bangla news

আগামী গ্রন্থমেলায় থাকবে ‘স্মোকিং জোন’

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০২০-০২-২২ ৬:০১:৫০ পিএম
ছবি: প্রতীকী

ছবি: প্রতীকী

গ্রন্থমেলা প্রাঙ্গণ থেকে: আগামী বছরের অমর একুশে গ্রন্থমেলায় ‘স্মোকিং জোন’ থাকবে। যেখানে ধূমপায়ীদের জন্য সিগারেট ও দিয়াশলাই থাকবে। তবে এ জোনটি মেলার মূল প্রাঙ্গণের বাইরে অবস্থিত হবে।

শনিবার (২২ ফেব্রুয়ারি) মেলা পরিচালনা কমিটির সদস্য সচিব ড. জালাল আহমেদ বাংলানিউজকে এ তথ্য জানান।

শুক্রবার (২১ ফেব্রুয়ারি) ধূমপান করার ঘটনাকে কেন্দ্র করে প্রচ্ছদশিল্পী চারু পিন্টুকে পুলিশ লাঞ্ছিত করেন। এ বিষয়ে যথাযথ ব্যবস্থা নিতে শনিবার জালাল আহমেদের সঙ্গে দেখা করতে যান লেখক ও লিটল ম্যাগ কর্মীরা। সেখানে তাদের সামনের মেলায় ‘স্মোকিং জোন’ রাখার সিদ্ধান্তের কথা জানান জালাল আহমেদ।

জালাল আহমেদ বাংলানিউজকে বলেন, আগামীবারের অমর একুশে গ্রন্থমেলায় ‘স্মোকিং জোন’ রাখার বিষয়ে আমরা প্রাথমিক সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছি। তবে এ জোনটি মেলার মূল প্রাঙ্গণের বাইরে অবস্থিত হবে।

বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন লিটলম্যাগ উপ-কমিটির আহ্বায়ক আমিনুর রহমান সুলতান, প্রচ্ছদশিল্পী চারু পিন্টু, প্রকাশক আলমগীর সিকদার লোটন, লিটলম্যাগ লোক সম্পাদক অনিকেত শামীম, কবি সাফি সমুদ্র, গীরিশ গৌরিক, চলচ্চিত্রকার রেজা ঘটক, কবি সাজাতাৎ রাসেল, সাইমুম জান্নাত প্রভা, দ্রুব চৌধুরী, হাসনাত শাহীন প্রমুখ।

এর আগে শুক্রবার বিকেলে মেলার সোহরাওয়ার্দী উদ্যান অংশে লিটলম্যাগ চত্বরে লাঞ্ছিত হন প্রচ্ছদশিল্পী চারু পিন্টু। শফিউল নামে এক পুলিশ কর্মকর্তা তাকে লাঞ্ছিত করেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, লিটলম্যাগ চত্বরে ধূমপানের প্রস্তুতির সময় চারু পিন্টুর শার্টের কলার ধরে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন পুলিশ কর্মকর্তা শফিউল। এ সময় লেখক-প্রকাশক-শিল্পীদের অকথ্য ভাষায় গালাগালিও করেন এ পুলিশ কর্মকর্তা। তার সঙ্গে রাসেলসহ আরও দুই-একজন পুলিশ কনস্টেবল ছিলেন। একপর্যায়ে সেখানে উপস্থিত লেখক, সম্পাদক ও শিল্পীরা এ ঘটনার তাৎক্ষণিক প্রতিবাদ জানান।

বাংলাদেশ সময়: ১৭৪৬ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২২, ২০২০
ডিএন/এএটি

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   অমর একুশে গ্রন্থমেলা ২০২০
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

শিল্প-সাহিত্য বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত

Alexa
cache_14 2020-02-22 18:01:50