ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ১৩ জুন ২০২৪, ০৫ জিলহজ ১৪৪৫

শিল্প-সাহিত্য

নজরুলের কবিতা দেশের ১৭ কোটি মানুষের কাছে এখনো পৌঁছায়নি 

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৩৪০ ঘণ্টা, মে ২৪, ২০২৪
নজরুলের কবিতা দেশের ১৭ কোটি মানুষের কাছে এখনো পৌঁছায়নি 

ঢাকা: সাবেক সিনিয়র সচিব আবদুস সামাদ ফারুক বলেছেন, নজরুলের কবিতা দেশের ১৭ কোটি মানুষের কাছে এখনো পর্যন্ত পৌঁছায়নি।  

শুক্রবার (২৪ মে) জাতীয় প্রেসক্লাবের মাওলানা আকর খান মিলনায়তনে সাম্যের কবি, ন্যায়ের কবি, দ্রোহের কবি, সম্প্রীতির কবি জাতীয় কবি কাজী নাজরুল ইসলামের বাংলাদেশ আগমন দিবস স্মরণে উন্মুক্ত আলোচনায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

 
আলোচনা সভাটির আয়োজন করে স্বপথ ও অগ্নিবীণা নজরুল চর্চা এবং গবেষণা প্রতিষ্ঠান।  

তিনি বলেন, বিশ্ব কবির কবিতা যেভাবে সকল জায়গায় ছড়িয়ে গেছে সেভাবে নজরুলের সাহিত্য, কবিতা, গান কি দেশের ১৭ কোটি মানুষের কাছে গেছে? না যাওয়ার কারণ কী! এমন ব্যবধান কেন হয়েছে। আমাদের দেশে নজরুলকে নিয়ে যেভাবে চিন্তা করা দরকার ছিল সেভাবে হয়নি। এর জন্য দেশে চিন্তাশীল লোকের প্রয়োজন আছে। প্রতিটি প্লাটফর্মে নজরুলকে নিয়ে আলোচনা করতে হবে।  
তিনি বলেন, নজরুল একমাত্র কবি যিনি হিন্দু মুসলমানদের মধ্যে এমন এক সম্পর্ক তৈরি করেছেন, যার মাধ্যমে তিনি সত্যি অসাম্প্রদায়িক কবি হিসেবে বিবেচিত হয়েছেন। তিনি মুসলমানদের জন্য এমন সব গান-গজল লিখেছেন যা ইসলামের বহু মাওলানারা পর্যন্ত লিখতে পারেননি। এমন কি হিন্দুদের জন্য শ্যামা সংগীত লিখেছেন তাও কেউ কোনো দিন লিখতে পারেননি। নজরুল সাধারণ মানুষের জন্য লিখেছেন।  


অনুষ্ঠানের শুরুতে সূচনা বক্তব্য দেন অগ্নিবীণার চেয়ারম্যান এইচ এম সিরাজ। তিনি সকলের দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলেন, একটি যুদ্ধ-বিধ্বস্ত সদ্য-স্বাধীন বাংলাদেশে ১৯৭২ সালের ২৪ মে বিদ্রোহী কবি যথাযথ মর্যাদা দেওয়া হয়।  

আলোচনা সভাটির সভাপতিত্ব করেন জাতীয় স্বেচ্ছাসেবী সাংস্কৃতিক সংগঠন স্বপথের চেয়ারম্যান মুহাম্মদ শফিকুর রহমান।  
মুখ্য আলোচক হিসেবে বক্তব্য দেন, কবি নজরুল ইনস্টিটিউটের নির্বাহী পরিচালক এ. এফ এম হায়াতুল্লাহ, মোহম্মদ জাকীর হেসেন, সাবেক অতিরিক্ত সচিব ও কবি আমিনুল ইসলাম ও ভারতের মুর্শিদাবাদ থেকে আসা বিশিষ্ট সাংবাদিক ও নজরুল গবেষক জয়নুল আবেদীন।  

বাংলাদেশ সময়: ১৩৪০ ঘণ্টা, ২৪ মে ২০২৪ 
ইএসএস/এসআইএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।