ঢাকা, মঙ্গলবার, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২১ মে ২০২৪, ১২ জিলকদ ১৪৪৫

জলবায়ু ও পরিবেশ

জলবায়ু পরিবর্তন

প্রস্তুত নয় ঝুঁকিতে থাকা অধিকাংশ মার্কিন অঙ্গরাজ্য

পরিবেশ-জীববৈচিত্র্য ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১১৩৮ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৬, ২০১৫
প্রস্তুত নয় ঝুঁকিতে থাকা অধিকাংশ মার্কিন অঙ্গরাজ্য

ঢাকা: জলবায়ু পরিবর্তনের ক্ষতিকর প্রভাব মোকাবেলায় প্যারিসে চলছে ‘জলবায়ু সম্মেলন’। উন্নত, উন্নয়নশীল এবং অনুন্নত সব রাষ্ট্রের নেতারাই সেখানে একত্রিত হয়েছেন সমন্বিতভাবে এ চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায়।



ঠিক এ সময় ‘দ্য স্টেটস অ্যাট রিস্ক’ প্রতিবেদনে দেখা যাচ্ছে, ঝুঁকিতে থাকা অধিকাংশ মার্কিন অঙ্গরাজ্যই জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলায় প্রস্তুত নয়।

আইসিএফ ইন্টারন্যাশ নামে একটি কনসালটিং ফার্ম-এর সহযোগিতায় ক্লাইমেট সেন্টার-এর গবেষক দল এ প্রতিবেদন প্রকাশ করে। এতে মার্কিন অঙ্গরাজ্যগুলোকে ‘এ’ থেকে ‘এফ’ গ্রেডে ভাগ করা হয়। এক্ষেত্রে জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলায় প্রস্তুতির স্কেল হিসাবে বিবেচনায় নেওয়া হয় পাঁচটি পরিবেশ ঝুঁকি- অত্যাধিক তাপমাত্রা, খরা, দাবানল, অন্তর্দেশীয় বন্যা ও উপকূলীয় বন্যা।

গবেষণায় দেখা গেছে, সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ অঙ্গরাজ্যগুলোর মধ্যে রয়েছে ক্যালিফোর্নিয়া ও ফ্লোরিডা (উভয় রাজ্য পাঁচটি প্রাকৃতিক দুর্যোগেরই শিকার হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে)। অন্যদিকে টেক্সাস চারটি দুর্যোগের শিকার হতে পারে।

সার্বিক দুর্যোগ ব্যবস্থাপনায় প্রস্তুত রাজ্যগুলোর তালিকায় সবার উপরে রয়েছে ক্যালিফোর্নিয়া। পাঁচটি দুর্যোগ মোকাবেলায় তাদের পর্যাপ্ত প্রস্তুতি রয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে চরম আবহাওয়ার ফলে মার্কিন অর্থনীতি, অবকাঠামো ও জীববৈচিত্র্য ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে। আর সম্ভাব্য দুর্যোগ মোকাবেলায় কেন্দ্রকে তুলনামূলক হারে অনেক বেশি অর্থ ব্যয় করতে হবে- এমন মন্তব্য করেছেন ট্যাক্সপেয়ারস ফর কমন সেনস’র ভাইস প্রেসিডেন্ট স্টেভ এলিইস।

‘আশির দশকে দুর্যোগে যে ক্ষয়ক্ষতি হতো তার পরিমাণ ছিল বছরে এক থেকে তিন বিলিয়ন ডলারের মধ্যে। কিন্তু সম্প্রতি তা বেড়ে বছরে আট বিলিয়ন ডলারের বেশি হয়েছে। দুর্যোগ পরবর্তী দীর্ঘ মেয়াদী খরচ কমানো, জলবায়ু পরিবর্তনের ক্ষতিকর প্রভাব থেকে মুক্তি, রাষ্ট্রের জীববৈচিত্র্য রক্ষায় পরিকল্পনা প্রণয়ন ও পদক্ষেপ নেওয়ার এখনই সময়। নতুবা দুর্যোগ পরবর্তী বড় অংকের চেক লেখা বন্ধ করা সম্ভব হবে না। ’

এখন পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রের প্রায় অর্ধেক সংখ্যক অঙ্গরাজ্যের ভবিষ্যত দুর্যোগ মোকাবেলায় কোনো পরিকল্পনা নেই।

সে হিসাবে সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ রাজ্যগুলোর তালিকায় রয়েছে টেক্সাস, নেভাদা, মিসৌরি, মিসিসিপি ও আরকানসাস। এরা জলবায়ু ও অভিযোজন চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় একেবারেই প্রস্তুত না।

এই রাজ্যগুলোর উচিৎ জনগণকে দুর্যোগকালীন সময়ে করণীয় সম্পর্কে আরও প্রশিক্ষণ দেওয়া।

যদি বিশ্ব নেতারা প্যারিস সম্মেলনে একমত হতে পারেন, তাহলেই কেবল ঝুঁকিপূর্ণ ‍মার্কিন এসব রাজ্যগুলো জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলা করতে পারবে বলে মত বিশেষজ্ঞদের।

বাংলাদেশ সময়: ১১৩৮ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ০৬, ২০১৫
এটি/আরএইচ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।