ঢাকা, সোমবার, ২ মাঘ ১৪২৮, ১৭ জানুয়ারি ২০২২, ১৩ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

বাহরাইন

৭ নভেম্বর উপলক্ষে বাইরাইন বিএনপির সভা

পলিটিক্যাল ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৯৩৬ ঘণ্টা, নভেম্বর ৭, ২০১৫
৭ নভেম্বর উপলক্ষে বাইরাইন বিএনপির সভা ছবি : বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ঢাকা: ৭ নভেম্বর উপলক্ষে আলোচনা সভার আয়োজন করেছে বিএনপির বাইরাইন শাখা।

শনিবার (৭ নভেম্বর) মানামার একটি মিলনায়তনে এ সভার আয়োজন করা হয়।



এতে সভাপতিত্ব করেন স্থানীয় বিএনপির সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার মো. জাহাঙ্গীর তরফদার। সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন বাইরাইন বিএনপির উপদেষ্টা আবুল বশর। বিশেষ অতিথি ছিলেন হারুনুর রশিদ মাস্টার, আব্দুল গনি মজুমদার, জিল্লুর রহমান ও আব্দুল আজিজ সিকদার।

এতে আরও উপস্থিত ছিলেন মানামা বিএনপির নেতা সৈয়দ আহমদ, আলমগীর হোসেন মজুমদার, মো. সেলিম আহমেদ, মো. জাহঙ্গীর আলম, শামছুজ্জামান রাজু, জাহেদুল ইসলাম জগলু, মো. ওমর ফারুক, মো. হাসেম, শারমিন আরিফ, আল আমিন, আলমগীর ও আরিফ রানা।

এছাড়াও ছিলেন হরুনুর রশিদ, আব্দুল্লাহ, সোহেল, মো. শরিফ উদ্দিন, সাইফুল ইসলাম, শহিদুল ইসলাম সরকার, ওমর ফারুক, মামুন চৌধুরী, নুর আলম প্রমুখ।

সভায় বক্তারা বলেন, জিয়াউর রহমানের এদেশের দু‘টি ক্রান্তিলগ্নে ইতিহাসের গতি-প্রকৃতি নির্ধারণে নিয়ামাকের ভূমিকা পালন করেন। একটি ১৯৭১ সালের ২৭ মার্চে, অন্যটি ১৯৭৫ সালের ৭ নভেম্বর। এই দুই ক্ষেত্রেই দায়িত্ব পালনে তিনি প্রস্তুত ছিলেন না। তবে দুই ক্ষেত্রেই দায়িত্ব পালনে সফল হয়েছেন এবং ইতিহাস সৃষ্টি করেছেন।

তারা বলেন, পঁচাত্তরের ৩ নভেম্বর দেশি-বিদেশি চক্রান্তকারীরা যখন বাংলাদেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব নিয়ে ছিনিমিনি খেলছিল, ঠিক তখন এই ৭ নভেম্বরেই এ দেশের সাধারণ জনগণ ও সশস্ত্রবাহিনী ওই ষড়যন্ত্রকারীদের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ায় এবং চক্রান্তকারীদের চূড়ান্তভাবে পরাজিত করে। সিপাই জনতা সম্মিলিতভাবে ও বিপ্লবের মাধ্যমে জিয়াউর রহমানকে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত করে। তিনি দায়িত্ব নেওয়ার পরে দেশে দ্রুত শান্তি ফিরে আসে, সুরক্ষিত হয় দেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব।

এজন্য ৭ নভেম্বর বাংলাদেশের রাজনৈতিক ইতিহাসে এক অবিস্মরণীয় দিন বলেও উল্লেখ করেন বক্তারা।
 
সভায় জাতীয়তাবাদী প্রচার দল গঠিত হয়। ১৭ সদস্য বিশ্যিষ্ট প্রচার দলের কমিটির অনুমোদন দেন বাহরাইন বিএনপির সভাপতি জাহাঙ্গীর তরফদার।

বাহরাইন প্রচার দলের উপদেষ্টা হিসেবে রয়েছেন হারুনুর রশিদ মাস্টার, আব্দুল গনি মজুমদার, মো. সেলিম হোসেন, মো. সোহেল ও আবদুল্লাহ। পৃষ্ঠপোষক হিসেবে আছেন সৈয়দ আহমদ।

প্রচার দলের সদস্যরা হলেন মো. আবু সাইদ রুবেল, মো. নজরুল ইসলাম, মো. আলাউদ্দিন গাজী, রফিক ছালামত, সফিকুল ইসলাম, মো. জহির গাজী, মো. সাইদ, মো. রিয়াদ, অলিউর রহমান, শাহাদাত, ইউনুছ, নাজিম, ইয়াছিন, মো. বাবুল মিঝি, ইয়াছিন প্রধান, সেলিম, তাজুল ইসলাম প্রমুখ।

বাংলাদেশ সময়: ১৯৩৬ ঘণ্টা, নভেম্বর ০৭, ২০১৫
এইচএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa