ঢাকা, রবিবার, ৫ আশ্বিন ১৪২৭, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০১ সফর ১৪৪২

ইচ্ছেঘুড়ি

শরৎ এলে | সুমন বিশ্বাস

উপরে আকাশ নীল সাদা সাদা মেঘ, মেঘেদের সাথে ওড়ে অবুঝ আবেগ।   সাদা শাপলার পাপড়িতে রূপসী প্রভাত, শেফালি সুবাস ছড়ায় মেলে সাদা হাত।  

ঈশপের অনুগল্প: তৃষ্ণার্ত পায়রার আবেগ

কিন্তু ওই পানির পাত্রটি আঁকানো ছিল একটি সাইনবোর্ডে। এমনভাবে আঁকানো যে সহজে বোঝার কোনো উপায়ই ছিল না।   পায়রাটি আঁকানো পানির পাত্র

শরতের মেঘনদী | আলমগীর কবির

নদী কানে নিলো গুঁজে সাদা দুল পলকেই কাড়ে মন কচুরির ফুল। শরতের আসমানে দলছুট মেঘ মেঘে লেগে আছে কত না আবেগ! শরতের ফুলবনে কিশোরের দল

ভূতের গলির সেই বাড়িটা | সুমাইয়া বরকতউল্লাহ্

একদিন তারা কেনা বাড়িতে গিয়ে উঠলো। বাড়িটির দেয়ালে ও ছাদে অসংখ্য ছিদ্র। চামচিকারা ওড়াউড়ি করছে। ঘরভর্তি পোকামাকড়ের বাসা। বাড়ির দেয়াল

ঈশপের অনুগল্প: রাখাল ও ছাগলের উপকথা

সে শিস দেওয়া শুরু করলো, ভেঁপুতে ফুও দিলো। কিন্তু কোনো কৌশলেই ঠিক কাজ হচ্ছিল না। ছাগলটি এসব কর্মকাণ্ডের কোনো ভ্রুক্ষেপও করছিল না। 

ঝিঁঝি আর জোনাক মেলা | আবু আফজাল সালেহ

জোনাক যেন পথদিশারি মিটমিটিয়ে জ্বলে পথ দেখাতে ঝিঁঝি পোকার আলো আলো খেলে। ঝিঁঝি পোকা জোনাকি আর আলো সুরের খেলায় হৃদয় আমার যায় হারিয়ে

ধন্য মায়ের কোল | আলেক্স আলীম

বাংলা আমার হার মানে না যতই বাড়ুক পাকি। মনে আছে একাত্তরের  সেই সে পোশাক খাকি! দেশের খ্যাতি বাড়ছে কেবল পিছনে না যাই। বাংলা এখন

রহস্য দ্বীপ (পর্ব-৯১)

অবশ্যই না, জ্যাক বলে। কিছুদিনের মধ্যেই আমাদের এসব বাদ দিতে হবে। তবে যথেষ্ট গরম থাকলে ভালোই লাগে। সেই সপ্তাহে আবহাওয়া সত্যি সত্যি

সোনায় মোড়া দেশ | আলেক্স আলীম

পাখির ডাকে মন ভরে যায় পাখির ডাকে জাগি। বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে আছে মায়ের অনুরাগী।  পাহাড় আমায় সাহস দিলো বিনয় দিলো নদী। এমন দেশে জন্মটা

ঈশপের অনুগল্প: বাবা ও ঝগড়াটে ছেলের দল

এভাবে অনেকদিন চলার পর ভিন্নরকম এক পদক্ষেপ নিলেন ওই বাবা। ঝগড়া যে কতো ভয়ঙ্কর হতে পারে তার শিক্ষা দিতে করলেন পরিকল্পনা।  তারপর

একাত্তরের বীর আমরা | আলেক্স আলীম

বুকের ভেতর বারুদ মোদের সময় মত জ্বলে। মোড়লগিরি চলবে না আর রাজার আসন টলে! কাপ আনবো ঘরে এবার যতই আসুক ঝড়।  বিশ্বসেরা মোড়লরা সব কাঁপে

আসল মামা | বাবলু ভঞ্জ চৌধুরী

ব্যাঙের সামনে বড় একটা শিকড়। আর সাপ গাছের আড়াল থেকে অর্ধেকটা বেরিয়ে আছে। হাঁ-করা মুখ। লকলকে জিভ। কেউ কারো থেকে চোখ সরাচ্ছে না। 

রহস্য দ্বীপ (পর্ব-৯০)

আর মাইক নৌকাটা ডুবিয়ে দিয়ে খুব ভালো একটা কাজ করেছে, নোরা বলে। এখানে একটা নৌকা দেখতে পেলে আমাদের খুঁজে পাওয়ার আগপর্যন্ত ওরা এখানে

এরা-ওরা | মালিপাখি

এরা বলে বেশি বেশি  ওরা বলে কমকম! এরা বলে ডিঙি, টাঙা  ওরা বলে টমটম!! এরা বলে নিরিবিলি  ওরা বলে জমজম  ! এরা বলে ঝিরি ঝিরি  ওরা বলে

পুরান পুতুল | সুমাইয়া বরকতউল্লাহ্

হঠাৎ যখন পড়ল চোখে নিলাম টেনে মনের দুখে পুছে মুছে যতন করে সু-কেসে যেই তুলি; চিঁ চিঁ করে উঠল কেঁদে রাখতে বলে চুলে বেঁধে ছোটোবেলার মতো

হারকিউলিস ও মালগাড়ির চালক

মালগাড়ির দিকে চেয়ে রইলেন আর কিছুই করতে পারছিলেন না। শুধু উঁচু গলায় কান্না করছিলেন। কান্নায় তিনি হারকিউলিসকে ডাকতে শুরু করলেন। 

রহস্য দ্বীপ (পর্ব-৮৯)

আর মজার একটা বালিময় পুঁচকে উঠানের মতো কিছু একটা- এসব দেখে তোমরা দাবি করতে পারো না বাচ্চাগুলো এখানে দিনের পর দিন বসবাস করবার মতো

প্রিয় দেশ | নাজিয়া ফেরদৌস

হেথায় শুধু শান্তি রবে মানুষগুলো মানুষ হবে হাসিমুখে থাকবে সবে কষ্ট হবে শেষ। ভূস্বর্গ এই মাতৃভূমি প্রত্যহ তার চরণ চুমি বুকের মাঝে

হামিংবার্ডের ১০ জানা-অজানা

১. হামিংবার্ড হাঁটতে পারে না। তবে এরাই একমাত্র পাখি যারা সামনে, পেছনে, ওপরে ও নিচে সবদিকেই পূর্ণগতিতে চলাচল করতে পারে। ২.

রহস্য দ্বীপ (পর্ব-৮৮)

বাচ্চারা শোনে, কেউ একজন সরু সুড়ঙ্গের ভেতর পথ হাতড়ে তাদের দিকে এগিয়ে আসছে। আরো সামনে আসতে গেলে পথটা ঠেসে ধরায়, লোকটা যন্ত্রণায় বিড়বিড়

এই বিভাগের সর্বাধিক জনপ্রিয়

Alexa