bangla news

বিদায় নিচ্ছে শীত, ফাল্গুনেই আগুন ঝরা গরম

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০২০-০২-১১ ১২:৫১:৩৮ পিএম
বসন্তের আগমনে প্রকৃতির ছোঁয়া। ছবি: বাংলানিউজ

বসন্তের আগমনে প্রকৃতির ছোঁয়া। ছবি: বাংলানিউজ

ঢাকা: ঋতুচক্রের হিসাবে এ মৌসুমে শীত এসেছিলো পৌষেই, বিদায়ও নিচ্ছে দুই মাস পর। মাঘের শেষে বসন্তের আগমনে প্রকৃতিতে ফাল্গুনের টান পড়েছে। বাড়ছে তাপমাত্রাও।

বাংলা পঞ্জিকার হিসাবে দুইদিন পরই মাঘ শেষে আসছে ফাল্গুন বা ফাল্গুন মাস। এবার সেই ফাল্গুনেই উত্তাপ ছড়াবে সূর্য।

আবহাওয়া অধিদফতরের তথ্যে কয়েক স্থানে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ থাকলেও সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ২৫ থেকে ২৯ ডিগ্রি বিরাজ করছে। মঙ্গলবারও (১১ ফেব্রুয়ারি) তাপমাত্রা টেকনাফে সর্বোচ্চ ২৯ এবং ঢাকাসহ সারাদেশে গড়ে ২৫ থেকে ২৬ ডিগ্রি। আর দুই এক দিনের মধ্যে বিদায় নেবে শৈত্যপ্রবাহ।বসন্তের আগমনে প্রকৃতির ছোঁয়া। ছবি: বাংলানিউজআবহাওয়া কার্যালয় বলছে, দিনের দৈর্ঘ্য বেড়ে যাওয়ায় সূর্যের তাপ দীর্ঘসময় পাচ্ছে প্রকৃতি। ফলে তাপমাত্রা ধীরে ধীরে বাড়ছে।

সকাল ৯টা থেকে আগামী ২৪ ঘণ্টার পূর্বাভাসে বলা হয়, রাজশাহী, পাবনা, যশোর, চুয়াডাঙ্গা, বরিশাল ও মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল অঞ্চলসহ রংপুর বিভাগের ওপর দিয়ে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। একই সঙ্গে তা কিছু কিছু এলাকা থেকে প্রশমিত হতে পারে। এ অবস্থায় ২৪ ঘণ্টায় সারাদেশে রাত ও দিনের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে।

আর ৭২ ঘণ্টার অবস্থায় বলা হয়, এ সময়ের শেষের দিকে তাপমাত্রা বাড়তে পারে। অর্থাৎ ফাল্গুনের শুরুতেই বেশি হবে তাপমাত্রা।বসন্তের আগমনে প্রকৃতির ছোঁয়া। ছবি: বাংলানিউজশৈত্যপ্রবাহের কারণে পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায় সর্বনিম্ন ৭ দশমিক ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড কর হয়, যেখানে ২৪ ঘণ্টায় তাপমাত্রা এক ডিগ্রি বেড়েছে। এছাড়া রাজারহাটে ছিলো আট, চুয়াডাঙ্গায় ৮ দশমিক ৫, শ্রীমঙ্গলে ৯ দশমিক ৩ ডিগ্রি। রাজশাহীতে ৯ দশমিক ৫, রংপুরে ১০ দশমিক ৭, বরিশালে ৯ দশমিক ৮, খুলনায় ১১ দশমিক ৮, ময়মনসিংহে ১২ দশমিক ৬, চট্টগ্রাম ও সিলেটে ১৪ ডিগ্রি করে রেকর্ড করা হয়। আর রাজধানী ঢাকায় ছিলো ১৪ দশমিক ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

বাংলাদেশ সময়: ১২৪৪ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১১, ২০২০
এমআইএইচ/এএটি

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   জীববৈচিত্র্য শীত
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

জলবায়ু ও পরিবেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত

Alexa
cache_14 2020-02-11 12:51:38