bangla news

‘মইরা গেলেও এহান দিয়া যামু না’

শফিকুল ইসলাম খোকন, উপজেলা করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-১১-০৯ ৬:০৪:৩০ পিএম
আশ্রয়কেন্দ্রে যাচ্ছেন মানুষ। ছবি: বাংলানিউজ

আশ্রয়কেন্দ্রে যাচ্ছেন মানুষ। ছবি: বাংলানিউজ

পাথরঘাটার উপকূল ঘুরে এসে: উপকূলজুড়ে চলছে ঘূর্ণিঝড় বুলবুল আতঙ্ক। চলছে ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত। অনেকেই নিরাপদ আশ্রয়ের জন্য ছুটছেন সাইক্লোন শেল্টার, পার্শ্ববর্তী বিদ্যালয় ও নিকটতম আত্মীয়-স্বজনের বাড়িতে। আবার কেউ বসতভিটার মায়া ছেড়ে যেতে চাচ্ছেন না আশ্রয়কেন্দ্রে। 

শনিবার (০৯ নভেম্বর) সকালে উপকূল ঘুরে দেখা গেছে বাসিন্দাদের আশ্রয়কেন্দ্রে ছোটাছুটি আর না যাওয়ার মতো খামখেয়ালিপনা। 

এসময় কথা হয় বিষখালী নদী সংলগ্ন যেখানে প্রথমেই আঘাত হানার কথা সেখানের বাসিন্দা আলেয়া বেগমের (৬০) সঙ্গে। তিনি বলেন, থাকার মতো ভিটেমাটি কিছুই নাই। আছি আবাসনে। মইরা গেলেও এহান দিয়া যামু না। সম্বল আছে মালামাল, হ্যা থুইয়া যামু না। 

আলেয়া বলেন, যদি পারেন আমনেরা (আপনারা) নিরাপদে থাকেন। আপনারা মাইকিং করতে আইছেন, হ্যা মোরা জানি। 

আলেয়ার মতো উপকূলের বেড়িবাঁধ সংলগ্ন অনেক বাসিন্দাই আছেন যারা বসতভিটা রেখে আশ্রয়কেন্দ্রে যেতে চাচ্ছেন না। অথচ শুক্রবার (০৮ নভেম্বর) সন্ধ্যার পর থেকেই সরকারি-বেসরকারিভাবে নিরাপদ আশ্রয়কেন্দ্রে যাওয়ার জন্য মাইকিং করা হচ্ছে। 

পাথরঘাটা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. হুমায়ুন কবির বাংলানিউজকে বলেন, ঝুঁকিপূর্ণ এলাকার বাসিন্দাদের নিরাপদ আশ্রয়কেন্দ্রে শতভাগ নিশ্চিত করার জন্য আমাদের সর্বাত্মক চেষ্টা চলছে।

বাংলাদেশ সময়: ১৮০১ ঘণ্টা, নভেম্বর ০৯, ২০১৯
আরবি/

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   বরগুনা ঘূর্ণিঝড় বুলবুল
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

জলবায়ু ও পরিবেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত

Alexa
cache_14 2019-11-09 18:04:30