ঢাকা, সোমবার, ৩১ ভাদ্র ১৪২৬, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯
bangla news

‘কাঁটাতার দিয়ে মানুষকে আবদ্ধ করা যায়, কবিতাকে নয়’

শিল্প-সাহিত্য ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৯-০৫ ২:২২:৩০ পিএম
কবিতাসন্ধ্যায় দুই বাংলার তিন কবি।

কবিতাসন্ধ্যায় দুই বাংলার তিন কবি।

ঢাকা: ভারতের সৌমিত বসু আর বাংলাদেশের কবি শাহীন রেজা ও ক্যামেলিয়া আহমেদ, দুই বাংলার এই তিন কবিকে নিয়ে অনুষ্ঠিত হয়েছে কবিতাসন্ধ্যা।

সোমবার (০২ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যা ৬টায় রাজধানীর কাঁটাবনে অবস্থিত কবিতাক্যাফেতে কবিতার কাগজ ‘কবি এবং কবিতা’র আয়োজনে কবিতাসন্ধ্যা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

দুই বাংলার তিন কবিকে ঘিরে এ আয়োজনে অন্যান্য কবিদের উপস্থিতি ছিল জমজমাট। কানায় কানায় পূর্ণ কবিতাক্যাফেতে চেয়ার না পেয়ে দাঁড়িয়েও ছিলেন কেউ কেউ।

কবি জাহাঙ্গীর ফিরোজের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ আয়োজনে মুখ্য আলোচক ছিলেন ষাটের দশকের অন্যতম আলোচিত কবি জাহিদুল হক। সম্মানিত আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কবিতার প্রিয়মুখ কবি নাসির আহমেদ ও কবি রেজাউদ্দিন স্টালিন।

কবি জায়েদ হোসাইন লাকীর সঞ্চালনায় এ আয়োজনে স্বাগতবক্তব্য রাখেন কবি এবং কবিতার সহকারী সম্পাদক কবি কামরুজ্জামান। আলোচনা পর্বে অংশ নেন কবি সরকার মাহবুব, কবি জাকির আবু জাফর ও কবি রোকেয়া ইসলাম। শুভেচ্ছাজ্ঞাপন করেন বিশিষ্ট কথাসাহিত্যিক আফরোজা পারভীন, কবি ও কথা সাহিত্যিক বিলু কবীর, অর্ণব আশিক, মাহমুদ হাফিজ, আশরাফ মির্জা, পারভেজ আনোয়ার এবং নূর কামরুন নাহার।

অনুষ্ঠানে কবিতা পাঠ করেন কবি মুজতাহিদ ফারুকী, শাকিব লোহানী, তৌফিক জহুর, ফরিদ ভূঁইয়া, তাহমিনা বেগম, জেবুন্নেছা হেলেন, শাহনাজ পারভীন, কাজী মোহিনী ইসলাম, নাহিদা আশরাফী, দালান জাহান, শিফফাত শাহরিয়ার, নাহিদা পাঠান তুহিন, মাহবুব সেতু, জ্যাক ডেনভার, রশিদ কামাল, আয়েশা কামাল, সরোয়ার জাহান, সৈয়দ একতেদার, কবিপ্রাণ সঞ্জয় কবীর প্রমুখ। 

এছাড়া গান গেয়ে সবাইকে মুগ্ধ করেন বিশিষ্ট কথাসাহিত্যিক ও কণ্ঠশিল্পী আবু সাঈদ জুবেরী, পলি রহমান, সাজিদা সোনিয়া খান ইতি এবং জাহিদ নূর তুর্য। একইসঙ্গে কলকাতার বাচিকশিল্পী নূপুর মুখার্জীর আবৃত্তিও অনুষ্ঠানকে প্রাণবন্ত করে তোলে।

কবি জাহিদুল হক বলেন, কবিরা একটি একক ও ভিন্ন সত্ত্বা। সারা পৃথিবীর কবিরা একটি সুরেই কথা বলেন, আর তা হচ্ছে কবিতা। কবি এবং সাধারণ মানুষে প্রভেদ এই একটি স্থানে। 

তিনি বলেন, শাহীন রেজা, সৌমিত বসু কিংবা ক্যামেলিয়া- এরা আমার আত্মার আত্মীয়। কবিতার সম্পর্কে আমরা গ্রথিত চিরকালের সুতায়।

কবি নাসির আহমেদ বলেন, কবিতাকে পাঠ নয়, আত্মস্থ করতে হয়। যে কবিতা হৃদয় স্পর্শ করেনা, সেটিকে কবিতা বলতে আমার আপত্তি আছে। যে তিন কবিকে নিয়ে আমাদের আয়োজন, তারা ইতোমধ্যে একটি স্থানে পৌঁছে গেছেন। কিন্তু এটাই শেষ নয়। তাদের কবিতা যেন কালের বিচারে টিকে থাকে, এই ব্যবস্থাটুকু তাদের করতে হবে।

কবি জাহাঙ্গীর ফিরোজ বলেন, কাঁটাতার দিয়ে মানুষকে আবদ্ধ করা যায়, কিন্তু কবিতাকে নয়। এই তিন কবি দুই দেশের হলেও আজ কবিতামিলনে দুই সীমান্ত এক হয়ে গেছে। এটাই কবিতার ধর্ম। এটিই কবিদের কাজ।

কবি রেজাউদ্দিন স্টালিন বলেন, কবিতা হচ্ছে হৃদয়ের ঝরনাধারা। এই তিনকবি সেই ধারায় নিজেদের সিক্ত করুক এই প্রত্যাশা।

সন্ধ্যা ৬টায় শুরু হওয়া প্রাণবন্ত এ অনুষ্ঠান শেষ হয় যখন, তখন ঘড়ির কাঁটায় ঠিক রাত ১০টা ১০।

বাংলাদেশ সময়: ১৪২২ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ০৫, ২০১৯
এসএ/

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-09-05 14:22:30