ঢাকা, সোমবার, ২১ ফাল্গুন ১৪৩০, ০৪ মার্চ ২০২৪, ২২ শাবান ১৪৪৫

এভিয়াট্যুর

বিমানের হাফ ম্যারাথনে বিজয়ীদের পুরস্কার তুলে দিলেন প্রতিমন্ত্রী

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১১২৬ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ৩, ২০২৩
বিমানের হাফ ম্যারাথনে বিজয়ীদের পুরস্কার তুলে দিলেন প্রতিমন্ত্রী

ঢাকা: মুজিব’স বাংলাদেশ বিমান হাফ ম্যারাথনের বিজয়ীদের পুরস্কার তুলে দিলে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী এম মাহবুব আলী।

শুক্রবার (০৩ ফেব্রুয়ারি) রাজধানীর হাতিরঝিলের এম্ফিথিয়েটারে প্রধান অতিথি হিসেবে প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন তিনি।

মাহবুব আলী বলেন, আপনারা জানেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান দেশ স্বাধীন হওয়ার পরেই যোধপুরের মহারাজার দেওয়া সেই ডাকোটা বিমান দিয়েই বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের যাত্রা শুরু। আজ বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমাদের বিমানবহর তারুণ্যদ্বীপ্ত বহর।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন ছিল বাংলাদেশের জাতীয় পতাকাকে ধারণ করে বিশ্বের সমস্ত শহরগুলোতে বিশেষ করে উন্নত বিশ্বে বিমান যাবে এবং বিশ্বের উন্নত যে এয়ারপোর্টগুলো, সেখানেও বিমান প্রতিনিধিত্ব করবে বাংলাদেশের। সেই স্বপ্ন বাস্তবে রূপ দিতে আমরা টরেন্টো ফ্লাইট চালু করেছি। নারিতায় আমরা ফ্লাইট চালু করব। এর বাইরেও চেন্নাই, গুয়াংজুতে আমরা ফ্লাইট চালু করেছি। মালে, অস্ট্রেলিয়ায় বিমানের ফ্লাইট চালু করার চিন্তাভাবনা আমাদের আছে। সবকিছু মিলিয়ে আমাদের বিমানবহর সম্প্রসারিত হচ্ছে। বিমানের যাত্রীসেবা উন্নয়নেও আমরা বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছি।

বিমান পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান মোস্তফা কামাল উদ্দীন বলেন, সদ্য স্বাধীন দেশ বাংলাদেশকে পরিচিত করার জন্য সর্বপ্রথম জাতির পিতা দুটি প্রতিষ্ঠানের ওপর সর্বাধিক গুরুত্ব দিয়েছিলেন। একটি হলো বাংলাদেশ বিমান, আরেকটি বাংলাদেশ শিপিং কর্পোরেশন। বাংলাদেশকে বিশ্বের বুকে ব্র্যান্ডিং করছে বিমান। ভবিষ্যতে বিমান পুরো পৃথিবীতে ছড়িয়ে পড়বে। কিছুদিন পর তৃতীয় টার্মিনাল যখন চালু হবে আমরা বিশ্বাস করি বিমানের কলেবর আরও বৃদ্ধি পাবে, সেবা আরও বৃদ্ধি পাবে, বহরেও আরও নতুন-নতুন প্লেন যোগ হবে।

বিমানের সিইও এবং এমডি শফিউল আজিম বলেন, বিমান ৫১ বছর পূরণ করেছে। আপনারা জানেন, বাংলাদেশ বিমান পৃথিবীর ২১টি গন্তব্যে এখন তার যাত্রা অব্যাহত রেখেছে। সামনে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে আমাদের নেটওয়ার্ক আমরা সম্প্রসারণ করব।

মুজিবস বাংলাদেশ বিমান হাফ ম্যারাথনে সাড়ে ৭ কিলোমিটার ম্যারাথন দৌড়ে প্রথম স্থান অর্জন করেন সাজ্জাদ হোসেন স্নিগ্ধ, তার টাইমিং ছিল ২৪ মিনিট ৫৫ সেকেন্ড। দ্বিতীয় স্থান অর্জন করেন তোফায়েল আহমেদ, তার টাইমিং ছিল ২৪ মিনিট ৫৬ সেকেন্ড। তৃতীয় স্থান অর্জন করেন আশরাফুল আলম, তার টাইমিং ছিল ২৫ মিনিট ৪২ সেকেন্ড। বিজয়ীরা যথাক্রমে ৫০ হাজার, ৩০ হাজার, ২০ হাজার টাকা প্রাইজমানি হিসেবে পেয়েছেন।

একই বিভাগে নারী ক্যাটাগরিতে প্রথম হয়েছেন আফসানা হালিম, তার টাইমিং ছিল ৩৬ মিনিট ০১ সেকেন্ড। ৩৬ মিনিট ০২ সেকেন্ড দৌড়ে দ্বিতীয় হয়েছেন স্নেহা জান্নাত এবং তৃতীয় হয়েছেন রিয়া আক্তার, তার টাইমিং ছিল ৩৬ মিনিট ৩৮ সেকেন্ড।

অন্যদিকে, ২১.১ কিলোমিটার পুরুষ ক্যাটাগরিতে প্রথম হন মো. ইলাহী সরদার, তার টাইমিং ছিল ১ ঘণ্টা ১২ মিনিট। দ্বিতীয় স্থান অর্জন করেন ফরিদ মিয়া, তার টাইমিং ছিল ১ ঘণ্টা ১৩ মিনিট, তৃতীয় স্থান অর্জন করেন মো. আলামিন, তার টাইমিং ছিল ১ ঘণ্টা ১৪ মিনিট। বিজয়ীরা যথাক্রমে ৭০ হাজার, ৫০ হাজার এবং ৩০ হাজার টাকা প্রাইজমানি হিসেবে পেয়েছেন।  

নারী ক্যাটাগরিতে প্রথম স্থান অর্জন করেন পাপিয়া খাতুন, তার টাইমিং ছিল ১ ঘণ্টা ৪০ মিনিট, দ্বিতীয় স্থান অর্জন করেন হামিদা আক্তার, তার টাইমিং ছিল ১ ঘণ্টা ৪২ মিনিট, ৩য় স্থান অর্জন করেন নাসরীন বেগম, তার টাইমিং ছিল ১ ঘণ্টা, ৪৪ মিনিট।

২১.১ কিলোমিটার দৌড়ে বয়স্ক ক্যাটাগরিতে ওয়াহাব খান প্রথম হয়েছেন। দ্বিতীয় হয়েছেন জসিম উদ্দিন এবং তৃতীয় হয়েছেন মো. আমিনুর রহমান।  

বাংলাদেশ সময়: ১১২৫ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ০৩, ২০২৩
এমকে/এসআইএস 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
welcome-ad