ঢাকা: ভারতের গোটা রাজধানী ঘন কুয়াশায় ঢেকে গেছে। এ কারণে দিল্লির ইন্দিরা গান্ধী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে সকল ফ্লাইট উড্ডয়ন বন্ধ রাখা হয়েছে। এছাড়া খারাপ আবহাওয়ায় ফ্লাইট অবতরণেও প্রভাব পড়েছে। একইসঙ্গে গাড়ি এবং ট্রেন চলাচলেও বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে ঘন কুয়াশা।

">
bangla news

ঘন কুয়াশায় দিল্লিতে ফ্লাইট বন্ধ, যান চলাচলেও বিঘ্ন

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম | আপডেট: ২০১৯-০১-১৮ ৯:৪২:৩১ এএম
ঘন কুয়াশায় দিল্লিতে ফ্লাইট বন্ধ, যান চলাচলেও বিঘ্ন
ঘন কুয়াশায় ঢেকে গেছে দিল্লি, ছবি: সংগৃহীত

ঢাকা: ভারতের গোটা রাজধানী ঘন কুয়াশায় ঢেকে গেছে। এ কারণে দিল্লির ইন্দিরা গান্ধী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে সকল ফ্লাইট উড্ডয়ন বন্ধ রাখা হয়েছে। এছাড়া খারাপ আবহাওয়ায় ফ্লাইট অবতরণেও প্রভাব পড়েছে। একইসঙ্গে গাড়ি এবং ট্রেন চলাচলেও বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে ঘন কুয়াশা।

শুক্রবার (১৮ জানুয়ারি) স্থানীয় সময় ভোর ৫টা থেকে নয়াদিল্লিতে কুয়াশার এমন পরিস্থিতি দৃশ্যমান।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যম বলছে, ঘন কুয়াশার কারণে ভোর ৫টা থেকে সকাল ৭টা পর্যন্ত ইন্দিরা গান্ধী বিমানবন্দর থেকে ফ্লাইট ছেড়ে যাওয়া বন্ধ রাখা হয়েছে। এছাড়া অবতরণেও কিছুটা প্রভাব পড়ছে।

একেইসঙ্গে ঘন কুয়াশার কারণে ট্রেন চলাচলেও বিঘ্ন ঘটেছে। দিল্লির অন্তত ১০টি ট্রেনের যাত্রা বিলম্বে হয়েছে।

ছবি ও ভিডিওতে দেখা গেছে, রাজধানীতে আবহাওয়া পরিস্থিতি খুবই খারাপ। সামনের একটু দূরেই শুধু সাদা দেখা যাচ্ছে। রাজপথের গাড়িগুলো তাদের সবগুলো লাইট জ্বালিয়েও এগোতে পারছে না। ধীরে ধীরে চলছে বিভিন্ন যানবাহন। তাছাড়া সড়কে দুর্ঘটনার আশঙ্কাও করছে কর্তৃপক্ষ।

ভারতীয় আবহাওয়া অধিদফতর জানিয়েছে, দিল্লি ছাড়াও অন্যান্য রাজ্যে ঘন কুয়াশার কারণে জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। এছাড়া শনি ও রোববার (১৯ ও ২০ জানুয়ারি) ঘন থেকে আরও ঘন কুয়াশার প্রভাব পড়তে পারে পশ্চিমা উত্তর প্রদেশ, হারিয়ানা, রাজস্থান এবং উত্তরাখণ্ডে।

এদিকে, পূর্বাঞ্চলের আসাম, মেঘালয় এবং ত্রিপুরা রাজ্যেও ঘন কুয়াশা দেখা দিতে পারে বলে আবহাওয়া অফিস সতর্ক করে দিয়েছে।

বাংলাদেশ সময়: ২১৩০ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১৮, ২০১৯
টিএ

Phone: +88 02 8432181, 8432182, IP Phone: +880 9612123131, Newsroom Mobile: +880 1729 076996, 01729 076999 Fax: +88 02 8432346
Email: news@banglanews24.com , editor@banglanews24.com
Marketing Department: 01722 241066 , E-mail: marketing@banglanews24.com

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

কপিরাইট © 2019-05-25 20:35:28 | একটি ইডব্লিউএমজিএল প্রতিষ্ঠান