ঢাকা, শনিবার, ১৪ ফাল্গুন ১৪২৭, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১৫ রজব ১৪৪২

বঙ্গবন্ধু বিপিএল-২০১৯

টানা তৃতীয় ম্যাচে হারলো রংপুর

স্পোর্টস ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২২১৬ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১৮, ২০১৯
টানা তৃতীয় ম্যাচে হারলো রংপুর ছবি: সোহেল সরওয়ার

বঙ্গবন্ধু বিপিএলের ১১তম ম্যাচে মুখোমুখি হয় রংপুর রেঞ্জার্স ও কুমিল্লা ওয়ারিয়র্স। মোস্তাফিজ-সানিদের রংপুরকে ৬ উইকেটে হারিয়ে আসরে দ্বিতীয় জয়ের দেখা পেল সৌম্য-সাব্বিরদের কুমিল্লা। এদিকে নিজেদের তৃতীয় ম্যাচে এসেও জয়ের দেখা পায়নি রংপুর।

বুধবার (১৮ ডিসেম্বর) চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে দিনের প্রথম ম্যাচে টস জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন রংপুর অধিনায়ক মোহাম্মদ নবী। প্রথমে ব্যাট করা রংপুর মোহাম্মদ শাহজাদের ঝড়ো হাফসেঞ্চুরিতে নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে ৮ উইকেট হারিয়ে তোলে ১৮১ রান।

জবাবে, ১৯.৪ ওভারে ৪ উইকেট হারানো কুমিল্লা জয়ের বন্দরে পৌঁছে।

ছবি: সোহেল সরওয়ারব্যাটিংয়ে নেমে শুরুটা দারুণ হয় রংপুরের। উদ্বোধনী জুটিতে আফগানিস্তান ব্যাটসম্যান মোহাম্মদ শাহজাদ ও মোহাম্মদ নাঈম মিলে ৪.২ ওভারে ৪৯ রান তুলে নেন। যদিও এই রানের সিংহভাগই ছিল শাহজাদের। কেননা নাঈম ৮ রানেই রান আউটের শিকার হন।

পরে টম অ্যাবেলের সঙ্গে ছোট আরেকটি জুটি গড়ে শাহজাদ তুলে নেন নিজের ঝড়ো ফিফটি। মাত্র ২১ বলেই হাফসেঞ্চুরির দেখা পান তিনি। আর শেষ পর্যন্ত ২৭ বলে ৭টি চার ও ৪টি ছক্কায় ৬১ করে সানজামুল ইসলামের বলে আউট হন। রংপুরের হয়ে দলনেতা মোহাম্মদ নবী ২৬, টম অ্যাবেল ২৫, লুইস জর্জি ২১ ও নাদিফ চৌধুরী ১৫ রানের ক্যামিও ইনিংস খেলেন। আরাফাত সানি ১৫ রানে অপরাজিত ছিলেন।

ছবি: সোহেল সরওয়ারকুমিল্লার মুজিব উর রহমান সর্বোচ্চ দুটি উইকেট পান। এছাড়া সানজামুল, আল-আমিন হোসেন ও সৌম্য সরকার একটি করে উইকেট ভাগ করে নেন।

১৮২ রানের টার্গেটে কুমিল্লাও শুরুটা দারুণ করে। ৭ ওভারে দুই ওপেনার সৌম্য সরকার এবং ভানুকা রাজাপাকশে তুলে নেন ৬১ রান। সৌম্য ৩৪ বলে ৫টি চার আর একটি ছক্কায় করেন ৪১ রান। রাজাপাকশে চারটি চার আর দুটি ছক্কায় মাত্র ১৫ বলে করেন ৩২ রান।

ছবি: সোহেল সরওয়ারতিন নম্বরে নামা সাব্বির রহমান ৪০ বলে তিনটি চার আর দুটি ছক্কায় করেন ৪৯ রান। শেষ ওভারে কুমিল্লার জয়ের জন্য দরকার হয় ১১ রান। টম অ্যাবেলের প্রথম বলেই ছক্কা হাঁকান ডেভিড মালান। দ্বিতীয় বলে লেগ বাই আর তৃতীয় বলে আউট হন ৭ বলে এক ছক্কায় ১২ রান করা দলপতি দাসুন শানাকা। চতুর্থ বলে বাউন্ডারি হাঁকিয়ে জয় পাইয়ে দেন ডেভিড মালান। তার ব্যাট থেকে আসে অপরাজিত ৪২ রান। মাত্র ২৪ বলে দুটি চার আর তিনটি ছক্কায় এই ইনিংস সাজান ডেভিড মালান।

ছবি: সোহেল সরওয়াররংপুরের মোস্তাফিজ ৪ ওভারে ৩৫ রান দিয়ে তুলে নেন একটি উইকেট। এছাড়া, একটি করে উইকেট পেয়েছেন ৪ ওভারে ২৫ রান দেওয়া মোহাম্মদ নবী এবং ৪ ওভারে ২৬ রান দেওয়া মুকিদুল ইসলাম। টম অ্যাবেল ২.৪ ওভারে ২১ রান দিয়ে পান একটি উইকেট।

বাংলাদেশ সময়: ১৭১৩ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১৮, ২০১৯
এমআরপি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa