ঢাকা, বুধবার, ৫ আষাঢ় ১৪৩১, ১৯ জুন ২০২৪, ১১ জিলহজ ১৪৪৫

এভিয়াট্যুর

সিভিল অ্যাভিয়েশন প্রশিক্ষণ একাডেমি এখন সিলভার ক্যাটাগরিতে

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট  | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬১১ ঘণ্টা, মে ৩, ২০২৪
সিভিল অ্যাভিয়েশন প্রশিক্ষণ একাডেমি এখন সিলভার ক্যাটাগরিতে

ঢাকা: সিভিল অ্যাভিয়েশন প্রশিক্ষণ একাডেমি (সিএটিসি) প্রশিক্ষণের ক্ষেত্রে মানের উন্নয়ন ঘটিয়েছে। এ জন্য প্রশিক্ষণ একাডেমি ব্রোঞ্জ ক্যাটাগরি থেকে উন্নীত হয়েছে সিলভার ক্যাটাগরিতে।

বাংলাদেশ বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের (বেবিচক) উপ-পরিচালক (জনসংযোগ) মোহাম্মদ সোহেল কামরুজ্জামান এক বিজ্ঞপ্তিতে শুক্রবার (০৩ মে) এ তথ্য জানান।

বেবিচকের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, আধুনিক ও প্রযুক্তিনির্ভর অ্যাভিয়েশন খাতের দক্ষ ও কারিগরি জ্ঞানসম্পন্ন জনবল তৈরিতে সিভিল অ্যাভিয়েশন একাডেমি গত দুই বছরেরও বেশি সময় ধরে ইন্টারন্যাশনাল সিভিল অ্যাভিয়েশন অরগানাইজেশনের (আইকাও) সক্রিয় সহযোগিতায় প্রশিক্ষণের মানোন্নয়নে কাজ করে চলেছে।  

মান বজায় রেখে পরিচালিত হওয়ায় আইকাও সিভিল অ্যাভিয়েশন একাডেমিকে প্রাথমিক তথা ব্রোঞ্জ ক্যাটাগরি থেকে সিলভার ক্যাটাগরিতে উন্নীত করেছে। চারদিনের এক সিম্পোজিয়ামে গত ১ মে  আইকাও প্রেসিডেন্ট ও সেক্রেটারি জেনারেল সিভিল অ্যাভিয়েশন একাডেমির আইকাও ট্রেইনএয়ার প্লাস সিলভার পদক বেবিচকের চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল মো. মফিদুর রহমানের কাছে হস্তান্তর করেন।  

এবারের সিম্পোজিয়ামের মূল প্রতিপাদ্য বিষয় ছিল- আইকাও সদস্য রাষ্ট্রগুলোর সিভিল অ্যাভিয়েশনের সক্ষমতা বৃদ্ধি ও নিরাপদ আকাশ ভ্রমণ নিশ্চিত করতে অঙ্গীকারবদ্ধ।

বেবিচক চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল মো. মফিদুর রহমানের নেতৃত্বে সদস্য (ফ্লাইট স্ট্যান্ডার্ড অ্যান্ড রেগুলেশন) এয়ার কমোডর শাহ কাওছার আহমেদ চৌধুরী ও পরিচালক (সিভিল অ্যাভিয়েশন একাডেমি) প্রশান্ত কুমার চক্রবর্তী সিম্পোজিয়ামে অংশ নেন। এ ছাড়া সদস্যভুক্ত ২০টি দেশের বেসামরিক বিমান পরিবহন মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী, শতাধিক দেশের সিভিল অ্যাভিয়েশন সংস্থার প্রধান নির্বাহীসহ বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তারা এতে অংশ নেন।

বেবিচক চেয়ারম্যান আইকাও সেক্রেটারি জেনারেল হোয়ান কার্লোস সালাজারের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন। দ্বিতীয় মেয়াদে নিয়োগ পাওয়ায় বাংলাদেশের পক্ষ থেকে তাকে আন্তরিক অভিনন্দন জানান তিনি।  

আইকাও সেক্রেটারি জেনারেল বাংলাদেশে সিভিল অ্যাভিয়েশন কার্যক্রমের কলেবর বাড়ানো ও নিরাপদ যাত্রী সেবায় নেওয়া পদক্ষেপের ভূয়সী প্রশংসা করেন এবং বাংলাদেশের প্রতি সহায়তা অব্যাহত রাখার আশ্বাস দেন।  

বেবিচক চেয়ারম্যান কয়েকটি দেশের সিভিল অ্যাভিয়েশন প্রধানদের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন ও দ্বিপক্ষীয় সহযোগিতা, আকাশ যোগাযোগ উন্নয়ন ও ভবিষ্যতে আইকাও কাউন্সিলে বাংলাদেশের সদস্যপদ লাভে বন্ধুপ্রতিম রাষ্ট্রসমূহের সমর্থন লাভের বিষয়ে আলোচনা করেন।  

বেবিচক ও আইকাওয়ের মধ্যে বিদ্যমান ম্যানেজমেন্ট সার্ভিস অ্যাগ্রিমেন্ট পুনঃস্বাক্ষরিত হয়। বেবিচকের চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল মো. মফিদুর রহমান ও আইকাও সেক্রেটারি জেনারেল জুয়ান কার্লোস সালাজার এতে সই করেন।

সিম্পোজিয়ামে সিভিল অ্যাভিয়েশন একাডেমির উন্নয়নকল্পে আইকাওয়ের গ্লোবাল অ্যাভিয়েশন ট্রেনিংয়ের সঙ্গে বেবিচকের বিস্তারিত আলোচনা হয়। প্রথমবারের মতো বাংলাদেশ থেকে সিভিল অ্যাভিয়েশন একাডেমির পরিচালক প্রশান্ত কুমার চক্রবর্তী আইকাও আইএসডি সার্টিফাইড ইনস্ট্রাক্টর সনদ লাভ করেন। আইকাওয়ের গ্লোবাল অ্যাভিয়েশন ট্রেনিংয়ের প্রধান সনদ তুলে দেন। এর ফলে বাংলাদেশি কোনো প্রশিক্ষক দেশে-বিদেশে আইকাও প্রণীত আন্তর্জাতিক অ্যাভিয়েশন ট্রেনিং দেওয়ার যোগ্যতা অর্জন করলেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৬০৪ ঘণ্টা, মে ০২, ২০২৪
এমআইএইচ/আরএইচ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।