট বিভাগে দিনের তাপমাত্রা সামান্য হ্রাস পেতে পারে। এছাড়া দেশের অন্যত্র দিনের তাপমাত্রা সামান্য বাড়তে পারে এবং সারাদেশে রাতের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে।

এদিকে রাজশাহী, ঈশ্বরদী, সৈয়দপুর, খুলনা, যশোর ও চুয়াডাঙ্গা অঞ্চলের উপর দিয়ে মৃদু তাপপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে এবং তা অব্যাহত থাকতে পারে।

ঢাকায় বাতাসের গতিবেগ দক্ষিণ/দক্ষিণ-পশ্চিম দিক থেকে ঘণ্টায় ১০-১৫ কিমি থাকবে।

সোমবার ঢাকায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আর বাতাসে আর্দ্রতার পরিমাণ ছিল ৭৫ শতাংশ। তাই মেঘে ঢাকা আকাশের নিচেও গরম অনুভূত বেশি হয়েছে।

বুধবার (১০ জুন) নাগাদ বর্ষা চট্টগ্রামের আকাশে চলে আসবে। আগামী সপ্তাহে চলে আসবে দেশের মধ্যভাগে।

সোমবার দেশে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে যশোরে, ৩৬ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আর সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাতও রেকর্ড করা হয়েছে যশোরেই, ৬৬ মিলিমিটার।

বাংলাদেশ সময়: ২১১৫ ঘণ্টা, জুন ০৮, ২০২০
ইইউডি/এএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa