ঢাকা, মঙ্গলবার, ৬ আশ্বিন ১৪২৮, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২ সফর ১৪৪৩

জীবনযাপন

জীবনের বাঁকে বাঁকে মানুষ আল্লাহকে স্মরণ করার সুযোগ পায়

তাফসির সৃষ্টিকর্তায় বিশ্বাস মানুষের সহজাত প্রবৃত্তি। আলোচ্য আয়াতে বিষয়টি একটি বাস্তব উদাহরণ দিয়ে বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে। আত্মার

সুরা ফিল: হস্তীবাহিনীকে ধুলায় মিশিয়ে দেওয়ার বর্ণনা

পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু ১) আপনি কি দেখেননি আপনার পালনকর্তা হস্তীবাহিনীর সঙ্গে কীরূপ ব্যবহার করেছেন? (২) তিনি কি

সব রোগের ওষুধবিশেষ সুরা ফাতিহা

(১) যাবতীয় প্রশংসা আল্লাহ্ তায়ালার যিনি গোটা সৃষ্টিজগতের পালনকর্তা। (২) যিনি নিতান্ত মেহেরবান ও দয়ালু। (৩) যিনি বিচার দিনের মালিক। (৪)

জান্নাতবাসীদের থাকবে বিভিন্ন স্তর

তাফসির: আগের আয়াতে বলা হয়েছিল, মহান আল্লাহ ঈমানদার ও ঈমানহীন সবাইকে দুনিয়ায় রিজিক দিয়ে থাকেন। সবার জন্য আল্লাহর রিজিক অবারিত;

কোরআন তেলাওয়াতে চিন্তা, ভাবনা ও গভীর অভিনিবেশ

কোরআনে আরো বলা হয়েছে, ‘আমি একে নাজিল করেছি শবে-কদরে।’ (সুরা ক্বদর, আয়াত: ০১) আরো ইরশাদ হয়েছে, ‘আমি একে নাজিল করেছি। এক বরকতময় রাতে,

পৃথিবীতে সবার জন্য রিজিক অবারিত

তাফসির: আগের দুই আয়াতে পরকালের কল্যাণকামী ও দুনিয়াপূজারি মানুষের পরিণতির কথা বলা হয়েছে। আলোচ্য আয়াতে উভয় শ্রেণির পার্থিব রিজিক

দুনিয়ার কর্ম অনুযায়ী পরকালে প্রতিদান দেওয়া হবে

তাফসির: আলোচ্য আয়াতে পরকালের সৌভাগ্য ও দুর্ভাগ্য সম্পর্কে মূলনীতি বর্ণনা করা হয়েছে। বলা হয়েছে, মানুষের সফলতার ক্ষেত্রে বাহ্যিক

পরকালে মুক্তির জন্য ঈমান ও যথাযথ নিয়মে আমল জরুরি

তাফসির: পরকালে বিশ্বাসীদের কর্ম ও প্রতিদান সম্পর্কে আলোচ্য আয়াতে বর্ণনা করা হয়েছে। এখানে বলা হয়েছে, যারা আল্লাহর ওপর ঈমান আনে,

পার্থিব অর্জন যাদের মুখ্য, পরকালে তারা রিক্তহস্ত

তাফসির: মানুষ তার কর্ম অনুযায়ী প্রতিফল ভোগ করে। আলোচ্য আয়াত থেকে কর্ম অনুযায়ী মানুষের শ্রেণিবিভাগ বর্ণনা করা হয়েছে। মানুষ দুই

মানুষকে প্রতিদান-শাস্তি দেওয়া সম্পর্কে আল্লাহর নীতি

তাফসির: আগের আয়াতে পরকালের হিসাব-নিকাশ সম্পর্কে বর্ণনা করা হয়েছিল। আলোচ্য আয়াতে পুরস্কার ও আজাব সম্পর্কে তিনটি নীতি উল্লেখ করা

কেয়ামতের দিন প্রত্যেককে নিজের আমলনামা পড়তে বলা হবে

তাফসির: গত পর্বে বলা হয়েছিল, প্রত্যেকের যাবতীয় কৃতকর্ম লিপিবদ্ধ করে রাখা হয়। এই লিপিবদ্ধ দস্তাবেজের নাম আমলনামা। আলোচ্য আয়াতের মূল

মানুষের কর্মগুণে সৌভাগ্য-দুর্ভাগ্য রচিত হয়

তাফসির: মানবকর্মের জবাবদিহি ও হিসাব-নিকাশ সম্পর্কে আলোচ্য আয়াতে বর্ণনা করা হয়েছে। বলা হয়েছে, প্রত্যেক মানুষের কাজকর্মের যাবতীয়

মানুষের যাবতীয় কর্ম আমলনামায় লেখা হয়

তাফসির: আলোচ্য আয়াতে মানবকর্মের জবাবদিহি ও হিসাব-নিকাশ সম্পর্কে বর্ণনা করা হয়েছে। এখানে বলা হয়েছে, প্রত্যেক মানুষের কাজকর্মের

মৃত্যুর পর পুনরায় জীবিত করবেন মহান আল্লাহ

তাফসির: আলোচ্য দুই আয়াতে পরকাল বিষয়ে অবিশ্বাসীদের সংশয় ও সন্দেহের অবসান ঘটানো হয়েছে। এখানে বলা হয়েছে, অবিশ্বাসীরা কিয়ামত ও

অবস্থান বদলানো মানবচরিত্রের বৈশিষ্ট্য

গত পর্বে বলা হয়েছিল, বিপদে পড়লে মানুষ আল্লাহকে ডাকে। আলোচ্য আয়াতে বলা হয়েছে, বিপদ চলে গেলে মানুষ আল্লাহকে ভুলে যায়। দ্রুত সে অবস্থান

বিপদে মানুষ স্রষ্টাকে স্মরণ করে 

তাফসির: সৃষ্টিকর্তায় বিশ্বাস মানুষের সহজাত প্রবৃত্তি। আলোচ্য আয়াতে বিষয়টি একটি বাস্তব উদাহরণ দিয়ে বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে। আত্মার

সুরা আল-ফজর: আল্লাহর কুদরতের পথ প্রদর্শক

(৬) আপনি কি লক্ষ্য করেননি, আপনার পালনকর্তা আদ বংশের ইরাম গোত্রের সঙ্গে কি আচরণ করেছিলেন, (৭) যাদের দৈহিক গঠন স্তম্ভ ও খুঁটির ন্যায়

আন্তরিকতা দিয়ে সুন্নত পালনে একাগ্রতার বার্তা

(১) করাঘাতকারী, (২) করাঘাতকারী কি? (৩) করাঘাতকারী সম্পর্কে আপনি কি জানেন? (৪) যেদিন মানুষ হবে বিক্ষিপ্ত পতঙ্গের মতো (৫) এবং পর্বতমালা হবে

সুরা দ্বোহা: রাসুলকে আরও বেশি নেয়ামত দেয়ার সুখবর

পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু  ১) শপথ পূর্বাহ্নের, (২) শপথ রাত্রির যখন তা গভীর হয়, (৩) আপনার পালনকর্তা আপনাকে ত্যাগ করেননি

সুরা আল বাক্বারাহ: কোরআনের উত্তম আয়াত আয়াতুল কুরসী

পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি। (১) আলিফ লাম মীম। (২) এ সেই কিতাব যাতে কোনই সন্দেহ নেই। পথ প্রদর্শনকারী পরহেযগারদের

এই বিভাগের সর্বাধিক জনপ্রিয়

Alexa