bangla news

একুশে গ্রন্থমেলার শেষ সময়ে এসে বেড়েছে বই বিক্রি

ফিচার রিপোর্টার | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০২০-০২-২৭ ৯:১৯:৪৬ পিএম
অমর একুশে গ্রন্থমেলা। ছবি: ডি এইচ বাদল/বাংলানিউজ

অমর একুশে গ্রন্থমেলা। ছবি: ডি এইচ বাদল/বাংলানিউজ

গ্রন্থমেলা প্রাঙ্গন থেকে: দেখতে দেখতে শেষ সময়ে চলে এসেছে অমর একুশে গ্রন্থমেলা। প্রথম দিন থেকেই দর্শনার্থীদের ভিড় থাকলেও বেচা-বিক্রি ছিলো না তেমন। পরে সময়ের সঙ্গে সঙ্গে বাড়ে বই বিক্রি। মেলার শেষ সময়ে এখনো প্রতিদিনই প্রকাশিত হচ্ছে নতুন নতুন বই।

বৃহস্পতিবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) মেলা ঘুরে দেখা যায়, মেলায় আসা বেশির ভাগ দর্শনার্থীদের হাতে নতুন কেনা বইয়ের ব্যাগ। কারো দু'হাতে আবার কারো পরিবারের সবার হাতে বইয়ের ব্যাগ। মেলা ঘুরে ঘুরে পছন্দের লেখকের বই কিনছেন তারা। আগে থেকেই পছন্দ করে রাখা বইয়ের পাশাপাশি মেলায় দেখে পছন্দ করে বই কিনছেন অনেকে।

বিকেলে বইমেলা এসেছিলেন রাজধানীর সরকারি শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজের শিক্ষার্থী সেলিম আহমেদ। তিনি বলেন, শেষ সময়ে এসে পাঠকরা বেশি বেশি বই কিনছে, কারণ বিভিন্ন প্রকাশনি থেকে বেশি ছাড় দিচ্ছে। আমি প্রায় ৩০ টি বই কিনেছি। প্রিয় লেখকের বই কিনেছি। মেলায় দেখে পছন্দ হওয়ায় কয়েকটি বইও কিনেছি।

তবে বই মেলায় প্রকাশিত বইয়ের মান নিয়েও প্রশ্ন তুলছেন অনেক দর্শনার্থী। অসম্পাদিত বইয়ের পাশাপাশি মানহীন গল্প এবং রচনার বই ছেয়ে গেছে বই মেলা। ফলে ভালো বইগুলো জনপ্রিয়তা পায় না বলে অভিযোগ অনেকের।

ঢাকার বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী আইরিন সুলতানা বলেন, মেলায় মানসম্পন্ন বইয়ের বড় অভাব। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমগুলোর প্রচারণার ফলে এ সব বই বিক্রি হচ্ছে। এছাড়াও অসম্পাদিত এবং অতি উৎসাহী নামমাত্র কিছু শৌখিন প্রকাশকরা বই প্রকাশ করছেন।

তবে শেষ সময়ের বেচাকেনায় সন্তুষ্ট প্রকাশকরা। তারা বলছেন, আগামী দু’দিনে বিক্রি আরও বাড়বে বলেই আশা করা হচ্ছে। এছাড়া অন্যবারের তুলনায় এবারের বই অনেক মানসম্পন্ন।

বৃহস্পতিবার অমর একুশে গ্রন্থমেলার ২৬তম দিনে গ্রন্থমেলা চলে বিকেল ৩টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত। এদিন নতুন বই এসেছে ১৫৫টি।

বাংলাদেশ সময়: ২১১৯ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২৭, ২০২০
এইচএমএস/এবি

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   অমর একুশে গ্রন্থমেলা ২০২০
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

শিল্প-সাহিত্য বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত

Alexa
cache_14 2020-02-27 21:19:46