bangla news

তুর্কি সংস্কৃতির প্রথম বাংলা সাময়িকী ‘মেরহাবা’ প্রকাশিত

শিল্প-সাহিত্য ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৭-১২ ৪:১৯:৫৫ পিএম
‘মেরহাবা’র প্রচ্ছদ

‘মেরহাবা’র প্রচ্ছদ

ঢাকা: তুর্কি জীবনাচার, ভাষা, সাহিত্য ও সংস্কৃতি নিয়ে বাংলা ভাষায় প্রথম সাময়িকী ‘মেরহাবা’ প্রকাশিত হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক, মিডিয়া বিশ্লেষক ও গবেষক সরোজ মেহেদীর সম্পাদনায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আধুনিক ভাষা ইনস্টিটিউট সাময়িকীটি প্রকাশ করেছে।

মেরহাবা’র উপদেষ্টা সম্পাদক হিসেবে রয়েছেন ইনস্টিটিউটের পরিচালক অধ্যাপক ড. শিশির ভট্টাচার্য্য এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মো. জাকারিয়া।
 
সাময়িকীটিতে তুরস্ক ভ্রমণের কাহিনী, সেখানকার মানুষের জীবনযাত্রা, তুর্কি সাহিত্যিক বা মনীষীদের গল্প প্রভৃতি বিষয় নিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের তুর্কি ভাষার শিক্ষার্থীরা লিখেছেন। আছে তুরস্কে উচ্চশিক্ষা গ্রহণের জন্য উপযোগী পরামর্শও।

সাময়িকীর সহ সম্পাদক হিসেবে রয়েছেন মুহিব্বুল্লাহ শাহীন। এছাড়া সম্পাদনা পরিষদের বিভিন্ন বিভাগে দায়িত্ব পালন করেন এমএএ বাদশাহ আলমগীর, মাসুম বিল্লাহ, আবু তাহের উজ্জ্বল, সানজিদা আক্তার, সোনিয়া আক্তার, নাইমুল ইসলাম, আব্দুল্লাহ আল নোমানসহ তুর্কি ভাষা বিভাগের শিক্ষার্থীরা।

তুর্কি ভাষা প্রোগ্রামের সমন্বয়ক ও সাময়িকীর সম্পাদক সরোজ মেহেদী বলেন, তুর্কিদের সঙ্গে বাঙালি মুসলমানের যে ঐতিহাসিক সম্পর্ক, সে তুলনায় এই দুই জনগোষ্ঠীর ইতিহাস-ঐতিহ্য নিয়ে যৌথ কাজ একেবারে নেই বললেই চলে। তাই এই সাময়িকীর প্রকাশ ইতিহাসের চাহিদা পূরণ করবে বলে আমাদের আশা। একইসঙ্গে আমার বিশ্বাস, এই সাময়িকী ভাতৃপ্রতিম এই দুই জাতির মধ্যে নতুন পথচলায় পাথেয় হবে।

তিনি তুর্কি ভাষা বিভাগের ২০১৮-২০১৯ সেশনের সব শিক্ষার্থী, আধুনিক ভাষা ইনস্টিটিউট ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে এমন একটি কাজে সহযোগী হওয়ার জন্য ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান।

কেউ চাইলে আধুনিক ভাষা ইনস্টিটিউট থেকে সাময়িকীটির কপি সংগ্রহ করতে পারবেন বলে কর্তৃপক্ষ উল্লেখ করেছে।

বাংলাদেশ সময়: ১৬১৫ ঘণ্টা, জুলাই ১২, ২০১৯
টিএ

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

শিল্প-সাহিত্য বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত

Alexa
cache_14 2019-07-12 16:19:55