bangla news

সৃজনশীল প্রকাশনার বাইরে বৈচিত্র্য প্রতিষ্ঠানের বইয়েও

হোসাইন মোহাম্মদ সাগর, ফিচার রিপোর্টার | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০২০-০২-১৩ ১:৪১:৩৮ এএম
বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের স্টল-প্যাভেলিয়ন বসেছে। ছবি: ডিএইচ বাদল/বাংলানিউজ

বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের স্টল-প্যাভেলিয়ন বসেছে। ছবি: ডিএইচ বাদল/বাংলানিউজ

গ্রন্থমেলা প্রাঙ্গণ থেকে: অমর একুশে গ্রন্থমেলায় এবার সব মূলধারার সৃজনশীল প্রকাশকদের ঠাঁই দেওয়া হয়েছে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে। আর বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান এসেছে বাংলা একাডেমি চত্বরে। তবে মূল ধারার বইয়ের পাশাপাশি এই প্রতিষ্ঠানগুলোও এবার পাঠকদের জন্য এনেছে নানা বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ সব বইয়ের সম্ভার।

বুধবার (১২ ফেব্রুয়ারি) অমর একুশে গ্রন্থমেলার বাংলা একাডেমি চত্বর ঘুরে দেখা যায়, সৃজনশীল সব প্রকাশনা সংস্থার তুলনায় বিচিত্র বইয়ের সম্ভারে কোনো অংশেই পিছিয়ে নেই এসব প্রতিষ্ঠান। বিভিন্ন বইয়ের পাশাপাশি এখানে পাওয়া যাচ্ছে প্রতিষ্ঠান সম্পর্কিত নানা তথ্যও।

বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণে শিশু একাডেমির স্টল ঘুরে দেখা যায়, সেখানে বাচ্চাদের পাঠ উপযোগী অনেক বই। এর মধ্যে ‘শিশু বিশ্বকোষ’, ‘বাংলা অভিধান’, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার লেখা ‘আমাদের ছোট রাসেল সোনা’, ‘ছোটদের বিজ্ঞান কোষ’, ‘মুক্তিযুদ্ধের কিশোর গল্প’ বেশ ভালো বিক্রি হচ্ছে।

ইসলামী ফাউন্ডেশনের বেশি বিক্রিত বইয়ের মধ্যে রয়েছে ‘বুখারি শরিফ’, ‘আখলাকুল নবী’, ‘আল কোরআনুল করিম’, ‘নক্ষত্রতুল্য সাহাবায়ে কারাম’ বইগুলো।

বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর স্টলে আছে পরিসংখ্যান বিষয়ক নানা বই। জাতীয় জাদুঘরে থেকে প্রকাশিত ‘আলোকচিত্রে সেকালের ঢাকা’, ‘বাংলাদেশের দারুশিল্প’, ‘ট্রেডিশনাল জামদানী’ বইগুলোর কাটতি ভালো।

স্পর্শ ব্রেইল প্রকাশ করেছে দৃষ্টি প্রতিবন্ধীদের জন্য ব্রেইল সংস্করণে নতুন ১৫টি বই। এখানে দৃষ্টিপ্রতিবন্ধীরা মেলার যেকোনো সময়ে এসে বই পড়তে পারেন। এছাড়া বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘরে আছে বঙ্গবন্ধু বিষয়ক নানা বই। সেন্টার ফর রিচার্স অ্যান্ড ইনফরমেশন প্রকাশ করেছে বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে গ্রাফিক নভেল ‘মুজিব’ এর সপ্তম খণ্ড। এবারের গ্রাফিক নভেলটির নাম ‘অ্যাকশন ডে’।

‘উন্মাদ’ এনেছে তাদের মাসিক রম্য ম্যাগাজিনের ৩৫০তম সংখ্যা। কবি নজরুল ইনস্টিটিউটে পাওয়া যাচ্ছে নজরুল বিষয়ক নানা বই। ডাক বিভাগের স্টলে রয়েছে হরেক রকমের ডাকটিকিট, পোস্টকার্ড, বিশেষ খাম। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রকাশনা সংস্থায় রয়েছে মূলত গবেষণা বিষয়ক বই। 

আর বাংলাদেশ এশিয়াটিক সোসাইটিতেও রয়েছে গুরুত্বপূর্ণ সব বই। তাদের প্রকাশিত বইগুলোর মধ্যে বাংলাপিডিয়া, জুনিয়র বাংলাপিডিয়া, বাংলাদেশের ইতিহাস বইগুলো ভালো বিক্রি হচ্ছে।

অমর একুশে গ্রন্থমেলার ১১তম দিন বুধবারে মেলায় নতুন বই এসেছে ১৫৪টি। এদিন মেলার মূলমঞ্চে কবিকণ্ঠে কবিতা পাঠ করেন কবি সাজ্জাদ শরিফ, জাহিদ মুস্তাফা, নওশাদ জামিল এবং জরিনা আখতার। 

আবৃত্তি পরিবেশন করেন আবৃত্তিশিল্পী ফয়জুল্লাহ সাঈদ, মাহমুদুল হাকিম তানভীর এবং আদিবা ইসমাত। সংগীত পরিবেশন করেন কণ্ঠশিল্পী ফেরদৌস আরা, বশিরুজ্জামান সাব্বির, নবীন কিশোর, প্রিয়াংকা বিশ্বাস এবং অনন্যা আচার্য্য।

বিকেলে লেখক বলছি অনুষ্ঠানে নিজেদের নতুন বই নিয়ে আলোচনা করেন মারুফ রায়হান, জয়দীপ দে, অরুণ কুমার বিশ্বাস এবং শিমুল সালাহউদ্দিন।

বাংলাদেশ সময়: ০১৩০ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১২, ২০২০
এইচএমএস/এমএ

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   বইমেলা অমর একুশে গ্রন্থমেলা ২০২০
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2020-02-13 01:41:38