bangla news

জাতীয় গ্রন্থকেন্দ্রে ঐতিহ্যের বই উৎসবে ৭০ শতাংশ ছাড়!

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৭-২৪ ৯:০৩:৩৫ পিএম
ঐতিহ্যের বই উৎসবের স্টল। ছবি: বাংলানিউজ

ঐতিহ্যের বই উৎসবের স্টল। ছবি: বাংলানিউজ

ঢাকা: দুপুর গড়িয়ে বিকেল হয়েছে বেশ। রোদের তীব্রতা কমে গেছে। তবুও শাহবাগের জাতীয় গ্রন্থকেন্দ্রে তেমন মানুষ নেই। হাতে গোনা দু’একজন। তবে যারা আছেন, তারা বেশ স্বাচ্ছন্দ্যে একবার হলেও ঢুঁ-মেরে আসছেন চত্বরের ঐতিহ্য প্রকাশনীর বইমেলার স্টলে।

দেশের ঐতিহ্যবাহী প্রকাশনা সংস্থা ‘ঐতিহ্য’ এবার বই উৎসব করছে জাতীয় গ্রন্থকেন্দ্র চত্বরে। আর এই বই উৎসবে প্রকাশনা সংস্থাটি বই বিক্রি করছে সর্বনিম্ন ৩০ শতাংশ থেকে সর্বোচ্চ ৭০ শতাংশ কমিশনে।

বুধবার (২৪ জুলাই) বিকেলে ঐতিহ্যের বইমেলা ঘুরে দেখা যায়, মেলায় ছিল বিপুল সংখ্যক বইপ্রেমী আর দর্শনার্থীরাও। যারা এসেছেন, সবাই বই কিনে ঘরে ফিরেছেন। এছাড়া ঐতিহ্যবাহী প্রকাশনা হওয়ায় পাঠকরা সন্তুষ্ট বইয়ের মানে। কিনেছেন নিজেদের বাছাই করা বইগুলো।

মেলায় বই দেখছিলেন সেলিম হোসেন। কথা হলে তিনি বলেন, বইয়ের কাছে এলে অন্যরকম এক ভালোলাগা কাজ করে। ভিড়, হৈ-চৈ বা হৈ-হুল্লোড় নেই। বেশ শান্ত পরিবেশ। অনেকটা খোশ মেজাজেই বিভিন্ন বই সময় করে দেখে নেওয়া যাচ্ছে। আর মূল্য ছাড় অন্য সময়ের তুলনায় বেশি থাকায় সংগ্রহ করা যাচ্ছে অনেক বেশি বই।মেলায় বইপ্রেমীদের ভিড়। ছবি: বাংলানিউজঅন্যান্য বইয়ের পাশাপাশি বিভিন্ন লেখকের রচনাবলীতে বেশি আগ্রহ দেখাচ্ছে পাঠক। এমনটাই জানালেন প্রকাশনা কর্তৃপক্ষ। সে সুবাদে এসব বইয়ের ওপর দেওয়া হয়েছে বিশেষ ছাড়।

এরমধ্যে আবদুশ শাকুর রচনাবলী ৩০০ টাকা ছাড় দিয়ে ২০০ টাকা, আল মাহমুদ রচনাবলী (১৩ খণ্ড) ১ হাজার ৯৫০ টাকা ছাড় দিয়ে ৪ হাজার ৫৫০ টাকায়, জীবনানন্দ দাশ (৬ খণ্ড) ৩ হাজার ৭০০ টাকা ছাড়ে ৩ হাজার ৫০০, বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায় (১০ খণ্ড) ৩ হাজার ৭০০ টাকা ছাড় দিয়ে ৩ হাজার ৫০০ টাকা, রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর (৩০ খণ্ড) ১৭ হাজার ৭০০ টাকা ছাড়ে ১৮ হাজার ৩০০, রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর ( পুরাতন ১৩ খণ্ড) ৯ হাজার টাকা ছাড় দিয়ে ২ হাজার টাকা, শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায় (৫ খণ্ড) ৩ হাজার ২০০ টাকা ছাড় দিয়ে ২ হাজার ৬০০ টাকা, শামসুর রহমান রচনাবলি-৩ বইয়ে ৫০০ টাকা ছাড় দিয়ে ৩০০ টাকা, সুনীল গঙ্গোপাধ্যায় রচনাবলী-১ বইয়ে ৭০০ টাকা ছাড় দিয়ে ৩০০ টাকা উৎসবের মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে।

এছাড়া প্রকাশনীর মুক্তিযুদ্ধ প্রামাণ্য গ্রন্থ, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক গ্রন্থ, শ্রুতিলিপি, অভিধান, অর্থনীতি, প্রবন্ধ, গবেষণা, সমালোচনা, কলাম ও সংকলন, সাহিত্য আলোচনা, রাজনীতি, ভাষা, ইতিহাস, নারী, জেন্ডার, মুক্তগদ্য, শিক্ষা, সাক্ষাৎকার, আত্মজীবনী, জার্নাল, ধর্ম, ভ্রমণ, বিজ্ঞান, উপন্যাস, গল্পগ্রন্থ, ছড়া, চলচ্চিত্র, থিয়েটার, নাটকসহ সব ধরনের বইয়ে রয়েছে সর্বোচ্চ ৭০ শতাংশ ছাড়া।

১৬ জুলাই শুরু হওয়া এই বই উৎসব শেষ হবে আগামী ৩ আগস্ট। সে পর্যন্ত প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত সাড়ে ৮টা পর্যন্ত খোলা থাকবে ঐতিহ্য বই উৎসবের দ্বার।

বাংলাদেশ সময়: ২১৫৮ ঘণ্টা, জুলাই ২৪, ২০১৯
এইচএমএস/এএটি

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   বইমেলা
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

শিল্প-সাহিত্য বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত

Alexa
cache_14 2019-07-24 21:03:35