ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৯ শ্রাবণ ১৪৩১, ২৫ জুলাই ২০২৪, ১৮ মহররম ১৪৪৬

শিল্প-সাহিত্য

বেঙ্গল ফাউন্ডেশন সুবীর চৌধুরী স্মরণানুষ্ঠান অনুষ্ঠিত

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২৩১৭ ঘণ্টা, জুন ৩০, ২০২৪
বেঙ্গল ফাউন্ডেশন সুবীর চৌধুরী স্মরণানুষ্ঠান অনুষ্ঠিত

ঢাকা: বেঙ্গল গ্যালারির পরিচালক ও বেঙ্গল ফাউন্ডেশনের অন্যতম সুহৃদ সুবীর চৌধুরীর দশম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে এক স্মরণানুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে। অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন শিল্পী কনক চাঁপা চাকমা, শিল্পী মনিরুল ইসলাম এবং নাট্যজন রামেন্দু মজুমদার।

রোববার (৩০ জুন) সন্ধ্যায় বেঙ্গল ফাউন্ডেশনে ধানমন্ডি কার্যালয়ে এ আয়োজন অনুষ্ঠিত হয়। এতে ফাউন্ডেশনের ট্রাস্টি ও সহ-সভাপতি ইমেরিটাস অধ্যাপক সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম সভাপতিত্ব করেন।

সুবীর চৌধুরীর স্মরণে এক মিনিট নীরবতা পালন দিয়ে অনুষ্ঠান শুরু হয়।  

এরপর তাঁর জীবনপঞ্জী পাঠ করেন সঞ্চালক ও বেঙ্গল ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক লুভা নাহিদ চৌধুরী। এরপর সূচনা সংগীত পরিবেশন করেন শুক্লা পাল। পরে সুবীর চৌধুরীর জীবনের ওপর নির্মিত ছোট ভিডিও প্রদর্শন করা হয় এবং সুবীর চৌধুরীকে নিয়ে সব্যসাচী লেখক সৈয়দ শামসুল হকের কণ্ঠে পাঠ করা কবিতা প্লে-ব্যাক করে শোনানো হয়। শুক্লা পালের সংগীত পরিবেশনের মধ্য দিয়ে আয়োজন শেষ হয়।  

স্মরণানুষ্ঠানে সুবীর চৌধুরী স্মরণগ্রন্থ জুলাই মাসে প্রকাশের কথা উল্লেখ করেন লুভা নাহিদ চৌধুরী।  

তিনি বলেন, বইটিতে আছে ১৯টি নতুন লেখা, নয়টি বক্তৃতার অনুলিখন, সুবীর চৌধুরীকে নিয়ে সৈয়দ শামসুল হক ও কাইয়ুম চৌধুরীর দুটি কবিতা, কিছু উক্তি, সুবীর চৌধুরী ছবি ও কিছু চিঠি, তাঁর জীবনপঞ্জী এবং কালি ও কলমে প্রকাশিত লেখা এবং প্রথম আলোতে প্রকাশিত মুক্তিযুদ্ধের অভিজ্ঞতা নিয়ে সুবীর চৌধুরীর নিজের লেখার পুনর্মুদ্রণ। সুবীরদার জামালপুরে কাটানো ছেলেবেলা, তার ছাত্রজীবন, রাজনীতি, মুক্তিযুদ্ধ, পরিবার, কর্মজীবন - সব কিছুই ধরার চেষ্টা করা হয়েছে। আশা করি বইটির মধ্য দিয়ে সুবীর চৌধুরীর জীবন ও কর্মের প্রসারিত বলয়কে আমরা আরও গভীরভাবে অনুধাবন করতে পারব।

সুবীর চৌধুরীর জন্ম ১৯৫৩ সালের ২২ ফেব্রুয়ারি জামালপুরে। চার ভাই-বোনের মধ্যে তিনি সর্বকনিষ্ঠ। জামালপুর শহরের সিংহজানি উচ্চ বিদ্যালয়ে তাঁর শিক্ষাজীবন শুরু হয়। পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে যে তিনি খুবই দুরন্ত প্রকৃতির ছিলেন। সপ্তম অথবা অষ্টম শ্রেণিতে থাকাকালে স্কাউট ক্যাম্পিং করার জন্য করাচি গিয়েছিলেন। সেই সময় থেকেই ছাত্র রাজনীতিতে জড়িয়ে পড়েন। স্কুলের ছাত্রদের নিয়ে নিয়মিত মিছিল বের করতেন। তাঁর সঙ্গে থাকতেন তাঁর বড়ভাই সুকুমার চৌধুরী। ১৯৬৯ সালে তিনি ও তাঁর ভাই গ্রেপ্তার হন। সেই বছর কারাগার থেকে ম্যাট্রিকুলেশন পরীক্ষায় অংশ নেন।

বাংলাদেশ সময়: ২৩১৫ ঘণ্টা, জুন ৩০, ২০২৪
এইচএমএস/এসআরএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।