bangla news

সবজির দাম নিয়ে চিন্তিত কৃষক

বেলাল হোসেন, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম | আপডেট: ২০১৮-১১-০৬ ৯:৫৭:২৩ এএম
সবজির দাম নিয়ে চিন্তিত কৃষক
বিক্রির জন্য হাটে আনা ফুলকপি, ছবি: বাংলানিউজ

বগুড়া: বগুড়ার শিবগঞ্জ উপজেলাসহ আশ-পাশের গ্রামের অসংখ্য কৃষক তাদের জমিতে উৎপাদিত রকমারি টাটকা সবজি নিয়ে ঐতিহ্যবাহী মহাস্থান হাটে বিক্রি করতে আসেন।

মৌসুমের প্রথমদিকে সবজির দাম ভালো ছিলো। এরপর ধীরে ধীরে সবজির দাম কমতে থাকে এই পাইকারি বাজারে। বিশেষ করে গেলো সপ্তাহে পাইকারি বাজার দর অনুযায়ী প্রায় সব সবজির দাম কমেছে অনেকটা বেশি। সবমিলে শীতকালীন সবজির দাম নিয়ে চিন্তিত হয়ে পড়েছেন কৃষকরা।
 
বুলু মিয়া, সামছুর রহমান, ফজলুল হকসহ বেশ কয়েকজন কৃষক বাংলানিউজকে জানান, ঐতিহ্যবাহী মহাস্থান হাট সবজির বৃহৎ মোকাম। এখানে ঢাকা, সিলেট, চট্টগ্রামসহ দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে ব্যাপারী আসেন সবজি কিনতে। এছাড়া স্থানীয় ব্যাপারীরা তো আছেনই। তবে লাভজনকখ্যাত শীতকালীন সবজির দাম পাওয়া নিয়ে তাদের মত অনেক কৃষকই হতাশা ব্যক্ত করেন।বিক্রির জন্য হাটে আনা সবজি, ছবি: বাংলানিউজ
 আব্দুল মালেক ও শহিদুল ইসলাম কৃষক বাংলানিউজকে বলেন, গেলো সপ্তাহে প্রতিমণ ফুলকপি ১৫০০-১৬০০ টাকা করে বিক্রি করেছি। অথচ সোমবার (৫ নভেম্বর) একই পরিমাণ ফুলকপি ৭৫০-৮০০ টাকায় বিক্রি করতে হচ্ছে। একইভাবে গেলো সপ্তাহে প্রতিমণ বেগুণ ৫৫০-৬০০ টাকা দরে বিক্রি হয়েছে। বর্তমানে তা ১৮০-২০০ টাকা দরে বিক্রি করতে হচ্ছে।
 
কৃষকরা বাংলানিউজকে জানান, ফুল-বাঁধাকপি, মুলা, করলা, শিম, লাউ, কাঁচা মরিচ, গাঁজর, পটল, ঢেঁড়শ, লাল-পালংশাক হাটে বিক্রি করতে নিয়ে আসছেন কৃষকরা। কিন্তু পাইকারি দর অনুযায়ী অনেকটা কম দামেই তারা সবজি বিক্রি করতে বাধ্য হচ্ছেন।
 
হাটে খোঁজখবর নিয়ে জানা যায়, সবজু বেগুন প্রতিমণ ৫৫০-৬০০ টাকা, লাল বেগুন ১৮০-২০০ টাকা, ১শ’ পিস বাঁধাকপি ১৩০০-১৪০০ টাকা, মূলা প্রতিমণ ১৯০-২০০ টাকা, ১শ’ পিস লাউ ১৮০০-২০০০ টাকা, প্রতিমণ করলা ৯০০-১০০০ টাকা, শিম ১১০০-১২০০ টাকা, পটল ৩৮০-৪০০ টাকা পাইকারি দরে বিক্রি হচ্ছে।
 
বাংলাদেশ সময়: ০৯১৫ ঘণ্টা, নভেম্বর ০৬, ২০১৮
এমবিএইচ/এএটি

Phone: +88 02 8432181, 8432182, IP Phone: +880 9612123131, Newsroom Mobile: +880 1729 076996, 01729 076999 Fax: +88 02 8432346
Email: news@banglanews24.com , editor@banglanews24.com
Marketing Department: 01722 241066 , E-mail: marketing@banglanews24.com

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

কপিরাইট © 2019-04-19 15:20:16 | একটি ইডব্লিউএমজিএল প্রতিষ্ঠান