ঢাকা: ১৪ দল ভাঙা নিয়ে উদ্বেগের কোনো কারণ নেই। মান-অভিমান আছে। এটা থাকবে। আবার থাকবেও না। এটা কেটেও যাবে। কি নিয়ে মান অভিমান, তা আপনারাও (গণমাধ্যমকর্মীরা) ভালো জানেন। তবে আশা করি খুব শিগগিরই এ অভিমান কেটে যাবে।

">
bangla news

শরিকদের মান-অভিমান শিগগিরই কেটে যাবে

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম | আপডেট: ২০১৯-০২-১৯ ৩:৫৪:১৪ পিএম
শরিকদের মান-অভিমান শিগগিরই কেটে যাবে
সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন ওবায়দুল কাদের

ঢাকা: ১৪ দল ভাঙা নিয়ে উদ্বেগের কোনো কারণ নেই। মান-অভিমান আছে। এটা থাকবে। আবার থাকবেও না। এটা কেটেও যাবে। কি নিয়ে মান অভিমান, তা আপনারাও (গণমাধ্যমকর্মীরা) ভালো জানেন। তবে আশা করি খুব শিগগিরই এ অভিমান কেটে যাবে।

মঙ্গলবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) রাজধানীর তেজগাঁওয়ে সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরে এক মতবিনিময় সভায় সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেন, আমি তো শরিকদের সমালোচনাগুলো ভালোভাবে নিচ্ছি। ১৪ দলের শরিকরা যে মুখ খুলছেন, সমালোচনা করছেন, এটা গণতন্ত্র ও সংসদীয় গণতন্ত্রের জন্য ভালো, ইতিবাচক। সমালোচনা গণতন্ত্রের স্বাস্থ্যের জন্য ভালো হতে পারে। এটাকে গণতন্ত্রের জন্য ইতিবাচক দিক হিসেবে দেখছি। এটা দরকার ছিলো। এতে গণতন্ত্রের চর্চা আরও গতিশীল হবে। সেই দিক থেকে এই সমালোচনা আমরা এনজয় করি।
 
সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টে গণশুনানির অনুমতি প্রসঙ্গে কদের বলেন, তারা সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে গণশুনানি না করে গণতামাশা করবে। তবে তারা যদি গণশুনানি করে তাহলে, ডিএমপি কমিশনারকে বলবো অবস্থা বুঝে ব্যবস্থা নিতে।

উপজেলা নির্বাচনে বিএনপি প্রার্থী না দেওয়া প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, তাদের নেতৃত্ব তৃণমূল মানে না। বিএনপি দল থেকে মনোনয়ন না দিলেও প্রথম দফায় তাদের ২৩ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। দ্বিতীয় দফায়ও ৩৭ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন, এমন তথ্য আমাদের কাছে আছে।

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থীদের করা মামলায় আওয়ামী লীগ রাজনৈতিকভাবে পঙ্গু হয়ে যাবে, নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্নার এমন বক্তব্যের জবাবে কাদের বলেন, আওয়ামী লীগ নয়, মামলা করতে করতে তারা (ঐক্যফ্রন্ট) নিজেরাই পঙ্গু হয়ে যাবে।

ডাকসু নির্বাচনে আওয়ামী লীগ প্যানেল ঠিক করে দেবে কিনা, এমন প্রশ্নের জবাবে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ডাকসুর নির্বাচনকে সামনে রেখে ছাত্রলীগকে একটি শর্ট লিস্ট তৈরি করার জন্য বলা হয়েছে। এছাড়া নেত্রীও (শেখ হাসিনা) আওয়ামী লীগের সিনিয়রদের নিয়ে একটি টিম গঠন করে দিয়েছেন। তারা কাজ করছে। তাই ছাত্রলীগের প্যানেল নিয়ে আশা করি কোনো সমস্যা হবে না।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের প্রধান প্রকৌশলী ইবনে আলম হাসান, অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী রওশন আরা খানম প্রমুখ।

বাংলাদেশ সময়: ১৫৪৮ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১৯, ২০১৯
আরএম/জেডএস

Phone: +88 02 8432181, 8432182, IP Phone: +880 9612123131, Newsroom Mobile: +880 1729 076996, 01729 076999 Fax: +88 02 8432346
Email: news@banglanews24.com , editor@banglanews24.com
Marketing Department: 01722 241066 , E-mail: marketing@banglanews24.com

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

কপিরাইট © 2019-06-19 12:07:50 | একটি ইডব্লিউএমজিএল প্রতিষ্ঠান