ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৬ চৈত্র ১৪২৯, ৩০ মার্চ ২০২৩, ০৭ রমজান ১৪৪৪

এভিয়াট্যুর

ভাড়া বাড়ছে এয়ার এশিয়ার, ব্যর্থ হচ্ছে কেএলআইএ’তে আসার চেষ্টাও

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০৫৪ ঘণ্টা, নভেম্বর ২, ২০১৬
ভাড়া বাড়ছে এয়ার এশিয়ার, ব্যর্থ হচ্ছে কেএলআইএ’তে আসার চেষ্টাও

ঢাকা: অন্য যে কোন রুটের দূরত্বের তুলনায় ঢাকা-কুয়ালালামপুর রুটে এয়ার এশিয়ায় ভাড়া বেশি। তবে আগামী বছরের শুরুর দিন থেকেই এই ভাড়া আরও বাড়ছে এয়ার এশিয়ার।

জানা গেছে, কুয়ালালামপুর ইন্টারন্যাশনাল এয়ারপোর্ট ও কুয়ালালামপুর ইন্টারন্যাশনাল এয়ারপোর্ট-২ (কেএলআইএ এবং কেএলআইএ-২) কুয়ালালামপুরের এই দুটি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরেই যাত্রী পরিবহনের চার্জ (পিএসসি) বৃদ্ধি পাচ্ছে। তবে তুলনামূলক কেএলঅাইএ-২ তেই চার্জ বৃদ্ধি পাচ্ছে অনেক বেশি। আর ঢাকা থেকে কেএলআইএ-২ এ শুধুমাত্র এয়ার এশিয়াই ল্যান্ডিং করে। তাই যাত্রী পরিবহনের চার্জ বৃদ্ধির কারণেই বিমান ভাড়াও বৃদ্ধি পাবে।

জানা গেছে, কেএলআইএ-২ এ বর্তমানে প্যাসেঞ্জার সার্ভিস চার্জ আর্ন্তজাতিক রুটে ৩২ রিঙ্গিত (৬৪০ টাকা)। এই চার্জ বৃদ্ধি পেয়ে হচ্ছে ৫০ রিঙ্গিত (১ হাজার টাকা)। অর্থাৎ চার্জ বাড়ছে ১৮ রিঙ্গিট। ২০১৭ সালের জানুয়ারির এক তারিখ থেকে এই চার্জ কার্যকর হবে। ফলে এই ১৮ রিঙ্গিট ভাড়া বাড়ানোর চার্জ যাত্রীদেরই বহন করতে হবে।

এমনিতেই ঢাকায় শাহজালাল আর্ন্তজাতিক বিমানবন্দরের হ্যান্ডেলিং চার্জের দোহাই দিয়ে অন্য রুটের তুলনায় এয়ার এশিয়ার যাত্রীদের কাছ থেকে এমনিতেই অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করছে টোটাল এয়ার সার্ভিসেস লিমিটেড। এর উপর কুয়ালালামপুরে প্যাসেঞ্জার সার্ভিস চার্জ বাড়লে পুরো ভাড়া আরো বেড়ে যাবে বলেই জানিয়েছে সূত্র। বর্তমানে এয়ার এশিয়ায় ঢাকা-কুয়ালালামপুরে রির্টান ফ্লাইটে ভাড়া ২৫ হাজার টাকা।

এদিকে কেএলআইএ-২ এর পিএসসি বাড়ার কারণে কুয়ালালামপুরের মূল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর কেএলআইএ ও কেএলআইএ-২ এর মধ্যে পিএসসির পার্থক্য খুব একটা থাকছে না। অথচ দুই বিমানবন্দরের মধ্যে যাত্রীসেবার পার্থক্য আকাশপাতাল।

তাই এই সুযোগে এয়ার এশিয়াসহ কেএলআইএ-২ এ অবতরণ করা অন্যান্য বাজেট এয়ারলাইন্সগুলো এখন থেকে কেএলআইএ তে অবতরণের অনুমতি চেয়েছে কর্তৃপক্ষের কাছে।

এর অংশ হিসেবে গত সোমবার (৩১ অক্টোবর, ২০১৬) এক বিবৃতিতে এয়ার এশিয়া বলেছে, কেএলআইএ এবং কেএলআইএ-২ এর সার্ভিস এক নয়। মেইন টার্মিনালে যাত্রীদের জন্যে সুবিধা অনেক বেশি।  

তবে সূত্র জানিয়েছে, এয়ার এশিয়াকে কেএলআইএ'তে আসতে দেয়ার সম্ভাবনা বেশ ক্ষীণ। কারণ ইতিমধ্যেই কেএলআইএ তার ধারণ ক্ষমতা ছাড়িয়ে গিয়েছে। তবে যেসব বিমানে প্রথম শ্রেণীর সেবা রয়েছে সেগুলোর বিষয়টি ভেবে দেখবে কর্তৃপক্ষ।

কিন্তু যেহেতু বাংলাদেশে সর্বনিম্ন শ্রেণীর বিমান পরিচালনা করে এয়ার এশিয়া এবং তাদের বাংলাদেশি এজেন্ট প্রতিষ্ঠান টোটাল এয়ার সার্ভিসেস লিমিটেড। ফলে ঢাকার ফ্লাইট আগের মতোই কেএলআইএ-২ তেই থাকছে। এতে যাত্রীদের ভাড়া বাড়লেও সেবা বাড়বে না।

বাংলাদেশ সময়: ২০৪৬ ঘণ্টা, নভেম্বর ০২, ২০১৬
এমএন/আরআই

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa