bangla news

আষাঢ়ের সামান্য বৃষ্টিতে বেড়েছে ভ্যাপসা গরম

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৭-০৩ ৯:৩০:৪৯ পিএম
বৃষ্টিস্নাত রাজশাহী কলেজ

বৃষ্টিস্নাত রাজশাহী কলেজ

রাজশাহী: মধ্য আষাঢ়েও তাপদাহ বয়ে যাচ্ছে রাজশাহীর ওপর দিয়ে। কাঙ্ক্ষিত বৃষ্টির দেখা মেলেনি গত দুই সপ্তাহেও। মাঝে মধ্যে ছিঁটেফোঁটা বৃষ্টি ঝরছে। কিন্তু তাতে মান ভাঙছে না রুক্ষ প্রকৃতির। সবুজ পত্রপল্লবগুলো যেন আরও তৃষ্ণার্ত হয়ে উঠেছে। দিনভর রোদের প্রখরতা আর রাতের ভ্যাপসা গরম সাধারণ মানুষের স্বাভাবিক জীবনযাত্রাকে করে তুলেছে অসহনীয়।

গ্রীষ্ম আর বর্ষার আবহাওয়াতে কোনো তফাৎই খুঁজে পাচ্ছেন না রাজশাহীর মানুষ! মাঝেমধ্যে হওয়া সামান্য বৃষ্টি স্বস্তির বদলে এনে দিচ্ছে ভ্যাপসা গরম। এতে পদ্মাপাড়ের এই শহরে গরমের চিত্র পাল্টায়নি মোটেও। তাই লাগাতার বর্ষণের প্রতীক্ষায় এখনো দিন-রাত পার করছেন তীব্র গরমে হাঁপিয়ে ওঠা সাধারণ মানুষ।  

মঙ্গলবার (২ জুলাই) সারাদিন আকাশ মেঘলা থাকলেও তেমন বৃষ্টি হয়নি। বিকেল ৫টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত হালকা বৃষ্টি ঝরেছে। তবে এই বৃষ্টিপাতের পরিমাণ ছিল খুবই নগণ্য। আবহাওয়া অফিসের রেইন গেজে (বৃষ্টি পরিমাপক যন্ত্র) মাত্র শূন্য দশমিক ৮ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়। এর পর বুধবার (৩ জুলাই) ভোররাত সাড়ে ৩টা থেকে ভোর ৬টা পর্যন্ত বৃষ্টিপাতের পরিমাণ ছিল ৪ দশমিক ৪ মিলিমিটার।

এরপর  আবার বেলা পৌনে ১২টা থেকে দুপুর ১২টা ২৫ মিনিট পর্যন্ত বৃষ্টিপাত হয়। এই বৃষ্টিপাতের পরিমাণ ছিল শূন্য দশমিক ৪ মিলিমিটার। ফলে মঙ্গলবার থেকে বুধবারের উল্লেখিত সময় পর্যন্ত মোট রাজশাহীতে মাত্র ৬ দশমিক ৬ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। বিকেলে জানতে চাইলে আবহাওয়ার এসব তথ্য বাংলানিউজকে নিশ্চিত করেন রাজশাহী আবহাওয়া অফিসের জ্যেষ্ঠ পর্যবেক্ষক নজরুল ইসলাম। 

জ্যেষ্ঠ পর্যবেক্ষক নজরুল ইসলাম বলেন, বৃষ্টিপাতের পরিমাণ সামান্য। তাই তাপমাত্রার তেমন কোনো হেরফের হয়নি। বুধবার রাজশাহীতে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৪ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়েছে। সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ২৬ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এর আগের দিন মঙ্গলবার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

দেশের বিভিন্ন স্থানে বৃষ্টি হচ্ছে। শুধু রাজশাহীতেই হচ্ছে না। তবে ১০ জুলাইয়ের পর রাজশাহীতে ভারী বর্ষণের সম্ভাবনা রয়েছে বলেও জানান এই আবহাওয়া কর্মকর্তা।

বাংলাদেশ সময়: ২১২৮ ঘণ্টা, জুলাই ০৩, ২০১৯
এসএস/এএ

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

জলবায়ু ও পরিবেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত

Alexa
cache_14 2019-07-03 21:30:49