bangla news

কবি মাতিয়ে গেলেন সিডনি

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১১-০৮-০৮ ৫:২৫:৪২ এএম

কবি মাতিয়ে গেলেন সিডনি। কবি নির্মলেন্দু গুণ। রোববার সিডনির প্যারামাটা টাউন হল মিলনায়তনে বাঙ্গালির এক সাংস্কৃতিক সমাবেশ স্বভাবসুলভ ভঙ্গিমায় মাতিয়ে তোলেন প্রাণোচ্ছল এই কবি। বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ১৫০তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে বাংলা একাডেমী, অস্ট্রেলিয়া আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে তিনি যোগ দেন।

সিডনি: কবি মাতিয়ে গেলেন সিডনি। কবি নির্মলেন্দু গুণ। রোববার সিডনির প্যারামাটা টাউন হল মিলনায়তনে বাঙ্গালির এক সাংস্কৃতিক সমাবেশ স্বভাবসুলভ ভঙ্গিমায় মাতিয়ে তোলেন প্রাণোচ্ছল এই কবি। বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ১৫০তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে বাংলা একাডেমী, অস্ট্রেলিয়া আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে তিনি যোগ দেন।

মঞ্চের ব্যানার পোস্টারে রবীন্দ্রনাথের পাশাপাশি শোভা পাচ্ছিল তাঁরও একটি ছবি। এতে বিব্রত কবি গুণ কালীদাসের লেখার উল্লেখ করে মজা করে বলেন, রবীন্দ্রনাথতো নামেই আছেন, আমিই আছি বেঁচে।
 
আনোয়ার আকাশ, নীলাঞ্জন সিনহা, নাজনীন হায়দার, শারমিন শফিউদ্দিন পরিচালিত অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন আরো দু’জন বিশিষ্ট বাঙ্গালি। সুরকার, সঙ্গীত পরিচালক আজাদ রহমান আর তার স্ত্রী বিখ্যাত ‘মনেরই রঙে রাঙাবো’ গানের শিল্পী সেলিনা আজাদ। মেয়েদের সঙ্গে সময় কাটাতে তারা এখন সিডনিতে অবস্থান করছেন।

অস্ট্রেলিয়ার ক্ষমতাসীন লেবার পার্টির প্রভাবশালী এমপি লোরি ফার্গুসন, জুলি ওয়েন্স এমপি, বাংলাদেশের অনারারি কাউন্সিলর অ্যান্থনি কুরি, `বাঙ্গালির ক্যাপ্টেন কুক` বলে খ্যাত অস্ট্রেলিয়ায় অভিবাসন নিয়ে যাওয়া প্রথম বাঙ্গালি নজরুল ইসলাম, প্রশান্ত পাড়ের দেশে প্রথম নির্বাচিত বাঙ্গালি জনপ্রতিনিধি প্রবীর মৈত্র, গামা আব্দুল কাদির, রতন কুণ্ডু, সিরাজুস সালেকীন, অনিতা বাওয়াল, অজয় দাশগুপ্ত, আকিদুল ইসলাম, বনি আমিন, নির্মল পাল, সাজ্জাদ পরাগ, হ্যাপি রহমান, অর্পিতা প্রমুখ অনুষ্ঠানে অংশ নেন।
 
আলোচনায় অংশ নিয়ে নির্মলেন্দু গুণ রবীন্দ্রনাথের জীবন সাহিত্যের নানা বিষয় তুলে ধরে বলেন, আজ দুনিয়ার নানা প্রান্তে রবীন্দ্র জন্মজয়ন্তী পালিত হচ্ছে। কিন্তু ৮০ বছর আগে ১৯৩০ সালে শান্তি নিকেতনের বাইরে রবীন্দ্রনাথের জন্মবার্ষিকী প্রথম উদযাপিত হয় আজকের বাংলাদেশের নেত্রকোনায়। শৈলেন্দ্র মজুমদারের উদ্যোগে আয়োজিত উদযাপনের খবর পেয়ে কবি আবেগতাড়িত হন। তাঁকে অপ্রত্যক্ষ রেখে এমন সম্মান দেয়ায় কৃতজ্ঞতা জানিয়ে একটি চিঠি লিখেছিলেন। চিঠিটি পরে তাঁর ‘আমার ছেলেবেলা’ গ্রন্থে ছাপা হয়।
 
জাতীয় সঙ্গীতের রচয়িতা কবির নামে বাংলাদেশের কোনো ভবন বা ঢাকার একটি সড়কেরও নাম কেন নেই?- শ্রোতৃমণ্ডলীর এমন প্রশ্নের জবাবে কবি বলেন, ঢাকায় কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ আছে। নিউ মার্কেট থেকে মিরপুর সড়কের নাম রবীন্দ্রনাথের নামে রাখার প্রস্তাব প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে দেওয়া হয়েছে।

রবীন্দ্রনাথের নামে একটি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার ঘোষণা দেওয়ায় তিনি প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানান।
 
আলোচনা-আড্ডায় অবশ্য দেশের রাজনৈতিক বিষয়ের প্রশ্নাদি সতর্কভাবে এড়িয়ে গেছেন কবি। র‌্যাবের গুলিতে পঙ্গু লিমনের বিষয়ে তিনিসহ দেশের কবি, শিল্পী, সাহিত্যিকরা নীরব কেন প্রশ্ন করলে উল্টো জানতে চেয়েছেন, লিমন এখন কেমন আছে? বঙ্গবন্ধু’র বিষয়ে নানা সমালোচনার জবাবে বলেন, `মাত্র একান্ন বছর বয়সে তিনি একটি দেশের জাতির পিতা হয়েছিলেন।`
 
সিডনিতে তার সম্মানে আয়োজিত এক ডিনারে বহু দিনের পুরনো বন্ধু সাংবদিক আহমেদ নূরে আলমকে পেয়ে আবেগে আপ্লুত হন কবি। ‘দোস্ত’ বলে জড়িয়ে ধরেন তাকে।একাত্তরের পঁচিশে মার্চ থেকে শুরু করে নানা ঘটনার তারা প্রত্যক্ষদর্শী ছিলেন।

কবির নানা গ্রন্থে তাঁর এই সাংবাদিক বন্ধুর নামের উল্লেখ আছে। সিডনিতে মেয়েদের কাছে বেড়াতে এসেছেন সাংবাদিক আহমেদ নূরে আলম। অস্ট্রেলিয়া আওয়ামী লীগের সভাপতি ব্যারিস্টার সিরাজুল হক, বাংলা একাডেমি অস্ট্রেলিয়ার আনোয়ার আকাশ, শারমিন শফিউদ্দিন, মিথিলা, জাবিদ চৌধুরি, ফেরদৌসী রহিমা আরজু প্রমুখ ডিনারে উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশ সময় ১৫১৭ ঘণ্টা, আগস্ট ০৮, ২০১১

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
db 2011-08-08 05:25:42