bangla news

মরিতে চাহি না এ সুন্দর ভূবনে

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১২-০৬-১৭ ১১:০১:২৯ এএম

দৃশ্যটা মন খারাপ করে দেয়। মায়ের সঙ্গে উচ্ছ্বল আনন্দে ঘুরে বেড়িয়েছে কিছুক্ষণ আগেও। কিন্তু অমোঘ নিয়তির ফেরে এখন তার নিষ্প্রাণ দেহ পড়ে আছে সোঁদামাটির প্রান্তরে।

জলপাইগুড়ি: দৃশ্যটা মন খারাপ করে দেয়। মায়ের সঙ্গে উচ্ছ্বল আনন্দে ঘুরে বেড়িয়েছে কিছুক্ষণ আগেও। কিন্তু অমোঘ নিয়তির ফেরে এখন তার নিষ্প্রাণ দেহ পড়ে আছে সোঁদামাটির প্রান্তরে। তার যন্ত্রণাক্লিষ্ট চেহারায় স্পষ্ট যে সে কোনোমতেই চায়নি-- এই অনিন্দ্য সুন্দর বসুন্ধরা ছেড়ে যেতে।

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের জলপাইগুড়ি জেলার গরুমারা ন্যাশনাল পার্ক (অভয়াশ্রম) সংলগ্ন নিউ খুনিয়া বস্তি এলাকায় রোববার সকালে হাতির বাচ্চাটিকে মৃত অবস্থায় পাওয়া যায়। কিছুক্ষণ আগে তাকে মায়ের সঙ্গে এলাকায় ঘুরে বেড়াতে দেখা গেছে।

এলাকাবাসী জানান, পাশের অভয়াশ্রম থেকে সকালে খাদ্যের খোঁজে হাতি দু’টি লোকালয়ে চলে আসে। তখন মায়ের সঙ্গে বাচ্চাটিকে ঘোরাফেরা করতে দেখেন তারা। এরপর স্থানীয় লতাগুড়ি রেঞ্জের বনকর্মীরা দুপুরের খাবার খাওয়ার সময়ে হাতি শাবকটির লাশ উদ্ধার করে।      

বাচ্চাটির মৃতদেহ যেখানে পাওয়া যায়, সেখানে একটি বৈদ্যুতিক খুঁটি ক্ষতিগ্রস্ত এবং এর সঙ্গের বিদ্যুৎবাহী তারগুলো ছিন্ন অবস্থায় মাটিতে পড়ে ছিল। অর্থাৎ পরিস্থিতি বিবেচনায় প্রতীয়মান হয়, বিদ্যুতায়িত হয়ে হাতি শাবকটির মৃত্যু হয়েছে। এরপর হাতিটি তার মা-ও সম্ভবত মারাত্মক আহত অবস্থায় প্রাণহাতে কোনোমতে স্থান ত্যাগ করেছে, মৃত সন্তানকে ফেলেই।  

তবে বনবিভাগ মানতে নারাজ হাতি শাবকটি বিদ্যুৎস্পৃষ্টে মারা গেছে। এখন পোস্টমর্টেমের পরই জানা যাবে তার মৃত্যুর প্রকৃত কারণ।

বাংলাদেশ সময় : ২০৪৯ ঘণ্টা, ১৭ জুন, ২০১২

সম্পাদনা : আহ্সান কবীর, আউটপুট এডিটর
ahsan@banglanews24.com

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

জলবায়ু ও পরিবেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত

Alexa
cache_14 2012-06-17 11:01:29