[x]
[x]
ঢাকা, রবিবার, ৫ ফাল্গুন ১৪২৫, ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৯
bangla news

ঢাবির চারুকলায় বার্ষিক শিল্পকর্ম প্রদর্শনী শুরু

ইউনিভার্সিটি করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৮-১১-২৯ ৪:৪৪:১২ পিএম
শিল্পকর্ম প্রদর্শনী ঘুরে দেখছেন ঢাবির উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান। ছবি: বাংলানিউজ

শিল্পকর্ম প্রদর্শনী ঘুরে দেখছেন ঢাবির উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান। ছবি: বাংলানিউজ

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়: ঐতিহ্যবাহী কারুশিল্পকে আধুনিক, যুগোপযোগী ও ব্যবহারিকভাবে সবার কাছে উপস্থাপনের উদ্দেশে চারুকলার জয়নুল গ্যালারিতে শুরু হয়েছে সাত দিনব্যাপী বার্ষিক শিল্পকর্ম প্রদর্শনী।

বৃহস্পতিবার (২৯ নভেম্বর) দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান এ প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন। 

চারুকলা অনুষদের কারুশিল্প বিভাগের আয়োজনে এ প্রদর্শনী শুরু হয়েছে। এ বছর কারুশিল্প বিভাগের ৪৭ শিক্ষার্থীর ১১৫টি শিল্পকর্ম প্রদর্শিত হচ্ছে। আগামী ৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত প্রদর্শনীটি প্রতিদিন সকাল ৮টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত দর্শকদের জন্য উন্মুক্ত থাকবে।

প্রদর্শনী উদ্বোধনের আগে অনুষদের লেকচার থিয়েটার মিলনায়তনে এক অনুষ্ঠানে কারুশিল্প বিভাগের সাত শিক্ষার্থীকে পুরস্কার দেওয়া হয়। 

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন- চারুকলা অনুষদের ডিন অধ্যাপক নিসার হোসেন, শিল্পী আবদুস শাকুর শাহ। সভাপতিত্ব করেন কারুশিল্প বিভাগের চেয়ারম্যান মো আব্দুল মোমেন মিল্টন। আহ্বায়ক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ফারহানা ফেরদৌসী।

অনুষ্ঠানে উপাচার্য অধ্যাপক আখতারুজ্জামান বলেন, কারুশিল্প বিভাগ তার শিক্ষার্থীদের ধারণ করে, শিক্ষার্থীদের ভালো-মন্দ বিবেচনা করে শিল্পকর্ম প্রদর্শন করে। এটা তাদের ভালো একটা দিক। কারুশিল্পের মূল্য অসাধারণ। এ শিল্পকে গণমুখী করা অত্যন্ত জরুরি। কোনো একটা বস্তুর ওপর কারুকাজ করলে তার সৌন্দর্য বহুগুণ বেড়ে যায়। আর সৌন্দর্য বাড়াতে কাজ করেন কারুশিল্পীরা। কারু ও কাজের মধ্যে সমন্বয় সাধন করে শিল্পের রুপ দেয় এসব শিল্পীরা। তাই এসব শিল্পীদের কদর করা প্রয়োজন।

চারুকলা অনুষদের ডিন অধ্যাপক নিসার হোসেন বলেন, রুচির বিকাশ ঘটে কারুশিল্পের মধ্য দিয়ে। সাধারণ মানুষকে দেওয়ার মতো বিভাগগুলোর মধ্যে কারুশিল্প অন্যতম। অসংখ্য মানুষ ও দেশকে দেওয়ার মতো কাজ করে যাচ্ছে এ বিভাগ।

অনুষ্ঠানে পুরস্কারপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের মধ্যে সেরা পুরস্কার পেয়েছেন মাস্টার্স দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী পুনম সাহা, এক্সপ্রিমেন্টাল অ্যাওয়ার্ড পেয়েছেন মাস্টার্স প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী রুবাইয়াত-ই-শারমিন, ক্রিয়েটিভ ক্রাফট অ্যাওয়ার্ড পেয়েছেন মাস্টার্স প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী নওশীন নাহিদ, শিল্পী আবদুস শাকুর শাহ মিডিয়া বেস্ট অ্যাওয়ার্ড পেয়েছেন জিনিয়া ক্লারা ঘোষ, শিল্পী জুনাবুল ইসলাম স্মৃতি পুরস্কার পেয়েছেন শাক্কর চাকমা, শিল্পী রশিদ চৌধুরী স্মৃতি পুরস্কার পেয়েছেন সুহানা শিহার ইমা, শিল্পী আবদুল জব্বার স্মৃতি পুরস্কার পেয়েছেন সত্যানন্দ রায়।

বাংলাদেশ সময়: ১৬৪০ ঘণ্টা, নভেম্বর ২৯, ২০১৮
এসকেবি/আরবি/

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14