[x]
[x]
ঢাকা, রবিবার, ৫ কার্তিক ১৪২৫, ২১ অক্টোবর ২০১৮
bangla news

গন্ধগোকুলের পেটের ‘কফি’র চাহিদা সর্বাধিক

বিশ্বজিৎ ভট্টাচার্য বাপন, ডিভিশনাল সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৮-০৭-২০ ১১:০৬:৫১ পিএম
‘গন্ধগোকুল’ এর পেটের প্রক্রিয়াজাত কপি। ছবি: সংগৃহিত

‘গন্ধগোকুল’ এর পেটের প্রক্রিয়াজাত কপি। ছবি: সংগৃহিত

মৌলভীবাজার: অজানা তথ্যে ভরপুর আমাদের প্রাণীজগৎ! কত কী উপকারে আসে তারা। অথচ মানুষকূল কারণে-অকারণে পরিবেশ-প্রতিবেশ ব্যবস্থা ধ্বংস করে সেই নিহির জীববৈচিত্র্যের ধ্বংস করে চলেছে দিনের পর দিন। তেমনি একটি বিপন্ন প্রাণী ‘গন্ধগোকুল’। 

এবার তার সঙ্গে আমাদের নতুন একটি পরিচয় ঘটবে- সুস্বাদু কফির প্রসঙ্গ তুলে ধরে। কফিপ্রেমীরা চমকে উঠলেও এটি প্রমাণিত যে, গন্ধগোকুলের পেটে প্রক্রিয়াকৃত কফি আন্তর্জাতিক মূল্য সর্বাধিক। আর স্বাভাবিকভাবে উৎপন্ন কফির থেকে গন্ধগোকুলের পেটের কফির স্বাদ অনেক বেশি। এটি আন্তর্জাতিকভাবে ‘লুয়াক কফি’ নামে সুপরিচিত। 

গন্ধগোকুল প্রাণীটি ‘তাল খাটাশ’ নামেও পরিচিত। ইংরেজিতে একে Asian Palm Civet বলে এবং এর বৈজ্ঞানিক নাম Paradoxurus hermaphroditus

সম্প্রতি শ্রীমঙ্গলের একটি গন্ধগোকুলের ছবিধারণ এবং এ সম্পর্কিত এর নানা তথ্য আলোচনার একফাঁকে ‘লুয়াক কফি’ এর প্রসঙ্গটি উল্লেখ করেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণিবিদ্যা বিভাগের অধ্যাপক এবং বন্যপ্রাণী গবেষক ড. কামরুল হাসান। 

তিনি বাংলানিউজকে বলেন, এ ‘এশিয়ান পাম সিভিট’ প্রচুর পরিমাণে ফল খায়। আপনি দেখে থাকবেন, ন্যাচারে ওরা যেখানে বসবাস করে এর আশেপাশে তাদের পরিত্যক্ত মলের মধ্যে প্রচুর পরিমাণে বিভিন্ন ফলের ‘সিড’ (বীজ) থাকে। তবে ফল ছাড়া অন্যান্য কিছুও তারা খায়।
‘গন্ধগোকুল’ এর পেটের প্রক্রিয়াজাত কপি। ছবি: সংগৃহিত
এ কফির প্রক্রিয়াজাত বিষয়টি প্রসঙ্গে ড. কামরুল হাসান বলেন, ‘এশিয়ান পাম সিভিট’-কে প্রচুর কফিসিড খাওয়ানো হয়। কফিসিডগুলো যখন গন্ধগোকুল খায় তখন সে ওগুলোকে ‘ডাইজেস্ট’ করতে পারে না। গন্ধগোকুলের পেটে থাকা অবস্থায় কফিগুলো তার শারীরিক রসায়নে ‘ফার্মেনটেশন’ হয়। 

‘দু-একদিন পর যখন সে মলত্যাগ করে তখন স্বাভাবিকভাবে ওই কফিসিডগুলো বের হয়ে যায়। ওই সিডগুলো তখন সংগ্রহ করে বিভিন্ন প্রসেসের মাধ্যমে এক প্রকারের বিশেষ কফি তৈরি করা হয়। এই কফিটি লুয়াক-কফি (Luwak Coffee) নামে পরিচিত। এটি পৃথিবীব্যাপী মোস্ট এক্সপেনসিভ কফি হিসেবে স্বীকৃত।’

লুয়াক কফির প্রতি পাউন্ড (৫০০ গ্রাম) এর মূল্য প্রায় ১০০ ডলার বলে জানান ড. কামরুল হাসান। 

বাংলাদেশ সময়: ০৯০০ ঘণ্টা, জুলাই ২১, ২০১৮
বিবিবি/এসএইচ

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

জলবায়ু ও পরিবেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত

Alexa
cache