ঢাকা, শুক্রবার, ২৯ শ্রাবণ ১৪২৭, ১৪ আগস্ট ২০২০, ২৩ জিলহজ ১৪৪১

পরিবেশ ও জীববৈচিত্র্য

‘নারী ভয়ঙ্কর’

জীব বৈচিত্র ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৩৩৪ ঘণ্টা, নভেম্বর ১৭, ২০১২
‘নারী ভয়ঙ্কর’

কিশোর বয়সে তরবারির এক কোপে একটি বাঘ অর্থা‍ৎ শেরকে হত্যা করে শেরশাহ উপাধি লাভ করেছিলেন পরবর্তীতে ভারতের সুলতান শেরশাহ্‌। এ গল্প সবাই জানি।

এবার তাহলে রাশিয়ার ৫৬ বছর বয়সী নারী মাকসুদোভাকে কী নামে ডাকা যায়? কারণ তিনি জীবনের পরন্ত সময়ে, বলা যায় বৃদ্ধত্বের দ্বারপ্রান্তে এসে কুপিয়ে হত্যা করেছেন একটি বিশাল নেকড়ে বাঘকে।


সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত খবরে জানা গেছে, রাশিয়ার উত্তর ককেশাশের পার্বত্য দাগেস্তান প্রদেশে বোনের বাসায় বেড়াতে গিয়েছিলেন আইশাত মাকসুদোভা। সম্প্রতি এক বিকেলে তিনি বাড়ির বাইরে বের হন একটি ভেঙ্গে যাওয়া বেড়া ঠিক করতে। তখন তিনি একা ছিলেন। এসময় ভয়ংকর এক পাহাড়ি নেকড়ে তার ওপর ঝাঁপিয়ে পড়ে। নেকড়েটি তার হাত কামড়ে ধরে। আচমকা মৃত্যুদূতকে সামনে দেখে এবং তার ভয়াবহ আক্রমণে চরম আতঙ্ক গ্রাস করে তাকে। তিনি সাহায্যের জন্য আর্তৎচিকার শুরু করেন। কিন্তু সেসময় আশেপাশে কেউ ছিল না। নেকড়েটি তাকে মাটিতে ফেলে দেয় এবং পায়েও কামড়ে ধরে।

এ পর্যায়ে মাকসুদোভার সামনে রাস্তা খোলা ছিল একটাই— হয় মারো নয় মরো! চকিতে তার মান পড়লো বেড়া মেরামতের জন্য সঙ্গে আনা কুঠারটির কথা। ওই অবস্থায় অনেক কষ্টে দূরে পড়ে থাকা কুঠারটার নাগালে পৌঁছান। এরপর অস্ত্রটাকে হাতে নিয়ে শুরু করেন নেকড়ের মাথা বরাবর একের পর এক কোপ। এই আচমকা পাল্টা আক্রমণে বিভ্রান্ত এবং আঘাতে জর্জরিত নেকড়ে বেটা কমড়ে ধরে রাখা পাটি ছেড়ে তো দেয়ই, অল্পসময়ে ধরাধামও ত্যাগ করে।

চেচনিয়ার পূর্বে কাস্পিয়ান সাগর উপকূলের ওই এলাকায় এখন মাকসুদোভা এক নন্দিত নাম। আহত মাকসুদোভাকে স্থানীয় হাসপাতারে চিকি‍ৎসা দেওয়া হচ্ছে। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, তিনি সেরে উঠছেন দ্রুত।

বাংলাদেশ সময়: ১৩১৮ ঘণ্টা, ১৭ নভেম্বর, ২০১২
একে     

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa