bangla news

চিড়িয়াখানার ৪ হরিণ সাবাড়; দায় নেয়নি কেউ!

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০২০-০৪-০৫ ৫:১৫:৩০ এএম
শহীদ এ.এইচ.এম. কামারুজ্জামান কেন্দ্রীয় উদ্যান ও চিড়িয়াখানা

শহীদ এ.এইচ.এম. কামারুজ্জামান কেন্দ্রীয় উদ্যান ও চিড়িয়াখানা

রাজশাহী: রাজশাহীর শহীদ এ.এইচ.এম. কামারুজ্জামান কেন্দ্রীয় উদ্যান ও চিড়িয়াখানায় ক্ষুধার্ত পাঁচটি কুকুর ঢুকে চারটি হরিণ খেয়ে ফেলার ঘটনার দায় নিজের কাঁধে নেননি তত্ববধায়ক। 

ঘটনাটি নিয়ে তোলপাড় হওয়ার পর শনিবার (৪ এপ্রিল) দুপুরে রাজশাহী সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ড. এবিএম শরীফ উদ্দিনের কাছে লিখিত প্রতিবেদনটি জমা দিয়েছেন- চিড়িয়াখানার তত্ত্বাবধায়ক।

এতে রাজশাহীর শহীদ এ.এইচ.এম. কামারুজ্জামান কেন্দ্রীয় উদ্যান ও চিড়িয়াখানার তত্ত্বাবধায়ক মাহবুব হোসেন অন্য কাউকেও দায়ী করেননি। চিড়িয়াখানার নৈশ্যপ্রহরী এবং সুপারভাইজারকেও ঘটনা থেকে আড়াল করেছেন তিনি। প্রতিবেদন অনুযায়ী, করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে কুকুর খাবার সংকটে পড়েছে। সে জন্য পাঁচটি কুকুর শেডে ঢুকে তিনটি বাচ্চা ও একটি মা হরিণ সাবাড় করেছে বলে লিখিত ওই প্রতিবেদনে উল্লেখ করেছেন  চিড়িয়াখানার তত্ত্বাবধায়ক মাহবুব হোসেন।

কেবল এই একটা কারণ উল্লেখ করে ঘটনাটি ঘটেছে, তারই স্বীকারোক্তিমূলক বর্ণনা দিয়ে প্রতিবেদন দেওয়া হয়েছে বলে উল্লেখ করেন প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ড. এবিএম শরীফ উদ্দিন। দাখিলকৃত ওই প্রতিবেদনের বিষয়ে তিনি বলেন, এখন ওই ঘটনার পেছনে কার দোষ, আর কে নির্দোষ তা তদন্ত করতে একজন কাউন্সিলর এবং একজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটকে দায়িত্ব দেওয়া হবে। তদন্ত কমিটি গঠন করার জন্য প্রতিবেদনটি তিনি কর্পোরেশনের সচিবকে দিয়েছেন। তিনি সময় বেঁধে দিয়ে তদন্ত কমিটি গঠন করে দেবেন। ওই কমিটির তদন্ত রিপোর্ট হাতে পাওয়ার পর প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও জানান রাজশাহী সিটি করপোরেশনের এই প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা।


আরও পড়ুন>>

চিড়িয়াখানার ৪ হরিণ গেলো ক্ষুধার্থ কুকুরের পেটে!

বাংলাদেশ সময়: ০৫১৫ ঘণ্টা, এপ্রিল ০৫, ২০২০ 
এসএস/এসআইএস

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2020-04-05 05:15:30